Home /News /north-bengal /
Siliguri Mahakuma Parishad: শিলিগুড়িতে মহাযুদ্ধ! মহকুমা পরিষদে বামেদের সঙ্গে কিছু আসনে লড়াই, বলছে তৃণমূল

Siliguri Mahakuma Parishad: শিলিগুড়িতে মহাযুদ্ধ! মহকুমা পরিষদে বামেদের সঙ্গে কিছু আসনে লড়াই, বলছে তৃণমূল

শিলিগুড়িতে প্রচারে তৃণমূল

শিলিগুড়িতে প্রচারে তৃণমূল

Siliguri Mahakuma Parishad: নিজেদের সাংগঠনিক দুর্বলতার কথা স্বীকার করে নিয়েছেন বিজেপির রাজ্য সভাপতি সুকান্ত মজুমদার।

  • Share this:

#শিলিগুড়ি: পুরসভার পর এবার লক্ষ্য গ্রাম দখল। এই প্রথম শিলিগুড়ি মহকুমা পরিষদ দখলে মরিয়া ঘাসফুল শিবির। মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দোপাধ্যায়ের একাধিক সরকারী প্রকল্পকে হাতিয়ার করেই নির্বাচনী বৈতরণী পার করতে চান পাপিয়া ঘোষেরা। আগামী ২৬ জুন ভোট। তার আগে থেকেই প্রচার পর্ব শুরু করে দিয়েছিল তৃণমূল। নির্বাচনের দিনক্ষন ঘোষণার পর প্রচারে তুলির শেষ টান দেওয়া। বলছিলেন এক তৃণমূল নেতা। তাঁর আত্মবিশ্বাসী সুর, লড়াই হবে অনেকটাই একপেশে। কেন? বিজেপির দখলে তো শিলিগুড়ির গ্রামীন এলাকার দুটি বিধানসভাই। লোকসভাতেও বড় মার্জিন নিয়ে এই এলাকাগুলো থেকে লিড নিয়েছিলেন সাংসদ রাজু বিস্তা। ওই নেতার দাবী, ওসব এখন পুরনো। আর লোকসভা, বিধানসভার নিরিখে গ্রামের ভোট হয় না। ওরা তো বহু আসনে প্রার্থীই দিতে পারেনি। তাহলে লড়াই কার সঙ্গে? চটজলদি জবাব, কিছু আসনে বামেদের সঙ্গে।

আরও পড়ুন-আপ মন্ত্রী সত্যেন্দ্র জৈনের আর্থিক তছরুপের মামলায় উদ্ধার নগদ ২ কোটি, সোনার কয়েন!

নিজেদের সাংগঠনিক দুর্বলতার কথা স্বীকার করে নিয়েছেন বিজেপির রাজ্য সভাপতি সুকান্ত মজুমদার। দিন কয়েক আগে বাগডোগরা বিমানবন্দরে তিনি বলেন, কিছু কায়গায় এখোনও  সাংগঠনিক খামতি রয়েছে। তাই ৯০ শতাংশ আসনে প্রার্থী দিয়েছি আমরা। ফল ভালই হবে। জেলার গেরুয়া শিবিরের নেতারাও আশাবাদী ভাল লড়াই হবে। আর তাই শিলিগুড়ির তিন বিধায়ক ময়দানে নেমে পড়েছেন। কিন্তু একে বারে বুথস্তরের নেতাদের মনোবল চাঙ্গা করতে চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন জেলার নেতারা। দিন কয়েক আগে সভাপতি বদলের দাবী জানিয়ে পোস্টার পড়ে শহরে। যা কিছুটা অস্বস্তিতে ফেলেছে বিজেপি শিবিরকে।

আরও পড়ুন- নূপুর শর্মার মন্তব্যের জের, টিভি বিতর্কে অংশ নেওয়া নেতাদের জন্য বিজেপির নয়া বিধি

অন্য দিকে বামফ্রন্ট দূর্গ ধরে রাখতে মরিয়া। পুরসভা হাতছাড়া হয়েছে। পরপর দুটি ভোটে শোচনীয় পরাজয় হয়েছে "ক্যাপ্টেন" অশোক ভট্টাচার্যের। আর তাই গ্রাম নিজেদের দখলে রাখতে ময়দানে গ্রামের নেতারাই। কংগ্রেসের সঙ্গে গ্রাম পঞ্চায়েত এবং পঞ্চায়েত সমিতির বহু আসনে সমঝোতা হয়েছে। যা কিছুটা আত্মবিশ্বাস জুগিয়েছে জয়ের ব্যাপারে। তবে মহকুমা পরিষদে রফাসূত্র মেলেনি। তবুও সিপিএমের দাবী, এবারেও মহকুমা পরিষদে লাল পতাকাই উড়বে। ২০১৫-তে ৯ আসন বিশিষ্ট মহকুমা পরিষদে বামেরা জিতেছিল ৬টিতে। তৃণমূল ৩টিতে। পরবর্তীতে ১ বাম প্রতিনিধি তৃণমূলে যোগ দিলেও পরিষদ দখল করতে পারেনি।

Partha Sarkar
Published by:Uddalak B
First published:

Tags: Siliguri

পরবর্তী খবর