corona virus btn
corona virus btn
Loading

অসহায় পরিবারের বাড়িতে মন্ত্রী, পৌঁছে দিলেন ত্রানসামগ্রী, সঙ্গে আর্থিক সাহায্যও

অসহায় পরিবারের বাড়িতে মন্ত্রী, পৌঁছে দিলেন ত্রানসামগ্রী, সঙ্গে আর্থিক সাহায্যও

প্রয়োজনীয় রসদ তুলে দিয়েছেন। ফোন এলেই সংকটে থাকা মানুষদের পাশে দাঁড়াচ্ছেন।

  • Share this:

#শিলিগুড়ি: লকডাউনের সময়ে প্রতিনিয়ত নিজেকে ব্যস্ত রাখছেন রাজ্যের পর্যটনমন্ত্রী গৌতম দেব। উত্তরের করোনা পরিস্থিতির ওপর সর্বদাই নজর রাখছেন। করোনা পজিটিভ রোগীদের চিকিৎসা কীভাবে চলছে? কেমন আছেন? তার খোঁজখবর রাখার পাশাপাশি কোভিড স্পেশাল হাসপাতাল, সাস্পেক্টেড কোভিড হাসপাতাল থেকে উত্তরবঙ্গ মেডিকেলের চিকিৎসা ব্যবস্থা নিয়েও আপডেট থাকছেন। ছুটে যাচ্ছেন মেডিকেলে। হাসপাতাল সুপারের হাতে তুলে দিচ্ছেন করোনা প্রতিরোধক মাস্ক, পিপিই, ক্যাপস, গ্লাভস থেকে হ্যাণ্ড স্যানিটাইজার। বিভিন্ন সংগঠন তাঁর হাতেই তুলে দিচ্ছেন এই ধরনের করোনা প্রতিরোধক কিটস। আবার কখনও রেশন ব্যবস্থার খোঁজ নিতে ছুটছেন এক ওয়ার্ড থেকে অন্য ওয়ার্ডে।

প্রতিদিনই সকাল ১১ টা নাগাদ বাড়ি থেকে বের হয়ে অসহায়দের হাতে তুলে দিচ্ছেন ত্রান সামগ্রী। নিজের বিধানসভা এলাকার দিকেও সমান নজর তাঁর। নিজের হাতে দিন মজুর পরিবারদের হাতে খাদ্য সামগ্রী তুলে দিয়ে এসছেন। এলাকার মানসিক ও শারিরীক প্রতিবন্ধীদের পাশেও দাঁড়িয়েছেন। প্রয়োজনীয় রসদ তুলে দিয়েছেন। ফোন এলেই সংকটে থাকা মানুষদের পাশে দাঁড়াচ্ছেন। আজ এমনই এক অসহায় পরিবারের বাড়িতে পৌঁছে যান মন্ত্রী।

শিলিগুড়ির ৩৩ নং ওয়ার্ডের বাসিন্দা মালবিকা গুহ। লকডাউনের জেরে প্রবল সংকটে কাটছে তাঁর সংসার। স্বামী অসুস্থ। কাজ নেই। মালবিকাদেবী নিজের হাতেই সংসার সামলান। কিন্তু লকডাউনে এই মূহূর্তে কর্মহীনা তিনি। স্বামী আর এক সন্তানকে নিয়ে সংসার সামলানো কার্যত দায় হয়ে পড়েছে। খবর পেয়ে আজ দুপুরে তাঁর বাড়িতে পৌঁছন পর্যটনমন্ত্রী। মালবিকাদেবীর হাতে তুলে দেন রেশন সামগ্রী। চাল, ডাল, তেল, লবন, সোয়াবিন, আলু সহ নিত্য প্রয়োজনীয় জিনিস সামগ্রী। সঙ্গে ব্যক্তিগতভাবে সংসার চালানোর মতো খরচ বাবদ কিছু অর্থও তুলে দেন মালবিকাদেবীর হাতে। মন্ত্রী জানান, অসহায় পরিবারের পাশে থাকার সামান্য প্রয়াস মাত্র। এর আগেও লকডাউনের সময়েও একাধীক দুঃস্থ পরিবারের পাশে দাঁড়িয়েছেন মন্ত্রী।

Partha Pratim Sarkar

First published: April 29, 2020, 6:27 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर