পাহাড় থেকে আধা সেনা প্রত্যাহারের সিদ্ধান্তে অন্তর্বতী স্থগিতাদেশ

পাহাড় থেকে আধা সেনা প্রত্যাহারের সিদ্ধান্তে অন্তর্বতী স্থগিতাদেশ
Para Military Force

পাহাড় থেকে আধা সেনা প্রত্যাহারের সিদ্ধান্তে অন্তর্বতী স্থগিতাদেশ

  • Share this:

 #কলকাতা: পাহাড় থেকে বাহিনী প্রত্যাহারের কেন্দ্রীয় সিদ্ধান্ত ধাক্কা খেল আদালতে ৷ পাহাড়ে আধা সেনা থাকবে জানিয়ে দিল হাইকোর্ট ৷ পাহাড় থেকে সেনা প্রত্যাহারের সিদ্ধান্তে অন্তর্বর্তী স্থগিতাদেশ দিল কলকাতা হাইকোর্ট ৷ পাহাড়ে কেন্দ্রীয় বাহিনী প্রত্যাহার নিয়ে কলকাতা হাইকোর্টের হস্তক্ষেপ দাবি করে আদালতের দ্বারস্থ হয় রাজ্য সরকার। সেই মামলাতেই কোর্টের এই সিদ্ধান্ত ৷ কেসের পরবর্তী শুনানি ২৭ অক্টোবর ৷

২৭ অক্টোবর পর্যন্ত পাহাড়ে ১৫ কোম্পানি আধাসেনা মোতায়েন রাখার নির্দেশ দিয়েছে উচ্চ আদালত। একইসঙ্গে, ২৩ অক্টোবরের মধ্যে আধাসেনা নিয়ে কেন্দ্রীয় সরকারকে হলফনামা জমা দেওয়ার নির্দেশ দিয়েছে উচ্চ আদালত। ২৬ অক্টোবর রাজ্যকে হলফনামা জমা দেওয়ার নির্দেশও দেওয়া হয়েছে।

পাহাড়ে ১৫ কোম্পানি আধাসেনার বদলে ৭ কোম্পানি বাহিনী প্রত্যাহার করার সিদ্ধান্ত নেয় ৷ তাতেই বিতর্কের উৎপত্তি ৷ 'হাইকোর্টের নির্দেশ অবমাননা করছে কেন্দ্র ৷ ১৫ কোম্পানি কেন্দ্রীয় বাহিনী থাকার নির্দেশ দিয়েছিল হাইকোর্টই ৷ তারপরও বাহিনী প্রত্যাহার কীভাবে?’

রাজ্যের এই প্রশ্নের উত্তরে বিচারপতি হরিশ ট্যান্ডনের অবকাশ বেঞ্চ জানায়, ‘পাহাড়ে ১৫ কোম্পানিই আধা সেনা থাকবে ৷’ আচমকা পাহাড় থেকে কেন্দ্রীয় বাহিনী প্রত্যাহারের সিদ্ধান্ত কেন? হাইকোর্টের এই প্রশ্নের মুখে পড়ছে হয় কেন্দ্রের আইনজীবীদের। অন্য রাজ্যে জঙ্গি সমস্যা বা নির্বাচনের কথা বলে পালdটা যুক্তি তুলে ধরার চেষ্টা করেন কেন্দ্রের আইনজীবীরা। কিন্তু, তা ধোপে টেকেনি।

উল্টে কেন্দ্রকে বিচারপতি হরিশ ট্যান্ডন প্রশ্ন করেন, ‘সঙ্গত কারণেই পাহাড়ে বাহিনী মোতায়েন করা হয়েছিল ৷ এখন উপযুক্ত কারণ ছাড়া কী করে সেই বাহিনী সরিয়ে নেবেন?’ কেন্দ্রের কাছে মোট কত কোম্পানি বাহিনী রয়েছে, কোন রাজ্যে কত কোম্পানি আধাসেনা রয়েছে তাও জানতে চায় হাইকোর্ট। কী এমন জরুরি পরিস্থিতি তৈরি হল যে পাহাড় থেকেই কেন্দ্রীয় বাহিনী সরাতে হবে? এই প্রশ্নও তোলে আদালত।

কেন্দ্রের আইনজীবীরা বলেন, বাহিনী প্রত্যাহারের সিদ্ধান্ত একান্তই অভ্যন্তরীণ। কিন্তু, এই যুক্তি আদালতে টেকেনি। তাই মাত্র চল্লিশ মিনিটের শুনানিতে রাজ্যের দাবিতেই সিলমোহর দিয়েছেন বিচারপতি হরিশ ট্যান্ডন ও দেবাংশু বসাকের ডিভিশন বে়ঞ্চ।

First published: 03:29:59 PM Oct 17, 2017
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर