• Home
  • »
  • News
  • »
  • north-bengal
  • »
  • GOVERMENT LAND CAPTURED BY BJP MP JOHN BARLA SAID ALIPURDUAR DISTRICT BJP EX PRESIDENT GANGA PRASAD SHARMA SB

John Barla: সরকারি জমি দখল করে কোটি টাকার বাড়ি জন বার্লার? দাবি, মহিলাদের ট্রেনিং দেবেন!

মারাত্মক অভিযোগ

John Barla: সদ্য তৃণমূলে যোগ দেওয়া বিজেপির জেলা সভাপতি গঙ্গাপ্রসাদ শর্মার অভিযোগ, আলিপুরদুয়ারের চামুর্চি মোড়ের কাছে অনেকখানি সরকারি জমি দখল করে নিয়েছেন জন বার্লা।

  • Share this:

    #আলিপুরদুয়ার: হঠাৎই পৃথক উত্তরবঙ্গের দাবিতে সুর চড়িয়েছেন আলিপুরদুয়ারের বিজেপি সাংসদ জন বার্লা। বৃহস্পতিবার বেশ কয়েকজন পঞ্চায়েত সদস্যকে সঙ্গে নিয়ে দার্জিলিং রাজভবনে রাজ্যপাল জগদীপ ধনখড়ের সঙ্গেও সাক্ষাৎ করেছেন তিনি। এরপর পৃথক উত্তরবঙ্গের দাবি নিয়ে আলাদা করে কিছু না বললেও তিনি যে নিজের অবস্থানে অনড় থাকবেন তা বুঝিয়ে দিয়েছেন তিনি। এরই মধ্যে বিস্ফোরক দাবি করলেন আলিপুরদুয়ারের সদ্য প্রাক্তন জেলা সভাপতি তথা বর্তমানে তৃণমূল নেতা গঙ্গাপ্রসাদ শর্মা। জন বার্লার বিরুদ্ধে সরকারি জমি দখল করে বাড়ি তৈরির অভিযোগ তুলেছেন গঙ্গাপ্রসাদ।

    সদ্য তৃণমূলে যোগ দেওয়া বিজেপির জেলা সভাপতির অভিযোগ, আলিপুরদুয়ারের চামুর্চি মোড়ের কাছে অনেকখানি সরকারি জমি দখল করে নিয়েছেন জন বার্লা। সেই জমির উপর বাড়িও তৈরি করেছেন, যা তৈরিতে খরচ পড়েছে প্রায় কোটি টাকা। এই সময়ে কোটি কোটি টাকা ব্যয়ে তিন তলা বাড়ি নিয়ে কটাক্ষ করেছেন তিনি। সরকারি জমি দখলের অভিযোগ অস্বীকার করতে পারেননি বিজেপি সাংসদও। বরং তিনি পাল্টা তৃণমূলের বিরুদ্ধে সরকারি জমি দখলের অভিযোগ করেছেন। তাঁর কথায়, 'দখল করিনি। সরকারি জমিতে বাড়ি তৈরি হয়েছে সেখানে কমিউনিটি সেন্টার বানানো হবে বলে, সেখানে মহিলাদের ট্রেনিং দেওয়া হবে।' বিজেপি সাংসদের সংযোজন, 'তৃণমূলের পার্টি অফিসও তো আছে সরকারি জমির উপর।'

    প্রসঙ্গত, তৃণমূলে যোগ দিয়েই গঙ্গাপ্রসাদ শর্মা বাংলায় বিজেপির খারাপ ফলের জন্যে দায়ী করেছিলেন কৈলাস বিজয়বর্গীকে। গঙ্গাপ্রসাদের যুক্তি, ভোটের সময় বিজেপিতে অসহায় ছিলেন খোদ রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ। তাঁর নিশানায় ছিল শুভেন্দু অধিকারীও। বিরোধী দলনেতার পদে মনোজ টিগ্গাকে কেন বেছে নেওয়া হল না, তা নিয়েও প্রশ্ন তুলেছেন গঙ্গাপ্রসাদ।

    এদিকে প্রতিদিন পৃথক উত্তরবঙ্গের দাবি নিয়ে সরব থাকলেও এদিন জন বার্লার গলায় ছিল উল্টো সুর! দার্জিলিংয়ে রাজভবন থেকে বেড়িয়ে তিনি বলেন, "আজ এনিয়ে কোন কথাই হয়নি। আজ কিছু বলব না। যা বলার দিল্লির কেন্দ্রীয় নেতৃত্বের কাছে বলব।" তাহলে কি দলের চাপে নিজের অবস্থান থেকে সরে এলেন? বার্লার জবাব, "আজ এখানে কিছু বলব না। দিল্লিকেই যা জানানোর জানাব। অন্যদিন বলব।" সূত্রের খবর, দলের কেন্দ্রীয় নেতৃত্বও কড়া বার্তা দিয়েছেন জন বার্লাকে। রাজ্য নেতৃত্বও বার্লার দাবিকে সিলমোহর না দিয়ে 'ব্যক্তিগত' বলে প্রথম দিন থেকেই জানিয়েছিল। যদিও বার্লাকে সমর্থন জানিয়েছেন উত্তরবঙ্গের একাধিক বিজেপি বিধায়ক। এরই মধ্যে বার্লার বিরুদ্ধে সরকারি জমি দখলের মারাত্মক অভিযোগ উঠল।

    Published by:Suman Biswas
    First published: