করোনা সচেতনতায় দার্জিলিংয়ের হোটেলে হেল্থ স্ক্রিনিং ক্যাম্প, পর্যটকদের ফিল আপ করতে হবে ফর্ম

করোনা সচেতনতায় দার্জিলিংয়ের হোটেলে হেল্থ স্ক্রিনিং ক্যাম্প, পর্যটকদের ফিল আপ করতে হবে ফর্ম

শেষ ১৫ দিনের ট্র‍্যাভেল হিস্ট্রিও উল্লেখ করতে হবে ফর্মে।

  • Share this:

#দার্জিলিং: করোনা নিয়ে কড়া সতর্ক গোর্খাল্যাণ্ড টেরিটোরিয়াল এডমিনিস্ট্রেশন (জিটিএ)। করোনা মোকাবিলায় এবার পাহাড়ের হোটেলগুলোতেও হেলথ স্ক্রিনিং করা হবে। পাশাপাশি, প্রশাসনের একটি ফর্ম ফিল-আপ করতে হবে পর্যটকেদের। যা বাধ্যতামূলক প্রতিটি দেশ এবং বিদেশী পর্যটকদের জন্য।

কোথা থেকে এসেছেন? শেষ ১৫ দিনের ট্র‍্যাভেল হিস্ট্রিও উল্লেখ করতে হবে সেই ফর্মে। হোটেল মালিকদের তা জমা দিতে হবে জেলা প্রশাসনের হাতে। কোনওরকম ঝুঁকি নিতে নারাজ জিটিএ। আজ দার্জিলিংয়ের লালকুঠিতে জেলা পুলিশ, প্রশাসন, স্বাস্থ্য দফতরের কর্তাদের নিয়ে বৈঠক করেন জিটিএ'র প্রিন্সিপাল সেক্রেটারি সুরেন্দ্র যাদব। ছিলেন জিটিএ'র চেয়ারম্যান অনিত থাপা এবং হোটেল ও গাড়ি চালকদের সংগঠনের সদস্যরা। পাহাড়ে ঢোকার মুখে আরও দুটি জায়গায় হেলথ স্ক্রিনিং ক্যাম্প চালু করা হচ্ছে। একটি চালু হবে সমতলের শিমূলবাড়িতে। অন্যটি, সান্দাকফু'র আগে মানেভঞ্জনে। এছাড়া ইন্দো-নেপাল সীমান্ত এবং সীমান্তের গ্রামগুলিতেও কড়া সতর্কতা জারি করা হয়েছে।

ভারত-নেপাল সীমান্ত লাগোয়া গ্রামগুলিতে হেলথ স্ক্রিনিং করা হচ্ছে। পাহাড়ে ঢোকার সব পয়েন্টেই হেলথ স্ক্রিনিং ক্যাম্প থাকছে বলে জানান জিটিএ'র প্রিন্সিপাল সেক্রেটারি। ১৫ হাজার মাস্ক আনা হয়েছে। এই মাস্ক তুলে দেওয়া হবে গাড়ির চালকদের হাতে। কাল থেকেই বিলি শুরু হবে। জানা গিয়েছে, চালকরা দেশ-বিদেশের পর্যটকদের নিয়ে ঘোরে। সেইসঙ্গে করোনা নিয়ে সচেতনতা বাড়াতে পথ নাটিকা, গান, ব্যানার, পোস্টার সাঁটানো হবে পাহাড়ে। কী করবেন আর কি করবেন না, তা উল্লেখ থাকবে এই সচেতনতামূলক প্রচারে। এখনও পর্যন্ত বাগডোগরা বিমানবন্দরে ৩৫০জন বিদেশী পর্যটকের হেলথ স্ক্রিনিং করা হয়েছে। কিন্তু করোনা ভাইরাসের জীবাণু মেলেনি। ভারত-নেপাল সীমান্তে এখনও পর্যন্ত ৫ হাজার ৮৫৫ জনের হেলথ স্ক্রিনিং করা হয়েছে। কোনও পজিটিভ রোগী মেলেনি বলে জানিয়েছে জেলা স্বাস্থ্য দপ্তর। তবু সতর্ক প্রশাসন। সেল্ফ হেল্ফ গ্রুপের সদস্যদের দিয়ে প্রচার চালানো হচ্ছে। করোনার জেরে সিকিমে বিদেশী পর্যটকদের প্রবেশে "না" করে দেওয়া হয়েছে। ভুটানেও বিদেশীদের জন্য দরজা বন্ধ।

Partha Sarkar

First published: March 11, 2020, 8:41 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर