• Home
  • »
  • News
  • »
  • north-bengal
  • »
  • পর্যটনকে বাঁচাতে প্যাকেজ ঘোষণা করুক কেন্দ্র, আর্জি পর্যটন ব্যবসায়ীদের

পর্যটনকে বাঁচাতে প্যাকেজ ঘোষণা করুক কেন্দ্র, আর্জি পর্যটন ব্যবসায়ীদের

লকডাউনের আগে থেকেই অর্থাৎ মার্চ মাস থেকে বন্ধ ট্যুরিজম ইন্ডাস্ট্রি। দেওয়ালে পিঠ থেকে গিয়েছে এই শিল্পের সঙ্গে জড়িতদের।

লকডাউনের আগে থেকেই অর্থাৎ মার্চ মাস থেকে বন্ধ ট্যুরিজম ইন্ডাস্ট্রি। দেওয়ালে পিঠ থেকে গিয়েছে এই শিল্পের সঙ্গে জড়িতদের।

লকডাউনের আগে থেকেই অর্থাৎ মার্চ মাস থেকে বন্ধ ট্যুরিজম ইন্ডাস্ট্রি। দেওয়ালে পিঠ থেকে গিয়েছে এই শিল্পের সঙ্গে জড়িতদের।

  • Share this:

#‌শিলিগুড়ি:‌ তৈরি পাহাড়। তৈরি ট্যুর অপারেটার্স থেকে হোটেল ব্যবসায়ীরা। সরকারি সিদ্ধান্তের অপেক্ষায় প্রহর গুণছেন তাঁরা। পুজোর আগেই স্বাভাবিক ছন্দে ফেরার চেষ্টায় উত্তরের পর্যটন শিল্প। লকডাউনের আগে থেকেই অর্থাৎ মার্চ মাস থেকে বন্ধ ট্যুরিজম ইন্ডাস্ট্রি। দেওয়ালে পিঠ থেকে গিয়েছে এই শিল্পের সঙ্গে জড়িতদের। সঞ্চিত অর্থের ভাঁড়ারও শেষের পথে। পর্যটন ব্যবসা চালু না হলে পেশা বদলানোর ভাবনায় তাঁরা। তাছাড়া বেঁচে থাকার দ্বিতীয় কোনো রাস্তাই খোলা নেই। আর যাঁদের এই শিল্পের সঙ্গে যুক্ত থেকে দিন আনি দিন খাই করে চলতো, তাদের অবস্থা আরো খারাপ। করোনা সবচাইতে বড় ধাক্কা দিয়েছে পর্যটনকে। তাই ফের ফিরে আসতে চান পর্যটন ব্যবসায়ীরা।

কিন্তু করোনার প্রভাব কমছে না। এর মধ্যেই স্বাস্থ্য দফতরের নির্দেশিত কোভিড প্রোটোকল মেনে পর্যটন চালু করতে তৈরি ব্যবসায়ীরা। কয়েক লাখ লোক এর সঙ্গে জড়িত। সামনেই পুজো। তারপর দিওয়ালি, বড়দিনের উৎসব। ইতিমধ্যেই ভিন রাজ্যের পর্যটকদের ফোন আসতে শুরু করেছে। কিন্তু ট্রেন না চললে আসবেনই বা কি উপায়ে? আন্তঃ রাজ্য উড়ান পরিষেবাও সব চালু হয়নি। আর তাই কেন্দ্রের কাছে পর্যটন ব্যবসায়ীদের আর্জি, বিষয়টি গুরুত্বের সঙ্গে বিচার করা। পাশাপাশি পর্যটন ব্যবসার ওপর থেকে জিএসটি আপাতত প্রত্যাহার করে নেওয়া। সেইসঙ্গে তাদের জন্যে আর্থিক প্যাকেজ ঘোষণা করুক কেন্দ্র, দাবী তুলেছেন পর্যটন ব্যবসায়ীরা। রাজ্যের পর্যটনমন্ত্রী জানান, করোনাকে সঙ্গে নিয়েই চলতে হবে। পুজোর আগে-পরে পর্যটনও চালু হবে। পর্যটন ব্যবসায়ী থেকে গাড়ির চালক, মালিকদের বিষয়ে কেন্দ্রের এগিয়ে আসা উচিৎ। কেননা অনেকেই হোটেল লিজ নিয়েছেন, আবার কেউ ব্যঙ্ক লোনে গাড়ি কিনেছেন। প্রতিমাসেই ইএমআই দিতে হচ্ছে। যা যথেষ্টই চাপের হয়ে দাঁড়িয়েছে। তিনি জানান, হোম স্টে'র কর্ণধারদের দেড় লাখ টাকা দেওয়ার কথা ঘোষণা করেছেন মুখ্যমন্ত্রী। দ্রুত তা পাহাড়ের মানুষদের হাতে তুলে দেওয়া হবে। কোভিডের কথা মাথায় রেখেই সাবধানতা মেনেই পর্যটন চালু করা হবে। ইতিমধ্যেই পর্যটন দপ্তরের আওতাভুক্ত কিছু স্পট খুলে দেওয়া হয়েছে। ধাপে ধাপে আরও খুলে দেওয়া হবে।

Partha Sarkar

Published by:Uddalak Bhattacharya
First published: