corona virus btn
corona virus btn
Loading

সোমবার থেকে ফের চালু হচ্ছে বিমান পরিষেবা, শুরু হয়ে গিয়েছে টিকিট বুকিং

সোমবার থেকে ফের চালু হচ্ছে বিমান পরিষেবা, শুরু হয়ে গিয়েছে টিকিট বুকিং

বিমানবন্দরে ওঠা নামার সময়ে প্রতিটি যাত্রীর থার্মাল চেকিং করা হবে। বিমানবন্দরে থাকবেন স্বাস্থ্য দফতরের কর্মীরা। দূরত্ব বজায় রেখেই চলবে থার্মাল চেক আপ।

  • Share this:

#বাগডোগরা: ফের চালু হচ্ছে বিমান পরিষেবা। করোনা আবহের মাঝেই বাগডোগরা বিমানবন্দর থেকে উড়ান পরিষেবা চালু হচ্ছে। লকডাউনের জেরে দীর্ঘ দিন বন্ধ ছিল যাত্রীবাহী বিমান পরিষেবা। কেন্দ্র আপাতত ডোমেস্টিক বিমান পরিষেবা চালু করার নির্দেশিকা জারি করেছে। সেইমতো দেশের অন্য প্রান্তের মতো বাগডোগরাতেও পরিষেবা চালু হচ্ছে।

আগামী সোমবার অর্থাৎ ২৫ মে থেকে বিমান ওঠা নামা শুরু হবে। বাগডোগরা থেকে প্রতিদিনই বিমান উড়বে কলকাতা, বেঙ্গালুরু, দিল্লির আকাশে। তেমনি চেন্নাই, মুম্বাইয়ের সঙ্গেও বাগডোগরার আকাশ পথে যোগাযোগ শুরু হচ্ছে। বাগডোগরা বিমানবন্দর কর্তৃপক্ষ সূত্রে জানা গিয়েছে আপাতত ২৮ জুন পর্যন্ত চলবে বিমান। অর্থাৎ ৩৫ দিন জারি থাকবে বিমান পরিষেবা। প্রতিদিন গড়ে ১৫টি বিমান ওঠা নামা করবে। আগের তুলনায় সংখ্যাটা অনেক কমেছে। আগে বাগডোগরায় প্রতিদিন ৪০ জোড়া বিমান চলাচল করতো। কিন্তু লকডাউনের মাঝে কিছু উড়ান সংস্থা পরিষেবা চালু করেছে। তাই সংখ্যাটা কমেছে। প্রথম দফায় ৫টি বিমান সংস্থা উড়ান পরিষেবা চালু করেছে। ইতিমধ্যেই উড়ানের টিকিট বিক্রিও শুরু হয়েছে।

সূত্রের খবর প্রায় ৪০ থেকে ৪৫ শতাংশ টিকিট বিক্রি হয়েছে। বাগডোগরা বিমানবন্দরেও প্রস্তুতি সম্পন্ন করা হয়েছে। দীর্ঘদিন  বন্ধ ছিল বিমানবন্দর। কেন্দ্রের নির্দেশ মতোই ফের খুলছে বিমানবন্দর। কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রকের নির্দেশিকা মেনেই বিমান ওঠা নামা করবে বলে বিমানবন্দর কর্তৃপক্ষ সূত্রে জানা গিয়েছে। যাত্রী বহনের ক্ষেত্রেও কেন্দ্রের নির্দেশিকা মেনে চলা হবে। প্রত্যেক উড়ান যাত্রীকেই মাস্ক পড়া বাধ্যতামূলক। সেইসঙ্গে হ্যাণ্ড স্যানিটাইজার ব্যবহার আবশ্যিক। পারস্পরিক দূর‍ত্ব বজায় রেখে চলতে হবে যাত্রীদের।

বিমানবন্দরে ওঠা নামার সময়ে প্রতিটি যাত্রীর থার্মাল চেকিং করা হবে। বিমানবন্দরে থাকবেন স্বাস্থ্য দফতরের কর্মীরা। দূরত্ব বজায় রেখেই চলবে থার্মাল চেক আপ। সেইসঙ্গে প্রতিটি যাত্রীর মোবাইল নং এবং ই মেইল জমা করা বাধ্যতামূলক। প্রথম দফায় যারা মূলত বাইরে আটকে রয়েছে, তারা ঘরে ফিরে আসতে চায়। মূলত সেইসব যাত্রীরাই টিকিট কেটেছে।

Published by: Dolon Chattopadhyay
First published: May 23, 2020, 4:53 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर