বাংলা ভাষাকে গুরুত্ব, শিলিগুড়ির তিনটি স্টেশনের সব ফলকই বাংলা ভাষায় লিখতে হবে, আর্জি "এই প্রজন্মের"

বাংলা ভাষাকে গুরুত্ব, শিলিগুড়ির তিনটি স্টেশনের সব ফলকই বাংলা ভাষায় লিখতে হবে, আর্জি "এই প্রজন্মের"
তাদের দাবি, শহরের তিনটি স্টেশন এনজেপি, শিলিগুড়ি টাউন এবং শিলিগুড়ি জংশনে সমস্ত ফলক এবং স্টেশনের নামের ফলকে বাংলা ভাষায় লেখা বাধ্যতামূলক করতে হবে। হিন্দি এবং ইংরেজিতে লেখার পাশাপাশি বাংলা অক্ষরেরও ব্যবহার করতে হবে।

তাদের দাবি, শহরের তিনটি স্টেশন এনজেপি, শিলিগুড়ি টাউন এবং শিলিগুড়ি জংশনে সমস্ত ফলক এবং স্টেশনের নামের ফলকে বাংলা ভাষায় লেখা বাধ্যতামূলক করতে হবে। হিন্দি এবং ইংরেজিতে লেখার পাশাপাশি বাংলা অক্ষরেরও ব্যবহার করতে হবে।

  • Share this:

#শিলিগুড়ি: রবিবার ছিল আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস। দিনভর নানা কর্মসূচীর মধ্য দিয়ে শিলিগুড়িতে যথাযোগ্য মর্যাদার সঙ্গে দিনটি পালন করা হয়। সকালে বাঘাযতীন পার্কে শহীদ বেদীতে মাল্যদান ও পুষ্পার্ঘ্য প্রদান করেন পুরসভার প্রশাসক অশোক ভট্টাচার্য, পর্যটনমন্ত্রী গৌতম দেব সহ বিশিষ্ট জনেরা। দিনটির গুরুত্ব বোঝান ভাষাবিদেরা। সঙ্গে ছিল সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানেরও আয়োজন।

অন্যভাবে ভাষাদিবসের বিশেষ দিনটি পালন করল শিলিগুড়ির একটি স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন "এই প্রজন্ম"। তাদের দাবি, শহরের তিনটি স্টেশন এনজেপি, শিলিগুড়ি টাউন এবং শিলিগুড়ি জংশনে সমস্ত ফলক এবং স্টেশনের নামের ফলকে বাংলা ভাষায় লেখা বাধ্যতামূলক করতে হবে। হিন্দি এবং ইংরেজিতে লেখার পাশাপাশি বাংলা অক্ষরেরও ব্যবহার করতে হবে। ত্রি-ভাষা নীতি অনুযায়ী রাজ্যের প্রধান ভাষায় লেখা বাধ্যতামূলক। অন্যান্য সমস্ত রাজ্যে এই নীতি চালু থাকলেও কোনও অজ্ঞাত কারণে পশ্চিম বাংলায় তা নেই। উল্টে বেশ কিছু বছর হল বাংলায় লেখা মুছে দেওয়া হয়েছে রাজ্যে। সেইসঙ্গে পাহাড়ের প্রতিটি টয় ট্রেন স্টেশনেও নেপালি ভাষায় লিখতে হবে।

এ বিষয়ে এই সংগঠনের পক্ষ থেকে গত ২৪ অক্টোবর উত্তর-পূর্ব সীমান্ত রেলের তৎকালীন জেনারেল ম্যানেজার সঞ্জীব রায়ের হাতে একটি স্মারকলিপি দেওয়া হয়েছিল। ওই সময় তিনি তাদের আশ্বস্ত করেছিলেন শীঘ্রই রেল এই ব্যাপারে পদক্ষেপ নেবে। এবং যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহণ করবে। কিন্তু তা এখনও বাস্তবায়িত হয়নি। তাই আন্তর্জাতিক মাতৃ ভাষা দিবসে সংগঠনের পক্ষ থেকে একই দাবি জানিয়ে পুনরায় স্মারকলিপি প্রদান করা হয় রেল কর্তৃপক্ষের কাছে।  এনজেপির স্টেশন ম্যানেজার শশাঙ্ক শেখরের কাছে একই দাবি তুলে ধরা হয়। সংগঠনের দাবি, স্টেশন ম্যানেজার তাদের আশ্বস্ত করেছেন আগামী এক মাসের মধ্যে এই ব্যাপারে সমাধান সূত্র বের করে বাংলা হরফে লেখা হবে সমস্ত ফলক। সংগঠনের পক্ষে অনির্বান দত্ত জানান, আগামী এক মাসের মধতে দাবি মানা না হলে আমরা আরও বৃহত্তর আন্দোলন করব। স্টেশন ম্যানেজারের অফিসের সামনে অনির্দিষ্টকালের জন্যে ধর্ণা, অবস্থানে বসব, জানিয়েছে এই প্রজন্ম৷


Published by:Pooja Basu
First published: