উত্তরবঙ্গ

corona virus btn
corona virus btn
Loading

হু হু করে নদীতে বাড়ছে জল, অবিরাম বৃষ্টিতে জলমগ্ন শিলিগুড়ির গ্রামীন এলাকা

হু হু করে নদীতে বাড়ছে জল, অবিরাম বৃষ্টিতে জলমগ্ন শিলিগুড়ির গ্রামীন এলাকা

জল বাড়ছে মহানন্দা, বালাসন সহ একাধীক নদীতে

  • Share this:

#শিলিগুড়ি: গত ৩দিন ধরে লাগাতার বৃষ্টির জেরে বিপর্যস্ত সমতলও। শিলিগুড়ির বিধাননগরের একাধিক জায়গা প্লাবিত। বিধাননগরের আনারস বাগান এবং কয়েকটি চা বাগানও জলের তলায়। ক্ষতির পরিমাণ বাড়বে। একেই করোনা এবং লকডাউনে ক্ষতির মুখে পড়েছিল আনারস চাষীরা। প্রবল বৃষ্টিতে যা আরও বাড়িয়ে দিল। চাষীদের কপালে চিন্তার ভাঁজ। দুশ্চিন্তায় স্থানীয় বাসিন্দারাও।

বিধাননগরের রবীন্দ্র পল্লি, নেতাজী পল্লি, সহদরগছ এলাকা জলমগ্ন। কোথাও হাঁটু সমান তো কোথাও আবার বুক পর্যন্ত জল। তা পেরিয়েই ঝুঁকি নিয়ে চলছে পারাপার। প্রতিবছরই বর্ষার জলে প্লাবিত হয় এলাকা। প্রশাসন দেখছি, দেখবো বলেই কাটিয়ে দেয়। আর তাই ক্ষোভ বাড়ছে এলাকায়। শিলিগুড়ি পুরসভার বেশ কয়েকটি নীচু ওয়ার্ডও প্লাবিত। ফের বেহাল নিকাশি ব্যবস্থা নিয়ে ক্ষোভ উগড়ে দিয়েছেন স্থানীয় বাসিন্দারা। এদিন বৃষ্টির মধ্যেই পুরসভার প্রশাসক মণ্ডলীর চেয়ারম্যান অশোক ভট্টাচার্য শহরের জল যন্ত্রণার ছবি দেখতে বেরিয়ে পড়েন। তিনি জানান, নর্দমাগুলো পরিস্কার করায় জল দ্রুত বের হতে পেরেছে। বিধান মার্কেটেও জল জমেনি। তবে যে পরিমাণ বৃষ্টি হয়েছে, তা অভাবনীয়। টানা বৃষ্টির পূর্বাভাস রয়েছে। তাই পরিস্থিতির মোকাবিলায় তৈরী পুর প্রশাসন। তবে এর স্থায়ী সমাধানের জন্যে চাই নিকাশী নালার উন্নয়নে মাস্টার প্লান। বহুবার রাজ্যের কাছে দরবারের পরও অনুমোদন মেলেনি বলে দাবী তাঁর। অন্যদিকে পাহাড় ও সমতলে অবিরাম বৃষ্টির জেরে জল বাড়ছে মহানন্দা, বালাসন, পঞ্চনই সহ একাধীক নদীর জল। জলস্তর অনেকটাই বেড়ে গিয়েছে। নদী সংলগ্ন এলাকায় বসবাসকারীদের সতর্ক থাকবার পরামর্শ দিয়েছে মহকুমা প্রশাসন। রাতভর বৃষ্টি হলে শহরের একাধীক ওয়ার্ড প্লাবিত হতে পারে। জল ছেড়েছে ফুলবাড়ির মহানন্দা ক্যানাল কর্তৃপক্ষও। এদিন শিলিগুড়িতে ১১৭ দশমিক ১ মিলিমিটার বৃষ্টি হয়েছে। দার্জিলিংয়ে ১০৪ দশমিক ২ মিমি, সেবকে ৮৬ দশমিক ৮ মিমি এবং কালিম্পংয়ে ৫৭ দশমিক ৪ মিমি বৃষ্টি হয়েছে।

Partha Sarkar

Published by: Debalina Datta
First published: September 23, 2020, 4:41 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर