Home /News /north-bengal /
Bizzare: শ্মশান যাত্রায় এ কী কাণ্ড! চলছে গান, বাজছে বাজনা, মৃতদেহ সামনে উদ্দাম নৃত্য সকলের

Bizzare: শ্মশান যাত্রায় এ কী কাণ্ড! চলছে গান, বাজছে বাজনা, মৃতদেহ সামনে উদ্দাম নৃত্য সকলের

নিজস্ব চিত্র

নিজস্ব চিত্র

Bizzare: কিন্তু জলপাইগুড়ি জেলার রাজগঞ্জে যে শেষ যাত্রার ছবি দেখা গেল, তা দেখে অনেকেই অবাক হয়ে যাচ্ছেন। বলছেন, এ আবার কী!

  • Share this:

    #রাজগঞ্জ: চারজনের কাঁধে চেপে শেষ যাত্রায় চলেছেন এক বৃদ্ধ। সেই শেষ যাত্রার ছবিটা কেমন হওয়া উচিত! শোকাচ্ছন্ন, অশ্রু ভেজা! কিন্তু জলপাইগুড়ি জেলার রাজগঞ্জে যে শেষ যাত্রার ছবি দেখা গেল, তা দেখে অনেকেই অবাক হয়ে যাচ্ছেন। বলছেন, এ আবার কী! কিন্তু আত্মীয়, বন্ধু প্রতিবেশীরা বলছেন, প্রয়াত মানুষটি শেষ বয়সে শেষকৃত্যের এমনই এক যাত্রার কথা বলে গিয়েছেন, বলেছেন, শেষ যাত্রা যেন এমনই হয়। তাই এই আয়োজন! কী আয়োজন করেছেন তাঁরা!

    আরও পড়ুন -'লড়াই করুন', স্বামী হাত কেটেছিল, হাসপাতাল থেকে বেরিয়ে তবু লড়াইয়ে আত্মবিশ্বাসী রেণু

    অভিনব ছবি ধরা পড়ল জলপাইগুড়ি জেলার রাজগঞ্জে। অন্তিম যাত্রার শুরুতে বাজছে ব্যান্ড এবং শেষে রয়েছে ডিজের গাড়ি। এর মাঝে চার কাঁধে হেলেদুলে শ্মশানে যাচ্ছে মরদেহ। তাঁর পেছনে নাচতে নাচতে এগিয়ে চলেছেন স্বজন ও পাড়া পড়শিরা। রাজগঞ্জের পানিকাউরি অঞ্চলের দুবরাগছ গ্রামের স্থানীয় বাসিন্দা সুকুমার সরকারের মা মারা গিয়েছেন ১১৩ বছর বয়সে। পরিবার সূত্রে জানা গেল, ১১৩ বছরের ওই বৃদ্ধার শেষ ইচ্ছেই ছিল এমন অর্থাৎ তাঁর শেষযাত্রায় কেউ যেন মনখারাপ না করে। সকলেই যেন আনন্দ করে তাঁর দেহ শ্মশানে নিয়ে যায়।

    আরও পড়ুন: ২৬ জুন পর্যন্ত বাড়ছে গরমের ছুটি! নির্দেশিকা জারি করল স্কুল শিক্ষা দফতর

    তাই এই অভিনব আয়োজন করেছেন বাড়ির লোকেরা। পিন্টু সরকার জানান, তাদের জেঠিমা মালতি সরকার ১১৩ বছর হেসে খেলে জীবন কাটিয়ে শেষ বয়সের স্বাভাবিক নিয়মেই মারা গিয়েছেন, তাই এই মৃত্যুতে শোকের আতিশায্য নেই। বর জীবনকে পূর্ণ মাত্রায়, হাসিমুখে যেমন উপভোগ করেছিলেন তিনি, শেষ যাত্রাকেও তেমনই ঢঙে গড়লেন বাকিরা। তা ছাড়া ওঁর ইচ্ছেরও মান রাখতে হয়। তাই এমন ব্যবস্থা। এমন অভিনব ব্যাপার চাক্ষুষ করতে ঘর ছেড়ে রাস্তায় বেরিয়ে আসেন মানুষ।

    রকি চৌধুরী

    Published by:Uddalak B
    First published:

    Tags: Bizzare

    পরবর্তী খবর