পাট্টা বিলি নিয়ে পর্যটনমন্ত্রীর বিরুদ্ধে নির্বাচন কমিশনের কাছে নালিশ বামেদের, গুরুত্ব দিতে নারাজ মন্ত্রী!

পাট্টা বিলি নিয়ে পর্যটনমন্ত্রীর বিরুদ্ধে নির্বাচন কমিশনের কাছে নালিশ বামেদের, গুরুত্ব দিতে নারাজ মন্ত্রী!

মুখ খুলেছেন অশোক ভট্টাচার্যও৷

মুখ খুলেছেন অশোক ভট্টাচার্যও৷

  • Share this:

#শিলিগুড়ি: ভোটের মুখে ভূমিহীনদের পাট্টা বিলি নিয়ে গৌতম দেবের বিরুদ্ধে নির্বাচন কমিশনের কাছে নালিশ জানাল সিপিএমএর ডাবগ্রাম জোনাল কমিটি। বাম আমলে শিলিগুড়ি পুরসভার অন্তর্ভুক্ত ডাবগ্রাম-ফুলবাড়ি বিধানসভা এলাকায় ৬৪১ জনকে পাট্টা দেওয়ার সরকারি অনুমোদন দেওয়া হয়েছিল। কিন্তু ২০১১-তে ক্ষমতায় আসার পর মন্ত্রী গৌতম দেব তা আটকে দিয়েছে বলে অভিযোগ তুলেছে বামেরা। এমনকি গত ১০ বছরে কাউকেই পাট্টা দেয়নি তৃণমূল। এবারে ভোটের মুখে কয়েকশো ভূমিহীনের হাতে জমির পাট্টা দিয়েছেন পর্যটনমন্ত্রী। যে পাট্টা শুধু ভোট টানতে দেওয়া হয়েছে বলে দাবি সিপিএম নেতা দিলীপ সিংয়ের।

একই অভিযোগ শিলিগুড়ি পুরসভার প্রশাসক অশোক ভট্টাচার্যেরও। তাঁর দাবি, মন্ত্রীকেই জবাব দিতে হবে কেন তিনি ৬৪১জনকে পাট্টা দেননি। পালটা মন্ত্রী বলেন, নির্বাচনের দিনক্ষন ঘোষণার আগেই ২৬ ফেব্রুয়ারির মধ্যে তাঁর নির্বাচনী এলাকায় নিয়ম মেনেই পাট্টা দেওয়া হয়েছে। বামেদের অভিযোগকে গুরুত্ব দিতে নারাজ মন্ত্রী নির্বাচন কমিশনের কাছে নালিশ করাকে পালটা শুভেচ্ছা জানিয়েছেন। বামেদের অভিযোগ এবারে যে দুই কলোনিতে জমির পাট্টা দেওয়া হয়েছে তার একটা রেলের জমি, অন্যটি বেসরকারি মালিকানাধীন। কোনো পক্ষই রাজ্যের হাতে জমির ছাড়পত্র দেয়নি। স্রেফ সাধারন মানুষকে বোকা বানাতেই এই পাট্টা দেওয়া হয়েছে। মন্ত্রীর চালাকি এবারে ধরা পড়ে গিয়েছে।

অন্যদিকে মন্ত্রী গতকাল পালটা এও বলেন, পুর প্রশাসক অশোক ভট্টাচার্যই জেলাশাসককে চিঠি দিয়ে ৮৪৩ জনের পাট্টা আটকে দিয়েছেন। এর মধ্যে ৬৪১ জন বাম আমলে অনুমোদিত। পাট্টা বিলি নিয়ে বাম, তৃণমূলের কাজিয়ায় শিলিগুড়িতে নির্বাচনের আগে রাজনৈতিক উত্তাপ বাড়ছে। বামেদের অভিযোগ, গত ১০ বছরে নতুন করে ডাবগ্রাম, ফুলবাড়ি এলাকায় কেউই জমির পাট্টা পায়নি। পালটা মন্ত্রীর দাবি, ধারাবাহিকভাবে গত ১০ বছরে ভূমিহীনদের জমির অধিকার পাইয়ে দেওয়া হয়েছে। পুর প্রশাসক বাধা না দিলে আরো কয়েকশো ভূমিহীন জমির পাট্টা পাওয়া থেকে বঞ্চিত হত না। অভিযোগ, পালটা অভিযোগ নিয়ে বিষয়টি জেলা প্রশাসন খতিয়ে দেখছে।

Partha Sarkar

Published by:Debalina Datta
First published: