উত্তরবঙ্গ

corona virus btn
corona virus btn
Loading

শ্বশুরবাড়ির সম্পত্তি হাতিয়ে নিতেই জামাইয়ের হাতে শ্বশুর খুন! অভিযোগ...

শ্বশুরবাড়ির সম্পত্তি হাতিয়ে নিতেই জামাইয়ের হাতে শ্বশুর খুন! অভিযোগ...

খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পৌঁছেছে রায়গঞ্জ থানার পুলিশ। পুলিশ খুনের ঘটনায় দু’জনকে আটক করেছে।

  • Share this:

#রায়গঞ্জ: শ্বশুরবাড়ির সম্পত্তি হাতিয়ে নিতে জামাইয়ের হাতে খুন হলেন শ্বশুর । ঘটিনাটি ঘটেছে উত্তর দিনাজপুর জেলার রায়গঞ্জ থানার বারোদূয়ারী সরোজ কলোনীতে। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পৌঁছেছে রায়গঞ্জ থানার পুলিশ। পুলিশ খুনের ঘটনায় দু’জনকে আটক করেছে।দেহ ময়নাতদন্তের জন্য রায়গঞ্জ হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে৷

রায়গঞ্জ থানার সরোজ কলোনীর বাসিন্দা হারাধন দে সরকারের মেয়ে বিজয়া রানী ঘোষের স্বামী সঞ্জীব ঘোষ দীর্ঘদিন যাবদ স্বশুরবাড়ির বসতবাড়ি দু’কাঠা জমি হাতিয়ে নেওয়ার চেষ্টা করেছিলেন। বসতবাড়ি বিক্রি করলে তারা পথে বসবে। এই দাবিতে বসতবাড়ি বিক্রি করতে রাজি হননি হারাধনবাবু। জমি টাকা নিতে না পারায় বাড়ির যে কয়েকটি ছাগল ছিল সেগুলো নিয়ে যায় সঞ্জীব। সোমবার হারাধনবাবু গরু চড়াতে মাঠে গিয়েছিলেন। সেই সময় আচমকা বাড়িতে হানা দেয় সঞ্জীব। তার সঙ্গে আসেন সঞ্জীবের বাবা সহিন্দর ঘোষ। মাঠে হারাধনবাবুকে একা পেয়ে কাঠের বাটাম দিয়ে বেধরক মারধোর করেন। ঘটনাস্থলেই হারাধনবাবুর মৃত্যু হয়। মৃত্যুর খবর পেয়ে বাড়িতে ছুটে আসেন হারাধনবাবুর ছোট মেয়ে জয়া ঠাকুর। রক্তাক্ত অবস্থায় হারাধনবাবুকে মাঠে দেখতে পেয়ে চিৎকার চেচামেচি শুরু করেন তিনি। চেচামেচি শুনে প্রতিবেশীরা ছুটে আসেন।খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পৌঁছন রায়গঞ্জ থানার পুলিশ।

পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে মেয়ে বিজয়াদেবী এবং তার স্বামী সঞ্জীবকে আটক করেছে। অভিযুক্ত সহিন্দর ঘোষ পলাতক। পুলিশ দেহটি উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য রায়গঞ্জ হাসপাতাল মর্গে পঠিয়েছে। পুলিশ ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে। মৃতার স্ত্রী মায়া দে সরকার জানিয়েছেন, আচমকা জামাই বাড়িতে আসে। তার সঙ্গে ছিল জামাই এর বাবা। পরবর্তীতে স্বামীর রক্তাক্ত দেহ পড়ে থাকতে দেখেন তিনি। এই ঘটনার পর তারা দুজনই বাড়ি ছেড়ে চলে যায়। মেয়ে সহ তিনজনে মিলে স্বামীকে হত্যা করেছে। এমনই অভিযোগ৷

Published by: Pooja Basu
First published: October 20, 2020, 8:39 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर