• Home
  • »
  • News
  • »
  • north-bengal
  • »
  • ভোটার তালিকায় নাম ওঠার অপেক্ষায় ছিটমহলের বাসিন্দারা

ভোটার তালিকায় নাম ওঠার অপেক্ষায় ছিটমহলের বাসিন্দারা

মিলেছে স্থায়ী ঠিকানা। নাগরিকত্বও পেয়েছেন। তবে এখনও মেলেনি ভোটাধিকার। নাম ওঠেনি ভোটার তালিকাতেও। বাংলাদেশ থেকে ভারতে আসা প্রায় ৯০০ মানুষের একটাই আবেদন, ভোট দিতে চান তাঁরা। তবে আসন্ন বিধানসভা ভোটে তাঁদের ভোটাধিকার নিয়ে কোনও আশার কথা শোনাতে পারেননি রাজ্যের মুখ্য নির্বাচনী আধিকারিক।

মিলেছে স্থায়ী ঠিকানা। নাগরিকত্বও পেয়েছেন। তবে এখনও মেলেনি ভোটাধিকার। নাম ওঠেনি ভোটার তালিকাতেও। বাংলাদেশ থেকে ভারতে আসা প্রায় ৯০০ মানুষের একটাই আবেদন, ভোট দিতে চান তাঁরা। তবে আসন্ন বিধানসভা ভোটে তাঁদের ভোটাধিকার নিয়ে কোনও আশার কথা শোনাতে পারেননি রাজ্যের মুখ্য নির্বাচনী আধিকারিক।

মিলেছে স্থায়ী ঠিকানা। নাগরিকত্বও পেয়েছেন। তবে এখনও মেলেনি ভোটাধিকার। নাম ওঠেনি ভোটার তালিকাতেও। বাংলাদেশ থেকে ভারতে আসা প্রায় ৯০০ মানুষের একটাই আবেদন, ভোট দিতে চান তাঁরা। তবে আসন্ন বিধানসভা ভোটে তাঁদের ভোটাধিকার নিয়ে কোনও আশার কথা শোনাতে পারেননি রাজ্যের মুখ্য নির্বাচনী আধিকারিক।

  • Pradesh18
  • Last Updated :
  • Share this:

    #কোচবিহার:   মিলেছে স্থায়ী ঠিকানা। নাগরিকত্বও পেয়েছেন। তবে এখনও মেলেনি ভোটাধিকার। নাম ওঠেনি ভোটার তালিকাতেও। বাংলাদেশ থেকে ভারতে আসা প্রায় ৯০০ মানুষের একটাই আবেদন, ভোট দিতে চান তাঁরা। তবে আসন্ন বিধানসভা ভোটে তাঁদের ভোটাধিকার নিয়ে কোনও আশার কথা শোনাতে পারেননি রাজ্যের মুখ্য নির্বাচনী আধিকারিক।

    ভারত-বাংলাদেশ ছিটমহল  চুক্তি কার্যকর হয়েছে। স্থায়ী নাগরিকত্ব পেয়েছেন বাংলাদেশ থেকে ভারতে আসা ছিটমহলের বাসিন্দারা। বেশিরভাগের ভোটার তালিকায় নাম উঠলেও, এখনও কোচবিহারের হলদিবাড়ি, মেখলিগঞ্জ, সাহেবগঞ্জের ৯২২ জনের নাম ওঠেনি। তালিকায় নাম নেই নতুন ভোটারদেরও।

    এদের অনেকেই সদ্য ১৮-তে পা দিয়েছেন। আশা ছিল ১৮ বছর হলেই মিলবে ভোটাধিকার। কিন্তু প্রশাসনিক গেরোয় তা হয়ে ওঠেনি।

    বিধানসভা ভোটে আদৌ এঁরা ভোট দিতে পারবেন কি না? সেই সম্পর্কে এখনও পর্যন্ত স্পষ্ট কোনও বার্তা দিতে পারেননি রাজ্যের মুখ্য নির্বাচনী আধিকারিক।

    এই গবির মানুষগুলো প্রশাসনিক রীতিনীতি বোঝেন না। দিল্লি, কলকাতাও বোঝেন না। তাঁরা শুধু চান ভারতীয় নাগরিক হিসাবে ভোটাধিকার। আর কবে সেই আধিকার মিলবে এখন তার অপেক্ষাতেই রয়েছেন হলদিবাড়ি, মেখলিগঞ্জ, সাহেবগঞ্জের এই মানুষগুলো।

    First published: