Home /News /north-bengal /
Landslides in Darjeeling: ফের ধস নামল দার্জিলিংয়ে! আটকে বহু পর্যটক, ট্যুর অপারেটরদের চরম সাবধানবাণী...

Landslides in Darjeeling: ফের ধস নামল দার্জিলিংয়ে! আটকে বহু পর্যটক, ট্যুর অপারেটরদের চরম সাবধানবাণী...

কলকাতার অন্যতম নামী পর্যটন সংস্থা কুন্ডু ট্রাভেলস। আগামী ২৪ তারিখ তাদের ট্যুর করানোর কথা ছিল ডুয়ার্সে। কিন্তু বর্তমান পরিস্থিতিতে তারাও ঠিক করেছে ট্যুর স্থগিত করে দেবে। এছাড়া একাধিক সংস্থা সিদ্ধান্ত নিয়েছে তারা ট্যুর আপাতত করাবে না।

কলকাতার অন্যতম নামী পর্যটন সংস্থা কুন্ডু ট্রাভেলস। আগামী ২৪ তারিখ তাদের ট্যুর করানোর কথা ছিল ডুয়ার্সে। কিন্তু বর্তমান পরিস্থিতিতে তারাও ঠিক করেছে ট্যুর স্থগিত করে দেবে। এছাড়া একাধিক সংস্থা সিদ্ধান্ত নিয়েছে তারা ট্যুর আপাতত করাবে না।

Landslides in Darjeeling: পাহাড়ের বিরাট অংশজুড়ে বিপর্যস্ত জনজীবন, আটকে পড়েছেন বহু পর্যটক। তবে, আশার খবর হল, তিস্তার বন্যা পরিস্থিতির সামান্য উন্নতি হয়েছে।

  • Last Updated :
  • Share this:

#শিলিগুড়ি: এখনও বিধ্বস্ত অবস্থা পাহাড়ে। শতাধিক পর্যটক ধসের জন্যে আটকে এখনও। গতকাল রাতে বেশ কিছু জায়গায় ধস সরিয়ে রাস্তা সারাই হলেও এদিন ফের ধস নেমেছে বেশ কিছু জায়গায়। নতুন করে ধস নেমেছে দার্জিলিংয়ে! জানা গিয়েছে, দার্জিলিংয়ের মানেভঞ্জন ও লোধামার সংযোগকারী সড়কে ধস নেমেছে! বন্ধ হয়ে গিয়েছে মানেভঞ্জনের সঙ্গে লোধামা, রিমবিকের মধ্যে সড়ক যোগাযোগ।

এরই মধ্যে বিরিকধারায় পাহাড় কেটে রাস্তা তৈরী করা হচ্ছে, ধস কবলিত এলাকা পারাপার করছে আইটিবিপি জওয়ানেরা। কালিম্পং জেলা প্রশাসন এবং পর্যটন ব্যবসায়ীরা জানিয়েছেন, মঙ্গলবার কালিম্পং-লাভা সড়কে ধসের কারণে প্রায় আড়াইশো পর্যটক আটকে পড়েছিলেন। প্রায় বারো ঘণ্টা তাঁরা রাস্তাতেই আটতে ছিলেন। বুধবার সন্ধ্যার পর অবশ্য প্রশাসন জানিয়েছে, বৃষ্টি কিছুটা কমে আসায় এবং এক টানা কাজ করার ফলে কালিম্পংয়ের লাভা রোড আলগাড়া থেকে চলাচলের যোগ্য করা গিয়েছে। কিন্তু পাহাড়ের বেশ কিছু জায়গায় পরিস্থিতি এখনও মারাত্মক হয়ে রয়েছে।

প্রবল বৃষ্টি ও পাহাড়ের একাধিক জায়গায় ধসের জেরে বুধবার বন্ধ ছিল টয়ট্রেন (Toy Train) পরিষেবা। বৃহস্পতিবারও বন্ধ রাখা হয়েছে শিলিগুড়ি-দার্জিলিং টয়ট্রেন সাফারি। পাহাড়ে বিভিন্ন জায়গায় যেভাবে একের পর ধস নামছে, তাতে টয় ট্রেন চালালে যাত্রি সুরক্ষা নিয়ে প্রশ্ন উঠতে পারে বলেই তা বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

আরও পড়ুন:  ধস বিধ্বস্ত পাহাড়ে কিছুটা স্বস্তি, চালু বেশ কিছু রাস্তা! জানুন কী অবস্থা দার্জিলিং ও সিকিমের...

পাহাড়ে লাগাতার বৃষ্টির ফলে জল বেড়েছে তিস্তা সহ বিভিন্ন নদীর। আর তার জেরে জলপাইগুড়ি শহর সংলগ্ন বিস্তীর্ণ এলাকা প্লাবিত হয়ে গিয়েছে। পরিস্থিতি এমন পর্যায়ে পৌঁছেছে যে, ঘর-বাড়ি ছেড়ে নদী-বাঁধে আশ্রয় নিতে হয়েছে এলাকাবাসীদের। উদ্ধারকার্যে নামানো হয়েছে NDRF। সবমিলিয়ে, চিন্তার ভ্রুকুটি আমজনতা থেকে প্রশাসনিক কর্তাদের কপালে। এই পরিস্থিতিতে উত্তরবঙ্গের বন্যা পরিস্থিতি খতিয়ে দেখতে যাওয়ার কথা রয়েছে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের। রবিবার উত্তরবঙ্গে যাওয়ার কথা মুখ্যমন্ত্রীর। সেখানে চার দিন তিনি থাকবেন বলে খবর।

Published by:Suman Biswas
First published:

Tags: Darjeeling, Sikkim