Bengal Bjp: 'আমরণ অনশনের হুঁশিয়ারি বিজেপিতে', জেলা সভাপতির কীর্তিকলাপে শোরগোল

জেলা সভাপতির পদত্যাগ দাবি

Bengal Bjp: দশদিনের মধ্যে তাঁকে সভাপতির পদ থেকে না সরালে দলীয় কর্মীরা জেলা বিজেপি কার্যালয়ে আমরণ অনশনে বসবে বলে হুমকি দিয়েছেন।

  • Share this:

#রায়গঞ্জ: রায়গঞ্জ বিজেপি জেলা সভাপতি বাসুদেব সরকারের পদত্যাগের দাবিতে বিজেপি কার্যালয়ে বিক্ষোভ দেখালেন প্রাক্তন জেলা সভাপতির অনুগামীরা। আন্দোলনকারিদের অভিযোগ,  বাসুদেব সরকারকে অবৈধভাবে সভাপতি করা হয়েছে। দশদিনের মধ্যে তাঁকে সভাপতির পদ থেকে না সরালে দলীয় কর্মীরা জেলা বিজেপি কার্যালয়ে আমরণ অনশনে বসবে বলে হুমকি দিয়েছেন। যার নেতৃত্বে এই বিক্ষোভ কর্মসূচী সংগঠিত হয়েছে দলীয় শৃঙ্গখলাভঙ্গের অভিযোগে তাঁকে শোকজ করা হয়েছিল। দলীয় শৃঙ্গখলাভঙ্গে দায়ে  দল প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহণ করবেন বলে বাসুদেব বাবু আশ্বস্ত করেছেন।

গত বিধানসভা নির্বাচনের ঠিক আগে বিজেপি উত্তর দিনাজপুর জেলা সভাপতি বিশ্বজিৎ লাহিড়িকে সরিয়ে বিজেপি জেলা সভাপতি হয়েছিলেন রায়গঞ্জের সাংসদ প্রাক্তন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী দেবশ্রী চৌধুরীর অনুগামী বাসুদেব সরকার। বিধানসভা নির্বাচনে উত্তর দিনাজপুর জেলায় বিজেপির ভরাডুবি এবং রায়গঞ্জের সাংসদ দেবশ্রী চৌধুরী মন্ত্রিত্ব হারানোর পর বিশ্বজিৎ লাহিড়ির অনুগামীরা বেশ খানিকটা উৎফুল্ল। এবার সাংসদ দেবশ্রী চৌধুরীর অনুগামীকে পদ থেকে সরাতে আন্দোলনে নামলেন বিশ্বজিৎবাবুর অনুগামীরা।

দলীয় ব্যার্থতা ছাড়াও শোভন-বৈশাখীর জুটির কথা তুলে এনেছে তাঁরা। জেলা সভাপতি বিজেপি জেলা কার্যালয়কে শোভন-বৈশাখীর মতো কার্যালয় হিসেবে গড়ে তুলেছেন। জেলা সভাপতির এই কার্যকলাপ তাঁরা মেনে নেবেন না বলে জানিয়েছেন। দল দশদিনের মধ্যে বাসুদেববাবুকে সভাপতির পদ থেকে না সরালে তাঁরা আগামীতে এই জেলা কার্যালয়ে আমরন অনশনে বসবেন বলে জানিয়েছেন বিক্ষুব্ধ বিজেপি নেতা বলরাম চক্রবর্তী। তিনি আরও জানান, অবৈধ সভাপতির অত্যাচারে অতিষ্ট হয়ে দলীয় কর্মীরা কার্যালয় মুখী হন না। দলীয় কার্যালয়ে এখন শ্মশানের নিস্তব্ধতা বিরাজ করছে। যিনি এই বিক্ষোভের নেতৃত্ব দিচ্ছেন দল তাকে শোকজ করেছিল। দলীয় শৃঙখলা ভঙ্গের অভিযোগে দল প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহন করবেন বলে জেলা সভাপতি জানিয়েছেন। বিজেপির এই বিক্ষোভকে আমল দিচ্ছে না তৃণমূল কংগ্রেস। শাসক দলের নেতা অরিন্দম সরকারের অভিযোগ,  এই দল মানুষের জন্য কাজ করে না। এরা ক্ষমতা দখলের জন্য নিজেদের গন্ডগোলে লিপ্ত থাকে।

Published by:Suman Biswas
First published: