• Home
  • »
  • News
  • »
  • north-bengal
  • »
  • মালদহে সরকারি প্রকল্পের সুবিধা নিতে 'দুয়ারে সরকার' শিবিরে মানুষের ঢল, উদ্যোগের প্রশংসা

মালদহে সরকারি প্রকল্পের সুবিধা নিতে 'দুয়ারে সরকার' শিবিরে মানুষের ঢল, উদ্যোগের প্রশংসা

অনলাইনে বিভিন্ন সরকারি প্রকল্পের সুবিধা দেওয়ার জন্য নাম নথিভুক্ত করা হয়

অনলাইনে বিভিন্ন সরকারি প্রকল্পের সুবিধা দেওয়ার জন্য নাম নথিভুক্ত করা হয়

অনলাইনে বিভিন্ন সরকারি প্রকল্পের সুবিধা দেওয়ার জন্য নাম নথিভুক্ত করা হয়

  • Share this:

#মালদহ: "দুয়ারে সরকার" কর্মসূচিতে ভালো সাড়া মালদহে। বুধবার মালদহ শহরের একাধিক ওয়ার্ডে দুয়ারে সরকার কর্মসূচির শিবির করা হয়। বিভিন্ন সরকারি কর্মসূচির সুবিধে নিতে অসংখ্য মানুষ শিবিরে ভিড় জমান। মালদহের বেলতলা এলাকায় পুরসভার ক্যাম্পের তদারকি করেন ইংরেজবাজারের বিধায়ক তথা পুরপ্রশাসক নিহার রঞ্জন ঘোষ। মালদা শহরের শান্তি ভারতী পরিষদ এলাকাতেও পুরসভা একইরকম শিবিরের আয়োজন করে।

এদিন শিবিরে বেশিরভাগ মানুষই নতুন "স্বাস্থ্য সাথী" প্রকল্পের নাম অন্তর্ভুক্তির জন্য আবেদন জানান। এছাড়া জাতিগত শংসাপত্র থেকে কন্যাশ্রী, রূপশ্রী, প্রকল্পের সুবিধা, বিধবা ভাতা ও বার্ধক্য ভাতা নিতে এবং রেশন কার্ড, ভোটার কার্ড, আধার কার্ড সংক্রান্ত নানা সমস্যা নিয়ে সাধারণ মানুষ আসেন সরকারি শিবিরে। অনলাইনে বিভিন্ন সরকারি প্রকল্পের সুবিধা দেওয়ার জন্য নাম নথিভুক্ত করা হয়। সরকারি বিভিন্ন বিভাগের আধিকারিকেরা ক্যাম্পগুলোতে উপস্থিত থেকে সরাসরি সাধারণ মানুষের সঙ্গে কথা বলেন। ক্যাম্পে হাজির ১৬ নম্বর ওয়ার্ডের বাসিন্দা তহমিনা খাতুন বলেন, মুখ্যমন্ত্রী সাধারণ মানুষের স্বাস্থ্যের কথা ভেবে যে প্রকল্প ঘোষণা করেছেন তাতে আমাদের মত গরিব পরিবারগুলো উপকৃত হবে। অনেক পরিবারেই বড় অসুখ বিসুখ হলে মোটা টাকা খরচ করে চিকিৎসা করানোর সামর্থ্য নেই। সেক্ষেত্রে "স্বাস্থ্য সাথী" প্রকল্প অত্যন্ত সহায়ক হবে। তাই পরিবারের সকলের নাম অন্তর্ভুক্ত করাতে এসেছি।

ইংরেজবাজারের বিধায়ক তথা পুরপ্রশাসক নিহার রঞ্জন ঘোষ বলেন, প্রথমে পুরসভাতে ক্যাম্প শুরু করা হয়েছিল। পরে মানুষের সুবিধার কথা ভেবে বিভিন্ন ওয়ার্ডের পৌঁছে গিয়ে শিবির আয়োজন করা হচ্ছে। এতে সাধারন মানুষ বাড়ির কাছেই প্রয়োজনীয় সরকারি সুবিধা লাভ করছেন। ফলে অনেক মানুষ শিবিরে আসছেন। প্রত্যেকেরই যাতে প্রয়োজনীয় সহায়তা করা যায় সেই চেষ্টা করা হচ্ছে।

সেবক দেবশর্মা

Published by:Ananya Chakraborty
First published: