খাসি ৭০০ টাকা! আকাশ ছোঁয়া দাম বাড়বে মাছেরও! করোনা আতঙ্কে পুড়ছে বাজার

খাসি ৭০০ টাকা! আকাশ ছোঁয়া দাম বাড়বে মাছেরও! করোনা আতঙ্কে পুড়ছে বাজার
  • Share this:

Sebak DebSarma

#মালদহ: করোনা ভাইরাসের আতঙ্কের জেরে বদলে গিয়েছে মালদহের রবিবাসরীয় বাজারের ছবি। ক্রেতা না মেলায় কাযতঃ মাছি তাড়াচ্ছেন মুরগীর ব্যবসায়ীরা। আর চড়া দামে বিকোচ্ছে খাসি ও মাঠার মাংস। আগুন দাম মাছ বাজারেও। দোল এবং হোলিতে বাজার কোথায় পৌঁছবে তাই এখন জোড় চর্চার বিষয়।

একদিকে মুরগীর মাংসের বাজার তলানিতে। অন্যদিকে নাগালের বাইরে চলে গিয়েছে খাসি,পাঠার মাংস। বাঙালীর মাছ-ভাত খাবার স্বাদে অদৃশ্য থাবা বসিয়েছে করোনা ভাইরাসের আতঙ্ক। রবিবাসরীয় বাজারে এমনই ছবি ধরা পড়ল মালদহে। সাধারণ ভাবে নিম্নবিত্ত থেকে উচ্চবিত্ত সকলেরই অন্যতম পছন্দ মুরগীর মাংস। সুস্বাদু, পুষ্টিকর আর দামও কম হওয়ায় বাঙালির মেনুতে মুরগীর মাংসের কদর চিরকালই। কিন্তু, সেই মুরগীই নাকি করোনার অন্যতম বাহক। এমনই আতঙ্কে মালদহে মুরগীর মাংস খাওয়া কার্যতঃ বন্ধ করে দিয়েছেন বেশীরভাগ মানুষ। দাম অর্ধেকে নেমে গেলেও রবিবারেও মুরগীর বাজার খাঁ খাঁ করছে। এর সবচেয়ে বেশী প্রভাব পড়ছে মাছের বাজারে।

কয়েক দিনের মধ্যেই চাহিদা প্রায় দ্বিগুন হয়ে যাওয়ায় প্রতিদিনই লাফিয়ে লাপিয়ে বাড়ছে মাছের দাম। ইতিমধ্যেই দাম নাগালের বাইরে চলে গিয়েছে। পাইকারি বাজারে মাছের দাম বেড়েছে কেজি প্রতি গড়ে ৬০ থেকে ৮০ টাকা। আর খোলা বাজারে এই দাম বেড়েছে ৮০ থেকে ১০০ টাকা পর্যন্ত। এরফলে সবচেয়ে সমস্যায় পড়ছেন ক্রেতারা। যদিও পাইকারি ব্যবসায়ীরা এই বাড়তি দামেও লাভের মুখই দেখছেন।

মাছ বাজারের পাশাপাশি একই অবস্থা খাসি ও পাঁঠার মাংসের বাজারে। দিন দিন দাম বাড়ছে। আগামী উৎসবে দাম কোথায় ঠেকবে তা নিয়ে কপালে ভাঁজ ক্রেতার। আর বিক্রেতারাও দাবি করছেন, চাহিদা অনুযায়ী যোগান না থাকাতেই দাম বাড়াতে হচ্ছে। মালদায় দুই মাস আগেও খাসি বা পাঁঠার মাংসের দাম ছিল ৫৫০ থেকে ৬০০ টাকা কেজি। মাস খানেক আগেই কেজি প্রতি ৫০ টাকা দাম বেড়েছিল। আর রবিবারের বাজারে মাংসের দাম ৭০০ টাকা কেজি। যোগান না  মিললে দোল আর হোলিতে দাম আরও বাড়তে পারে বলে আশঙ্কার কথা শুনিয়েছেন বিক্রেতারা।

First published: March 8, 2020, 5:54 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर