উত্তরবঙ্গ

corona virus btn
corona virus btn
Loading

ভাঙল সচিন-সৌরভ জুটি! চিতাবাঘের মৃত্যুতে মন খারাপ বেঙ্গল সাফারি পার্কের

ভাঙল সচিন-সৌরভ জুটি! চিতাবাঘের মৃত্যুতে মন খারাপ বেঙ্গল সাফারি পার্কের
সাফারি পার্কে জনপ্রিয় হয়ে উঠেছিল সচিন৷
  • Share this:

#শিলিগুড়ি: ভেঙে গেল শিলিগুড়ির বেঙ্গল সাফারি পার্কের সচিন সৌরভ জুটি৷ সচিন এবং সৌরভ নামে দুই চিতাবাঘই দারুণ জনপ্রিয় ছিল শিলিগুড়িতে৷  কিন্তু হঠাৎই মৃত্যু হল সচিনের৷ ফলে মন খারাপ শিলিগুড়ির বেঙ্গল সাফারি পার্কের কর্মী থেকে শুরু করে দর্শকদের৷

বেঙ্গল সাফারি পার্কের ৫ ফুট লম্বা চিতাবাঘ ছিল সচিন! বনকর্মীরা তো বটেই, পর্যটকদের কাছে অত্যন্ত প্রিয় ছিল সে। বদমেজাজি সচিনের জনপ্রিয়তা বরাবরই ছিল। ২০১৭ সালে ডুয়ার্সের খয়েরবাড়ি জঙ্গল থেকে দুই চিতাবাঘকে আনা হয় সাফারি পার্কে। একটির নাম দেওয়া হয় সচিন, অন্যটির সৌরভ! কিছুদিন এনক্লোজারে রাখার পর পর্যটকদের জন্য ছেড়ে দেওয়া হয় সচিন এবং সৌরভকে।

তারপর থেকেই দুই চিতাবাঘের জনপ্রিয়তা বাড়তে থাকে। লেপার্ড এনক্লোজারে এক বনকর্মীকে জখমও করে সচিন। সেই থেকেই এই চিতাবাঘটির নিয়ে সতর্ক থাকতেন বনকর্মীরা। ২০১৯-এর ১ জানুয়ারি ফের শিরোনামে উঠে আসে সচিন। ওই দিন এনক্লোজার থেকে ১০ ফুটের ফেন্সিং টপকে পালিয়ে যায় সে! বছরের প্রথম দিনে হইচই পড়ে যায় সাফারি পার্কে। সচিনের খোঁজে চলে তল্লাশি। রাতের ঘুম উড়ে যায় বনকর্মী থেকে কর্তাদের। তল্লাশিতে কাজে লাগানো হয় ড্রোনকেও। কিন্তু বনদপ্তর এবং সাফারি পার্ক কর্তৃপক্ষের যাবতীয় চেষ্টাতেও মেলেনি খোঁজ। চার দিন পর খাবারের খোঁজে ফের এনক্লোজারে ফিরে আসে সচিন। তারপর থেকে বছর খানেক এনক্লোজারেই বন্দি ছিল সচিন। লকডাউনের পর ফের তাকে বাইরে ছাড়া হয়।

তার পর থেকে আপন মেজাজেই ছিল সচিন। গত কয়েকদিন ধরে জ্বরে কাবু হয়ে পড়েছিল সে। চিকিৎসাও শুরু হয়। সাফারি পার্কের এক পশু চিকিৎসক ছাড়াও অন্য একজন চিকিৎসককে আনা হয়। কিন্তু শেষ রক্ষা হল না। রবিবারই মৃত্যু হয় সচিনের৷ কীভাবে জ্বর এল? কোনও সংক্রমণ থেকে কি? উঠছে প্রশ্ন। বেঙ্গল সাফারি পার্কের ডিরেক্টর বাদল দেবনাথ জানান, ময়না তদন্ত করা হয়েছে। প্রাথমিক অনুমান জ্বরেই মৃত্যু হয়েছে সচিনের। তা নিশ্চিত করতেই ভিসেরা পরীক্ষার জন্য দেহাংশের নমুনা কলকাতায় পাঠানো হয়েছে। রিপোর্ট হাতে এলে তা পরিস্কার হয়ে যাবে।

এদিকে সচিনের মৃত্যুতে শোকের আবহ সাফারি পার্কে। কারণ সকলের কাছেই সচিন ছিল অত্যন্ত প্রিয়। মন খারাপ পর্যটকদেরও! এই মূহূর্তে সাফারি পার্কে রইল চারটি চিতাবাঘ।

Partha Pratim Sarkar

Published by: Debamoy Ghosh
First published: December 21, 2020, 11:05 AM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर