উত্তরবঙ্গ

corona virus btn
corona virus btn
Loading

বাড়ি থেকে ডেকে এনে গৃহকর্তাকে গুলি করে খুন!

বাড়ি থেকে ডেকে এনে গৃহকর্তাকে গুলি করে খুন!

জানা গিয়েছে,গতকাল, মঙ্গলবার, রাতে বাড়িতে রাতে খাবারের পর মোটরবাইক চেপে দুই দুষ্কৃতী গুরুচাঁদ বাবুকে নাম ধরে ডাকেন। তিনি বাইরে এলে তাকে খুব কাছ থেকে গুলি করে পালিয়ে যায় দুষ্কৃতীরা৷

  • Share this:

#ডালখোলা:  মঙ্গলবার রাতে বাড়ি থেকে ডেকে এক ব্যাক্তিকে গুলি করে খুন করার ঘটনায় ডালখোলা থানার হাসান এলাকায় চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে। ঘটনায় পুলিশ একজনকে আটক করেছে। পুলিশ ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে। মৃত ব্যাক্তির নাম গুরুচাঁচ রায়। মৃত ব্যাক্তি সিপিএম সমর্থক বলে দাবি করেছে। অভিযোগের তীর তৃণমূল কংগ্রেস আশ্রিত দুষ্কৃতীদের বিরুদ্ধে। তৃণমূল কংগ্রেস এই অভিযোগ অস্বীকার করেছে।

জানা গিয়েছে,গতকাল, মঙ্গলবার, রাতে বাড়িতে রাতে খাবারের পর মোটরবাইক চেপে দুই দুষ্কৃতী গুরুচাঁদ বাবুকে নাম ধরে ডাকেন। তিনি বাইরে এলে তাকে খুব কাছ থেকে গুলি করে পালিয়ে যায় দুষ্কৃতীরা৷ ঘটনাস্থলেই তার মৃত্যু হয়। ডালখোলা থানার পুলিশ খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পৌঁছায়। মৃতদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য ইসলামপুর হাসপাতালে পাঠানো হয়। এই ঘটনায় এলাকায় ব্যপক চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়। মৃত গুরুচাঁদবাবু সিপিএম কর্মী বলে দাবি। পুলিশ এই ঘটনায় একজনকে আটক করেছে। পুলিশের প্রাথমিক অনুমান পুরনো শত্রুতার জেরে খুন বলে মনে করছে। এই খুনের ঘটনায় শাসক দলের আশ্রিত দুষ্কৃতীদের বিরুদ্ধে অভিযোগ উঠেছে। তৃণমূল কংগ্রেস এই অভিযোগ অস্বীকার করেছে।

মৃতের ছেলে রাকেশ রায় জানিয়েছেন, বাবা বাড়িতে ছিলেন। দুই অপরিচিত ব্যক্তি মোটরবাইকে তার বাবাকে ডাকেন। বাড়িতে থেকে বাইরে আসতেই কিছু বোঝার আগেই গুলি করে তারা পালিয়ে যায়।  রক্তাক্ত অবস্থায় তাকে ইসলামপুর হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসক মৃত বলে ঘোষণা করেন। ইসলামপুর হাসপাতালে ময়নাতদন্তের সঠিক পরিকাঠামো না থাকায় মৃত দেহ ময়নাতদন্তের জন্য রায়গঞ্জ গভর্মেন্ট মেডিক্যাল কলেজ ও হাসপাতালে পাঠানো হয়।

ইসলামপুর সিপিএম নেতা বিকাশ দাস জানিয়েছেন,  এলাকায় সমাজসেবি হিসেবে পরিচিত ছিলেন গুরুচাঁদবাবু। দীর্ঘদিন ধরে সিপিএমের সক্রিয় সদস্য ছিলেন।  শাসক দলের মদতেই দুষ্কৃতীরা তাকে খুন করে। সিপিমের অভিযোগ মানতে চাননি চাকুলিয়া তৃণমূল কংগ্রেসের কার্যকরী সভাপতি বিপ্লব মন্ডল। বিল্পব বাবু জানান, হাসান গ্রামে এধরণের ঘটনা আগেও ঘটেছিল। পুলিশকে ঘটনার তদন্ত করে প্রকৃত দুষ্কৃতীদের গ্রেফতার দাবি করা হয়েছে। দুষ্কৃতীদের কোনও দল হয় না। পুলিশ ইতিমধ্যে একজনকে আটক করেছে।

যে কোন মৃত্যু দুঃখজনক।  সিপিএমের অভিযোগ ঠিক নয় বলে বিপ্লববাবু দাবি করেছেন। পুরনো শত্রুতার জেরে এই ঘটনা বলে পুলিশ প্রাথমিকভাবে মনে করেছে। আটক ব্যক্তিকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে।তদন্তের খুনের কারণ জানা যাবে বলে ডালখোলা থানার পুলিশ মনে করছে।

Published by: Pooja Basu
First published: January 13, 2021, 4:34 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर