হ্যাপি বার্থ ডে জলপাইগুড়ি, আজ দিনভর জেলায় জন্মদিনের অনুষ্ঠান

হ্যাপি বার্থ ডে জলপাইগুড়ি, আজ দিনভর জেলায় জন্মদিনের অনুষ্ঠান
Representational Image

জন্মের দেড়শো বছর পূর্ণ। পয়লা জানুয়ারি জলপাইগুড়ি জেলার ১৫১তম জন্মদিন।

  • Share this:

#জলপাইগুড়ি:একদিকে বর্ষবরণের আনন্দ। অন্যদিকে, জেলার জন্মদিন। সব মিলিয়ে জমজমাট জলপাইগুড়ি। জেলার ইতিহাস নিয়ে মঙ্গলবার হয়ে গেল বই প্রকাশ।

জন্মের দেড়শো বছর পূর্ণ। পয়লা জানুয়ারি জলপাইগুড়ি জেলার ১৫১তম জন্মদিন।

উনিশকে বিদায় দিয়ে নতুন বছরের আনন্দে মাতোহারা রাজ্যবাসী। বছর শেষে জলপাইগুড়িবাসীর এ এক অন্য পাওনা। ইতিহাস ঘাঁটলেই বারবার ঘুরেফিরে আসে জলপাইগুড়ি জনপদের কথা। রঘু বংশের রাজত্ব থেকে মহাভারতে কামরূপের উল্লেখ। ইতিহাসের পাতায় জলপাইগুড়ির গুরুত্ব অনেক।

জলপাইগুড়ি জনপতের একাংশ ভুটানের অধীনে ছিল। ভুটানকে সন্তুষ্ট করে তিব্বতে বাণিজ্যিক পথ তৈরি করতে চেয়েছিল ব্রিটিশরা। ৭৭ মৌজা উপহার পেয়েও সন্তুষ্ঠ হননি ভুটানের রাজা। শেষে ভুটানের সঙ্গে ১৮৬৪ সালে দ্বিতীয়বার ইংরেজদের যুদ্ধ। এ বছরের লড়াইয়ের পর ১৮৬৫ সালের পয়লা জানুয়ারি নতুন জেলা জলপাইগুড়ির জন্ম।

জলপাইগুড়ির জন্ম-কথা 

- জলপাইগুড়ি জনপদের একাংশ ভুটানের দখলে ছিল

- তিব্বতে বাণিজ্যিক পথ তৈরি নিয়ে ব্রিটিশ-ভুটান দ্বন্দ্ব

- ১৮৬৪ সালে ভুটানের সঙ্গে ইংরেজদের যুদ্ধ

- ১৮৬৫-এর ১ জানুয়ারি জলপাইগুড়ির জন্ম

জেলার সার্ধ্বশতবর্ষ উপলক্ষে ‘জলপাইগুড়ির ইতিহাস’ মলাটবন্দি হয়েছে। ১১৬ জন লেখক-গবেষকের কলমে উঠে এসেছে প্রিয় শহরের জানা-অজানা গল্প।

জেলার জন্ম-কথায় কলম ধরেছেন দেবেশ রায়, শীর্ষেন্দু মুখোপাধ্যায়, সমরেশ মজুমদার, তিলোত্তমা মজুমাদরসহ আরও অনেকে। এক দিকে জেলার জন্মদিন, অন্যদিকে বর্ষবর। দুই মিলে জলপাইগুড়িতে এখন ডবল সেলিব্রেশন।

First published: 03:28:23 PM Dec 31, 2019
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर