নির্বাচনের মরশুমে কোচবিহারে ফের সরব নারায়ণী সেনা, জেনে নিন এই সেনার ইতিহাস...

নির্বাচনের মরশুমে কোচবিহারে ফের সরব নারায়ণী সেনা, জেনে নিন এই সেনার ইতিহাস...
Photo: News 18 Bangla
  • Share this:

#কোচবিহার: নির্বাচনের মরশুমে কোচবিহারে ফের সরব নারায়ণী সেনা প্রসঙ্গ। কারা এই নারায়ণী সেনা ? জানতে ইতিহাস ঘাঁটতে হবে। বলতে হবে চিলারায় শুক্লধ্বজ নামে এক বীর যোদ্ধার গল্প। যাঁর যুদ্ধ কৌশলে সীমানা বেড়েছিল কোচবিহার রাজের। এখনও রাজবংশীরা পুজো করে চিলের মত ক্ষীপ্র এই যোদ্ধার। সেই আবেগকেই ভোট ময়দানে কাজে লাগাতে চাইছে রাজনৈতিক দলগুলো। কোচবিহারে নারায়ণী সেনার ট্রেনিং ক্যাম্প। গোটা দেশে ভাইরাল হয় ছবিটা। খবর ছড়িয়ে পড়তেই, বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের পক্ষ থেকে দাবি করা হয়, ভারতীয় সেনার একাংশ নাকি প্রশিক্ষণ দিচ্ছে এই নারায়ণী সেনাকে। কেউ বিরোধিতা করেছিল। কেউ দাঁড়িয়েছিল পক্ষে।

জেলার বহিষ্কৃত তৃণমূল কংগ্রেস নেতা নিশীথ অধিকারী এবার জামা বদলে বিজেপির প্রার্থী। তার দাবি, রাজবংশীদের নিজস্ব বাহিনী এই নারায়ণী সেনা। এরাই রক্ষা করতে পারবে কোচবিহার জাতিসও্বাকে। স্বীকারও করে নিয়েছেন চকচকায় নারায়াণী সেনার প্রশিক্ষণ শিবিরের। বিজেপি প্রার্থীর দাবি ভারতীয় সেনাবাহিনীতে কেন নারায়ণী সেনা রেজিমেন্ট থাকবে না? যে দাবিটা একসময় তুলেছিলেন গ্রেটার কোচবিহার

সেটা ২০০৫ সাল। বামফ্রন্ট সরকারের আমল। গ্রেটার কোচবিহার-কামতাপুরী আন্দোলনের নেতা বংশীবদন বর্মন। তারই নেতৃত্বে অনশন, রেল অবরোধ। ৫৬ জন কামতাপুরি বংশীবদন সহ গ্রেফতারও হয়েছিলেন। সেই আন্দোলনের নেতা এখন উল্টোকথা বলছেন, তাঁর বক্তব্য, নারায়নী সেনার দাবি আদতে তাঁদের। এখন বিজেপি যার ফয়দা নিতে চাইছে। ৩২% রাজবংশী ভোটের দিকেই নজর বিজেপির। বংশীবদনের প্রশ্ন এতদিন ক্ষমতায় থেকে বিজেপি পৃথক রাজবংশী রেজিমেন্ট গড়ে তোলেনি কেন?

আপাতত,বংশীবদন বর্মন রাজবংশী উন্নয়ন বোর্ডের চেয়ারম্যান। দাবি রাজবংশীরা তার সঙ্গেই আছে। কিন্তু যে কথা বংশীবাবু জানাতে চাইছেন না তা হল, ওই রাজবংশী ভোটের আরেক দাবিদার তার একদা সঙ্গী অনন্ত মহারাজও। যিনি এখন বংশীবদন বিরোধী। বিজেপি প্রার্থী হওয়ার দাবিদারও ছিলেন। দাবিদার ছিলেন রাজবংশী উন্নয়ন বোর্ডের চেয়ারম্যানও। প্রার্থী না হতে পারায় আপাতত তিনি উত্তরবঙ্গ উন্নয়ন মন্ত্রীর সরকারি বক্তব্যের সঙ্গে সহমত।

তবে বিজেপির দাবির সঙ্গে কিছুটা হলেও মিল আছে বামেদের। সরাসরি নারায়ণী সেনার দাবি না জানালেও,বামফ্রন্টের প্রার্থী গোবিন্দ রায়ের দাবি, কোচবিহারে কেন মিলিটারি অ্যাকাডেমি হবে না? ইতিহাসের উল্লেখ তার গলায়। বক্তব্যে কোচবিহার রাজার সেনাবাহিনীর অদম্য লড়াকু ঐতিহ্যের কথা।

এখনও কোচবিহারে বীরপূজা পান চিলারায় শুক্লধ্বজ। রাজবংশী যে কোন যুবকের কাছে আজও ম্যাকবেথ-রবীন্দ্রনাথ পঞ্চানন বর্মা। কোচবিহারবিহারের যুবক-যুবতীর কাছে এখনও দাবি কাজ আর শিক্ষা। স্বাভাবিক কারণে সেই জাতিসত্ত্বার আবেগকেই উসকে দিতে চাইছে বিজেপি। ২০১৬ সালের নারায়ণী সেনা ট্রেনিংও সেই উদ্দেশ্যেই। অবস্থা ফেরাতে দ্রুত রাজবংশী উন্নয়ন বোর্ড তৈরি করেছেন মুখ্যমন্ত্রী। ফলে, বাঁটোয়ারা রাজবংশী ভোট আর জাতিসত্ত্বা।

দেখুন...

First published: 04:01:59 PM Apr 04, 2019
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर