উত্তরবঙ্গ

corona virus btn
corona virus btn
Loading

'‘কেন্দ্রের প্রকল্পে খালি 'না', এপ্রিলে মমতাকে ক্ষমতাচ্যুত করলেই সব হবে’', হুঙ্কার নাড্ডার

'‘কেন্দ্রের প্রকল্পে খালি 'না', এপ্রিলে মমতাকে ক্ষমতাচ্যুত করলেই সব হবে’', হুঙ্কার নাড্ডার
শিলিগুড়ির সভায় জে পি নাড্ডা৷ Photo-ANI

মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের বিরুদ্ধে ভোটব্যাঙ্কের জন্য রাজনীতি করার অভিযোগ তুলেছেন বিজেপি সভাপতি৷

  • Share this:

#শিলিগুড়ি: বাংলায় কেন্দ্রীয় সরকারের সমস্ত সামাজিক প্রকল্পেই বাধা দিচ্ছেন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়৷ সবকিছুতেই বলছেন 'হবে না, হবে না'৷ কিন্তু এপ্রিল মাসে বর্তমান রাজ্য সরকারকে ক্ষমতা থেকে সরালেই এ রাজ্যে কেন্দ্রের সব প্রকল্প কার্যকর হবে৷ এ ভাবেই উত্তরবঙ্গ সফরে এসে রাজ্যে পরিবর্তনের ডাক দিলেন বিজেপি সভাপতি জে পি নাড্ডা৷

শিলিগুড়িতে দলীয় নেতাকর্মীদের নিয়ে বৈঠকে বিজেপি সভাপতি এ দিন অভিযোগ করেন, নতুন পাশ হওয়া কৃষি আইন এ রাজ্যে কার্যকর করতে দিচ্ছেন না মুখ্যমন্ত্রী৷ বিজেপি এরাজ্যে ক্ষমতায় এলে এক মাসের মধ্যে তা কার্যকর করা হবে বলেও দাবি করেন তিনি৷ একই সঙ্গে তাঁর অভিযোগ, কৃষকদের আর্থিক সাহায্য করতে যে 'কৃষক সম্মান নিধি' প্রকল্প চালু করেছিলেন প্রধানমন্ত্রী, তার সুবিধা পাচ্ছেন না এ রাজ্যের কৃষকরা৷ মুখ্যমন্ত্রীর জন্যই রাজ্যের ৭৬ লক্ষ কৃষক এই আর্থিক সাহায্য থেকে বঞ্চিত হচ্ছেন বলে অভিযোগ করেন নাড্ডা৷ কেন্দ্রীয় সরকারের আয়ুষ্মান প্রকল্প নিয়েও একই অভিযোগ করেছেন জে পি নাড্ডা৷ বিজেপি রাজ্যে ক্ষমতায় এলে এক মাসের মধ্যেই এই সমস্ত প্রকল্প শুরু হয়ে যাবে বলে দাবি করেন বিজেপি সভাপতি৷ উত্তরবঙ্গে রেল পরিষেবা নিয়ে যে যে দাবি রয়েছে, তা পূরণ করতে পুজোর পরই বিজেপি সাংসদদের সঙ্গে কেন্দ্রীয় রেলমন্ত্রী পীযূষ গয়াল বৈঠকে বসবেন বলেও দাবি করেছেন জে পি নাড্ডা৷

বিজেপি সভাপতি এ দিন সচেতন ভাবেই সিএএ প্রসঙ্গও তুলেছেন৷ এ দিনও তিনি দাবি করেছেন, নাগরিকত্ব আইন চালু হবেই৷ ফলে এ রাজ্যে বাংলাদেশ থেকে আসা হিন্দু শরণার্থীরাও নাগরিকত্ব পাবেন বলে আশ্বস্ত করেছেন তিনি৷ তাঁর দাবি, করোনার কারণে নাগরিকত্ব সংশোধনী আইনের নিয়মগুলি তৈরি করতে সময় লাগছে৷ ফের সেই কাজ দ্রুত গতিতে শুরু হয়েছে বলেও দাবি করেন তিনি৷ তবে গোর্খাল্যান্ড নিয়ে বিস্তারিত কিছু না বললেও জে পি নাড্ডা দাবি করেছেন, গোর্খাদের সমস্যার রাজনৈতিক সমাধান করতে তাঁরা দায়বদ্ধ৷

মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের বিরুদ্ধে ভোটব্যাঙ্কের জন্য রাজনীতি করার অভিযোগ তুলেছেন বিজেপি সভাপতি৷ তাঁর অভিযোগ তৃণমূল কংগ্রেস বিভাজনের রাজনীতি করে৷ বিজেপি মানুষকে ঐক্যবদ্ধ রাখে৷ বিজেপি সভাপতি অভিযোগ করেন, এতদিন হিন্দুদের নানা ভাবে বঞ্চিত করেছেন মুখ্যমন্ত্রী৷ এখন ভোটের স্বার্থেই সেই হিন্দুদের তোষণের চেষ্টা করছেন তিনি৷

Published by: Debamoy Ghosh
First published: October 19, 2020, 6:05 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर