Home /News /north-bengal /
Village of Flowers : বাগানেই দৈন্যমুক্তি, পর্যটকদের আকর্ষণ এই ফুলের গ্রামের প্রান্তর জুড়ে শুধুই গোলাপ আর গাঁদা

Village of Flowers : বাগানেই দৈন্যমুক্তি, পর্যটকদের আকর্ষণ এই ফুলের গ্রামের প্রান্তর জুড়ে শুধুই গোলাপ আর গাঁদা

২ একর জমিজুড়ে শুধুই গোলাপ আর গাঁদা! এ যেন ফুলের সাগর!

২ একর জমিজুড়ে শুধুই গোলাপ আর গাঁদা! এ যেন ফুলের সাগর!

Village of Flowers : দক্ষিণবঙ্গের যে কোনও জেলাকে গোলাপের গুণমান এবং আকারে টেক্কা দেবে অংশুবাবুর বাগান । এখন একে ঘিরেই প্রচুর স্বপ্ন তাঁর ।

  • Share this:

    শিলিগুড়ি : এই গ্রামে প্রতিদিনই "রোজ ডে"! শুধু ৭ ফেব্রুয়ারির বিশেষ দিনে নয় । প্রতিদিনই এই গ্রামে ভিড় জমান ভিনদেশি, ভিন রাজ্যের পর্যটকেরা । আসবেনই বা না কেন? ২ একর জমিজুড়ে শুধুই গোলাপ আর গাঁদা! এ যেন ফুলের সাগর!

    যেদিকেই দু'চোখ যায় বিভিন্ন রঙের গোলাপ পাপড়ি মেলে আছে। ফুলের এই গ্রামের ঠিকানা শিলিগুড়ির খড়িবাড়ি । বাংলা-বিহার সীমান্ত লাগোয়া ছোট্ট গ্রাম । যার পোশাকি নাম ডোবাজোত । ফুলের গন্ধে আজ এর খ্যাতি ছড়িয়ে পড়েছে সর্বত্র । কেউ আসেন ফুলবাগানে সময় কাটাতে । কেউ ফুলকে ভালবেসে । সঙ্গে দেদারে সেল্ফি, গ্রুপফি তোলা । আবার কেউ আসেন ফুলের ডালি নিয়ে বাড়ি ফিরে যেতে ।

    নদিয়ার রানাঘাটের বাসিন্দা অংশুপতি মণ্ডল বছর ১৫ আগে চলে আসেন খড়িবাড়ির এই গ্রামে । তখন আর্থিক দৈন্যদশায় ভুগছে গোটা পরিবার । নুন আনতে পান্তা ফুরোনর অবস্থা । সেখান থেকে ফুলবাগান তৈরির পরিকল্পনা । তার পর তাঁর হাত ধরেই খড়িবাড়ির ডোবাজোতের পরিচিতি ছড়িয়ে পড়েছে নেপাল, বিহার সহ উত্তরবঙ্গের বিভিন্ন জেলায় । এখানকার চাষের গোলাপ,  গাঁদা পাড়ি দেয় নেপাল, বিহারে । শিলিগুড়ি ছুঁয়ে উত্তরের বিভিন্ন জেলায় ।

    আরও পড়ুন :  ধূপগুড়িতে ‘গণধর্ষিতা’ নাবালিকা, মূল অভিযুক্তর অডিও টেপ ভাইরাল

    দক্ষিণবঙ্গের যে কোনও জেলাকে গোলাপের গুণমান এবং আকারে টেক্কা দেবে অংশুবাবুর বাগান । এখন একে ঘিরেই প্রচুর স্বপ্ন তাঁর । পেয়েছেন রাজ্য সরকারের বিশেষ সম্মান "কৃষি রত্ন"। যা তাঁর ইচ্ছেকে আরও এগিয়ে নিয়ে যেতে পথ দেখাচ্ছে । রাজ্যের আর্থিক সহযোগিতা পেলে বিদেশি ফুলের চাষ করেও তাক লাগাতে চান তিনি । এই বাগানের মাধ্যমে শুধু তাঁরই আয় হচ্ছে না,  এলাকার বেশ কয়েকজন মহিলা পেয়েছেন কর্মসংস্থানের সুযোগ ।

    আরও পড়ুন : শিয়ালদহে মেট্রো স্টেশনের উদ্বোধন কবে? কে করবেন উদ্বোধন?

    স্থানীয় বাসিন্দা যশোদা পাসওয়ান, রোয়াবতী রায়রা বলেন, ‘‘ কাঁটা ফেলে ফুল তুলতে অসুবিধে হলেও সংসার চলছে দিব্যি । কেননা এই বাগানই আমাদের আয়ের উৎস । অখ্যাত এই গ্রামে দিন দিন বাড়ছে ফুলপ্রেমীদের ভিড় । খুশি স্থানীয়রাও ।’’ খড়িবাড়ির এই ‘ফুলের বাড়ি’ এখন স্থানীয়দের কাছেও নয়া ঠিকানা ৷

    Published by:Arpita Roy Chowdhury
    First published:

    Tags: Siliguri

    পরবর্তী খবর