Home /News /north-bengal /
West Bengal News: ধূপগুড়িতে মাঝরাতে বাড়িতে আগুন, পুড়ছে পোষ্য! বাড়ির মালিক যা করলেন...

West Bengal News: ধূপগুড়িতে মাঝরাতে বাড়িতে আগুন, পুড়ছে পোষ্য! বাড়ির মালিক যা করলেন...

ধূপগুড়িতে মারাত্মক ঘটনা

ধূপগুড়িতে মারাত্মক ঘটনা

West Bengal News: গভীর রাতে বাড়িতে লাগলো আগুন, আগুনে ভস্মীভূত হল দুটি গবাদি পশু।

  • Share this:

    #কলকাতা: গভীর রাতে বাড়িতে লাগলো আগুন, আগুনে ভস্মীভূত হল দুটি গবাদিপশু। আর আগুন নেভাতে গিয়ে অগ্নিদগ্ধ হলেন বাড়ির মালিক, চাঞ্চল্য ছড়ালো ধূপগুড়ির শালবাড়ি এলাকায়। অগ্নিদগ্ধ ব্যক্তি ভর্তি ধূপগুড়ি হাসপাতালে।

    বৃহস্পতিবার গভীর রাতে ঘটনাটি ঘটেছে ধূপগুড়ি ব্লকের গাদং ১ গ্রাম পঞ্চায়েতের অন্তর্গত প্রত্যন্ত পূর্ব ডাঙ্গা পাড়া এলাকায়। জানা গেছে, পূর্ব ডাঙ্গা পাড়া এলাকার বাসিন্দা পতিতমন্ডল প্রতিদিনের মতো গোয়াল ঘরে গরু রেখে মশা তাড়ানোর জন্য ধোয়া দেন গোয়াল ঘরে। তার পর তিনি ঘুমোতে চলে যান গভীর রাতে  দেখেন গোয়াল ঘরে আগুন লেগেছে।  গোয়াল ঘরে থাকা গরুগুলোকে বাঁচানোর চেষ্টা করেন। নিচে আগুন নেভাতে গিয়ে অগ্নিদগ্ধ হন বাড়ির মালিক পতিত মণ্ডল। এদিকে চিৎকার চেঁচামেচি শুনে প্রতিবেশীরা ছুটে আসেন।  গোয়ালঘরে শুকনো বাঁশ খড়ি, কাঠ এবং পাটখড়ি থাকার কারণে খুব দ্রুতই আগুন ছড়িয়ে পড়ে।

    আরও পড়ুন: দুই যৌনকর্মীর ফাঁদে পা, কলকাতার নিষিদ্ধপল্লিতে গিয়ে ব্যবসায়ীর মারাত্মক পরিণতি!

    যার ফলে মুহূর্তের মধ্যেই দাউদাউ করে আগুন জ্বলতে থাকে। এদিকে খবর পেয়ে ধূপগুড়ি দমকল বাহিনীর কর্মীরা একটি ইঞ্জিন ঘটনাস্থলে ছুটে আসে। তবে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনার পূর্বেই গোয়াল ঘরে থাকা দুটি গরু অগ্নিদগ্ধ হয়ে মারা যায় । ক্ষতিগ্রস্ত হয় গোয়ালঘরটি। গরুগুলোকে বাঁচাতে গিয়ে আগুনের কারণে জখম হন পতিত মন্ডল । বর্তমানে তিনি ধূপগুড়ি গ্ৰামীণ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় রয়েছেন। শুক্রবার সকালে পাড়া প্রতিবেশীরা ভিড় জমায়। প্রাথভাবে অনুমান গরুগুলোকে যাতে মশা না ধরে সেকারণে মশা মারার ধূপকাঠি জ্বালিয়ে রেখেছিলেন পতিত বাবু। সম্ভবত সেই ধূপকাঠি থেকেই আগুন লেগে যায় বলে অনুমান।

    আরও পড়ুন: তিন মাস বাড়িভাড়া দেয়নি, অবশেষে ঘরের মধ্যে মা-ছেলেকে পাওয়া গেল যে অবস্থায়...

    হরিলাল মণ্ডল জানান, ''আমার ছোটভাই ঘুরতে গিয়েছিল বাড়ি ফেরার পর রাত একটা নাগাদ দেখতে পায় ঘরের ভেতরে আগুন জ্বলছে। সে  চিৎকার-চেঁচামেচি করলে বাড়ির সকলে জেগে যায় এবং আমার বড় ভাই সেই সময় আগুন নেভানোর চেষ্টা করে। যে  ঘরে আগুন লেগেছিল সেই ঘরে ছিল আমাদের চারটি গরু। দুটি বাছুর  বেরিয়ে গেলও আর দুটি বড় গরু কে বের করা যায়নি। সেই দুটি গরু মারা গিয়েছে। আগুন নিভাতে গিয়ে  আমার বড় ভাই আহত হয় এরপর তাকে ধূপগুড়ি গ্রামীণ হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়  সেখানেই তার চিকিৎসা চলছে। আগুন লাগার পর আমরা খবর দেই  ধূপগুড়ি দমকল বাহিনীকে।দমকল বাহিনী  পৌঁছানোর আগেই আমরা অনেকটাই আগুন নিভিয়ে ফেলি।''

    ----শেখ রকি চৌধুরী

    Published by:Suman Biswas
    First published:

    Tags: West Bengal news

    পরবর্তী খবর