Home /News /north-bengal /
Jute Industry: বৃষ্টির দেখা নেই, দুর্ভোগে পাট চাষিরা

Jute Industry: বৃষ্টির দেখা নেই, দুর্ভোগে পাট চাষিরা

নিজস্ব চিত্র

নিজস্ব চিত্র

Jute Industry: মুর্শিদাবাদ জেলার অন্যতম অর্থকারী তন্তু জাতীয় ফসল পাট। মুর্শিদাবাদ জেলার বৃহৎ অংশে পাট চাষ হয়ে থাকে। একাধিক চাষি নির্ভর করেন পাট চাষের উপর।

  • Share this:

#রানিনগর: বৃষ্টির দেখা নেই, মাঠেই রোদে পুড়ছে পাট। মাথায় হাত পাটচাষীদের। ভারী বৃষ্টি না হওয়ার কারনে চরম দুর্ভোগে মুর্শিদাবাদ জেলার পাট চাষিরা। রানিনগর ১ ও ২নং ব্লকের প্রায় কয়েক হাজার বিঘা জমিতে পাট চাষ করা হয়। কিন্তু বৃষ্টির অভাবে জমিতে পড়েই শুকিয়ে যাচ্ছে সমস্ত পাট। পাট জাগ দেওয়া নিয়ে অত্যন্ত সমস্যায় পড়েছে তাঁরা। লাভের মুখ না দেখায় দুর্ভোগে পাট চাষিরা।

মুর্শিদাবাদ জেলার অন্যতম অর্থকারী তন্তু জাতীয় ফসল পাট। মুর্শিদাবাদ জেলার বৃহৎ অংশে পাট চাষ হয়ে থাকে। একাধিক চাষি নির্ভর করেন পাট চাষের উপর। পাট চাষে প্রয়োজন পর্যাপ্ত পরিমাণে জল। পাট চাষের পর পাট গাছ কোনও জলা জায়গায় ডুবিয়ে পচানো হয়। তারপর সেই পচা পাট থেকে আঁশ বের করে তন্তু করা হয়। কিন্তু বৃষ্টির দেখা নেই, মাঠেই রোদে পুড়ছে পাট। ভারী বর্ষণ না হওয়ার কারনে চরম দুর্ভোগে মুর্শিদাবাদ জেলার পাট চাষিরা। মুর্শিদাবাদের রানিনগর ১ ও ২নং ব্লকের প্রায় কয়েক হাজার বিঘা জমিতে পাট চাষ করা হয়। কিন্তু বৃষ্টি না হওয়ায় জেরে চরম সঙ্কটে পাট চাষিরা। কার্যত জমিতে পড়েই শুকিয়ে যাচ্ছে সমস্ত পাট।

চাষী রাকিব আলি বলেন, সার বিষের পাশাপাশি পাট জাগ দেওয়া অত্যন্ত ব্যয়সাপেক্ষ। এই সময় পাট ছাড়া জমিতে কোনো ফসল লাগানো সম্ভব না। তাই বাধ্য হয়েই পাট চাষ করতে হচ্ছে চাষিদের। কিন্তু লাভের মুখ না দেখায় হতাশায় চাষীরা। চাষী রহমত সেখ বলেন, ধারদেনা করে পাট চাষ করেছিলাম। বৃষ্টি না হওয়ায় জমিতেই পাট শুকিয়ে নষ্ট হয়ে যাচ্ছে। যা খরচ হয়েছে আর তুলনায় লাভ কিছুই হচ্ছেনা। সংসার চালাব কি করে, ধারদেনা শোধ করব কি করে তা নিয়ে আমরা চরম দুশ্চিন্তায়। আমরা চাই সরকারের পক্ষ থেকে আমাদের সাহায্য করা হোক।

Pranab Kumar Banerjee
Published by:Uddalak B
First published:

Tags: Jute

পরবর্তী খবর