উত্তরবঙ্গ

corona virus btn
corona virus btn
Loading

অতিবৃষ্টির ফলে জল জমে জলমগ্ন রায়গঞ্জ পৌরসভার কিছু অঞ্চল, নিজের বাড়ি ছেড়ে ভাড়া বাড়িতে থাকছেন মানুষজন

অতিবৃষ্টির ফলে জল জমে জলমগ্ন রায়গঞ্জ পৌরসভার কিছু অঞ্চল, নিজের বাড়ি ছেড়ে ভাড়া বাড়িতে থাকছেন মানুষজন

পৌরসভা তাদের কোন রকম খাওয়া দিচ্ছেন না।ফলে তারা চরম সমস্যার মধ্যে আছেন।

  • Share this:

#রায়গঞ্জ : বৃষ্টির জলে জলবন্দী রায়গঞ্জ পৌরসভার ২২ নম্বর ওয়ার্ড।জলবন্দী ২৫০ টি পরিবারকে স্থানীয় হাইস্কুল এবং প্রাথমিক বিদ্যালয়ে এনে রাখা হয়েছে।কেউ আবার জলের মধ্যে বাড়িতেই থাকছেন।এই রকম দুর্বিষহ অবস্থার মধ্যে দিন কাটাচ্ছেন ২২ নম্বর ওয়ার্ডের রাসবিহারী মার্কেট, রাজীব কলোনী এবং নেতাজী কলোনীর বাসিন্দারা।

রায়গঞ্জ পৌরসভার ২২ নম্বর ওয়ার্ড। কুলিক নদীর ধারেই এই এলাকা।মূলত দিন আনা দিন খাওয়া পরিবারের সংখ্যা বেশী।রায়গঞ্জ শহরের জল এই এলাকায় জমা হত।সেচ দপ্তর এই ২২ নম্বর ওয়ার্ডে একটি স্লুইজগেটের ব্যবস্থা করেছিল।শহরের জল এখানে জমা হলেও নদীর জল নামলে স্লুইজ গেট খুলে দিলেই এলাকার জল নেমে যেত।কিন্ত বছর কয়েক আগে সেই স্লুইজ গেটটি নষ্ট হয়ে যায়।নতুন করে স্লুইজ গেটের কাজ হওয়ায় এলাকার জল নদীতে নামতে পারছে না। ফলে এই বৃষ্টির জলে চরম দুর্ভোগের শিকার এলাকার বাসিন্দারা।স্থানীয় কাউন্সিলর তপন দাস জানিয়েছেন,বৃষ্টির জল বার হতে না পারার জন্য বাসিন্দারা এই সমস্যার সন্মুখীন হয়েছেন।জলবন্দী মানুষদের হাইস্কুল, প্রাথমিক বিদ্যালয়ে সরিয়ে নেওয়া হয়েছে।পৌরসভার পক্ষ থেকে ত্রান শিবিরে আলোর ব্যবস্থা, পানীয় জলের গাড়ি,পরিষ্কার- পরিচ্ছন্ন রাখার ব্যবস্থা করা হয়েছে।

ত্রাণশিবিরে থাকা বাসিন্দারা জানিয়েছেন, পৌরসভার পক্ষ থেকে আলো,জল ছাড়া অন্য কিছু সাহায্য করে নি।নিজেরাই খাবার যোগাড় করছেন।নির্মলা সরকার নামে এক গৃহবধূ  জানান,জলের পরিমান বেশী থাকায় বাড়িতে থাকতে পারছেন না। তাই অন্য এলাকায় বাড়ি ভাড়া নিয়ে আছেন।প্রশান্ত শীল নামে বাসিন্দা জানালেন যে  দীর্ঘ দশ দিন যাবদ ত্রান শিবিরে আছেন।নিজেরাই রান্না করে খাচ্ছেন।পৌরসভা তাদের কোন রকম খাওয়া দিচ্ছেন না।ফলে তারা চরম সমস্যার মধ্যে  আছেন।

Uttam Paul

Published by: Debalina Datta
First published: October 5, 2020, 6:49 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर