Home /News /north-bengal /
Dooars: জিম, পার্লার খুললে পর্যটন কেন্দ্র কেন বন্ধ? ডুয়ার্সে বিক্ষোভ, বড় আন্দোলনের হুঁশিয়ারি

Dooars: জিম, পার্লার খুললে পর্যটন কেন্দ্র কেন বন্ধ? ডুয়ার্সে বিক্ষোভ, বড় আন্দোলনের হুঁশিয়ারি

ডুয়ার্সে পর্যটন কেন্দ্র খোলার দাবিতে বিক্ষোভ৷

ডুয়ার্সে পর্যটন কেন্দ্র খোলার দাবিতে বিক্ষোভ৷

পর্যটন কেন্দ্র গুলি  খোলার দাবিতে পর্যটন ব্যবসার সঙ্গে যুক্ত ১২ টি সংগঠন আন্দোলনে নামলো (Dooars)।

  • Share this:

#ডুয়ার্স: করোনা নিয়ে রাজ্য সরকারের জারি করা বিধিনিষেধে (West Bengal Covid 19 Restrictions) ছাড় দেওয়া হয়েছে৷ শর্ত সাপেক্ষে খোলার অনুমতি দেওয়া হয়েছে জিম, সেলুন, পার্লার৷   বিয়ের অনুষ্ঠানেও মানুষের কড়াকড়ি অনেকটা শিথিল হয়েছে৷ তবে এখনও পর্যটন (Tourist Centres in Bengal) কেন্দ্রগুলি খোলার  বিষয়ে কোনও সিদ্ধান্ত জানায়নি রাজ্য সরকার।

আর পর্যটন কেন্দ্রগুলি (West Bengal Tourist Spots) বন্ধ থাকায় রীতিমতো মুখ থুবড়ে পড়েছে পর্যটন ব্যবসা।যার ফলে ক্ষুব্ধ পর্যটন ব্যবসার সঙ্গে যুক্ত প্রত্যেকেই। সেই কারণেই মঙ্গলবার  গরুমারা জাতীয় উদ্যানের মূর্তি বিট অফিসের সামনে বিক্ষোভে সামিল হলেন পর্যটন ব্যবসার সঙ্গে যুক্ত থাকা ১২টি সংগঠনের প্রতিনিধিরা।যার মধ্যে রয়েছে রিসর্ট মালিকদের সংগঠন, ব্যবসায়ী সমিতি, জিপসি ওনার্স অ্যাসোসিয়েশন, গরুমারা ট্যুরিজম ওয়েলফেয়ার অ্যাসোসিয়েশন সহ আরও বেশ কয়েকটি সংগঠন।

বারোটি সংগঠনের প্রতিনিধি এই বিক্ষোভ কর্মসূচিতে অংশগ্রহণ করেন। তাঁরা দাবি তোলেন অবিলম্বে জঙ্গল খোলার বিষয়ে পদক্ষেপ নিতে হবে রাজ্য সরকারকে। বিক্ষোভকারীদের দাবি, করোনা বিধি শিথিল করে বেশ কিছু বিষয়কে ছাড় দেওয়া হয়েছে, এমন কি জিম, সেলুন, পার্লার খোলা সহ মেলা করার অনুমতি দিচ্ছে সরকার। তবে পর্যটন কেন্দ্র গুলি কেন বন্ধ থাকবে , সেই প্রশ্ন তোলেন তাঁরা৷

পর্যটন কেন্দ্রগুলি বন্ধ থাকার ফলে এই ব্যবসার সঙ্গে যুক্ত বিভিন্ন টোটো চালক, ছোট ব্যবসায়ী, ছোট দোকানদার এমনকি জিপসি চালক -কর্মচারী প্রত্যেকেরেই অর্থ উপার্জন বন্ধ হওয়ায় রীতিমতো দিশেহারা অবস্থা বলেই দাবি করেন সংগঠনের প্রতিনিধিরা।

গরুমারা ট্যুরিজম ওয়েলফেয়ার অ্যাসোসিয়েশনের সম্পাদক দেব কমল মিশ্র বলেন, 'আমরা রাজ্য সরকারের কাছে দাবি করছি দ্রুত এই জঙ্গল এবং পর্যটন কেন্দ্রগুলি খোলা হোক, এমন কি কার সাফারিও চালু করা হোক।   আদিবাসী নৃত্য করে যাঁরা সংসার চালাতেন, তাঁদেরও কষ্ট করে দিনযাপন করতে হচ্ছে। পর্যটন কেন্দ্রের পাশে থাকা ছোট ছোট দোকানদারদের ব্যবসা বন্ধের পথে। যাঁরা বিভিন্ন জায়গা থেকে ঋণ নিয়ে এই দোকান করে সংসার চালাতেন, সেগুলিও বন্ধ হয়ে যেতে বসেছে। পর্যটন কেন্দ্র বন্ধ থাকায় রিসর্টগুলিতে পর্যটক আসছেন না ।  টোটো চালকদের জীবনযাত্রা রীতিমতো থমকে গিয়েছে। তাই আমরা সরকারের কাছে দাবি করছি, দ্রুত সমস্ত পর্যটন কেন্দ্র গুলি খুলে দেওয়া হোক ।'

জিপসি  ওনার্স অ্যাসোসিয়েশনের সম্পাদক মজিদুল আলম জানান,  'ডুয়ার্সের জঙ্গল কে ঘিরে আমাদের রুটি রোজী  চলে। এখানে জিপসি  চালক, টোটো চালক, ছোট ব্যবসায়ী, রিসোর্ট মালিকরা পর্যটনের উপরেনির্ভর করে বেঁচে থাকেন। গতকাল ঘোষণার পর থেকে জিম খুলে দেওয়া হয়েছে৷ সব রকম অনুষ্ঠানের জন্য সুযোগ-সুবিধা দেয়া হয়েছে৷ সে জায়গায় আমাদের জঙ্গল সম্পূর্ণভাবে বন্ধ থাকবে কেন এটাই আমাদের প্রশ্ন।' জিপসি চালকদের দাবি, একটি গাড়িতে চারজন করে পর্যটককে নেওয়া হয়৷ ফলে শারীরিক দূরত্বও বজায় থাকে৷ দাবি পূরণ না হলে সংগঠনের সদস্যরা আরও বড় আন্দোলনের হুঁশিয়ারি দিয়েছেন৷

Rocky Chowdhury

Published by:Debamoy Ghosh
First published:

Tags: Dooars

পরবর্তী খবর