স্পেশ্যাল ট্রেনে এল শিলিগুড়িতে, ঘরে ফিরলেন উত্তরবঙ্গের ৭৬ জন যাত্রী, অসমে ফিরলেন ১২৬ জন

ক্রমেই বাড়ছিল দুশ্চিন্তা, উৎকণ্ঠা। অবশেষে এল স্বস্তি। আজ নিউ দিল্লি এবং ডিব্রুগড়ের মধ্যে কোভিড স্পেশ্যাল এসি ট্রেন চালানো হয়।

ক্রমেই বাড়ছিল দুশ্চিন্তা, উৎকণ্ঠা। অবশেষে এল স্বস্তি। আজ নিউ দিল্লি এবং ডিব্রুগড়ের মধ্যে কোভিড স্পেশ্যাল এসি ট্রেন চালানো হয়।

  • Share this:

    Partha Sarkar

    #শিলিগুড়ি: অবশেষে ফিরলেন বাড়িতে। ঘরে ফেরার আনন্দ। বহুদিন দেখা নেই পরিবারের সঙ্গে। সুযোগও ছিল না। করোনা মোকাবিলায় দেশজুড়ে চলছে লকডাউন। আটকে পড়েছিলেন দেশের বিভিন্ন প্রান্তে। ওদের কেউ উচ্চ শিক্ষায় গিয়েছিলেন বাইরে। কেউ বা নার্সিং ট্রেনিংয়ে। আবার অনেকেই চিকিৎসা করাতে গিয়েছিলেন দিল্লিতে। লকডাউন নেমে আসায় আটকে পড়েন বিভিন্ন রাজ্যে। একদিকে করোনার আতঙ্ক। অন্যদিকে বন্ধ হয়ে যায় যোগাযোগ ব্যবস্থা। পরিবারের লোকেরাও চিন্তায় পড়ে যান। ঘন ঘন মোবাইল ফোনে চলত ভিডিও কলিং।

    ক্রমেই বাড়ছিল দুশ্চিন্তা, উৎকণ্ঠা। অবশেষে এল স্বস্তি। আজ নিউ দিল্লি এবং ডিব্রুগড়ের মধ্যে কোভিড স্পেশ্যাল এসি ট্রেন চালানো হয়। ট্রেনের খবর জানতে পেরেই অন লাইনে টিকিট কেটে নেন অনেকে। দেশের বিভিন্ন প্রান্তে আটকে থাকা উত্তর-পূর্ব ভারতের বাসিন্দারা ফিরলেন নিজের ঘরে। দার্জিলিংয়ের বিজনবাড়ির বাসিন্দা শ্বেতা গুপ্তা হরিয়াণায় এক সরকারী দফতরের কর্মী। লকডাউনে আটকে পড়েছিলেন। আজ ফিরতে পারায় ভীষণ খুশি।

    তেমনি স্ত্রীর চিকিৎসার জন্যে দিল্লি গিয়েছিলেন ডুয়ার্সের বিন্নাগুড়ির বাসিন্দা অনীত শর্মা। ২৫ মার্চ হাসপাতাল থেকে ছুটি হয়ে গিয়েছিল। কিন্তু আটকে পড়েন। আজ ফিরলেন স্পেশাল ট্রেনে। তেমনি শিলিগুড়িতে আত্মীয়র বাড়িতে বেড়াতে এসে বা ঘুরতে এসে আটকে পড়েন অনেকেই। আবার কেউ এসেছিলেন চিকিৎসা করাতে। লকডাউনের জেরে ফিরতে পারেননি। আজ ফিরছেন অসমে। এদিন স্বাস্থ্য মন্ত্রকের নির্দেশ মেনেই এনজেপি স্টেশন স্যানিটাইজড করা হয়। প্রতিটি যাত্রীর লাগেজ থেকে শুরু করে অন্যান্য সমস্ত সামগ্রী স্যানিটাইজড করা হয়।

    আর যাঁরা উত্তরবঙ্গে ফিরেছেন তাঁদের থার্মাল চেকিং করা হয়। এদিন এনজেপিতে নামেন ৭৬ জন যাত্রী। তাঁদের ১৪ দিনের হোম কোয়ারেন্টাইনে থাকার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে স্বাস্থ্য দফতরের পক্ষ থেকে। ৭৬ জনের মধ্যে ৪২ জনই দার্জিলিং জেলার বাসিন্দা। জিটিএ বিশেষ বাসের ব্যবস্থা করে। সেই বাসে চেপেই ঘরে ফিরলেন ওঁরা। এদিন শিলিগুড়ি থেকে ১২৬ জন যাত্রী ঘরে ফিরছেন অসমে। একেবারে সামাজিক দূরত্ব মেনেই যাত্রীরা ট্রেনে নামা ওঠা করেন।

    Published by:Simli Raha
    First published: