corona virus btn
corona virus btn
Loading

এসেছিলেন চিকিৎসা করাতে, আর মা’কে নিয়ে ফেরা হল না মেয়ের! পদাতিক এক্সপ্রেসে মৃত্যু

এসেছিলেন চিকিৎসা করাতে, আর মা’কে নিয়ে ফেরা হল না মেয়ের! পদাতিক এক্সপ্রেসে মৃত্যু

এদিন মায়ের মৃত্যুতে শোকস্তব্ধ মেয়ে জানান, বাবা আগেই মারা গিয়েছেন, এ বার মাকেও হারাতে হল।

  • Share this:

Sebak DebSarma

#মালদহ: চলন্ত ট্রেনে মৃত্যু হল প্রৌঢ়ার। কলকাতা থেকে পদাতিক এক্সপ্রেসে নিউ জলপাইগুড়ি যাচ্ছিলেন ওই মহিলা। রীতা শেরপা (৬২) নামে ওই মহিলা দার্জিলিংয়ের বাসিন্দা। সকালে মালদহ টাউন স্টেশন থেকে ট্রেন ছাড়ার পরেই মৃত্যুর বিষয়টি নজরে আসে সহযাত্রীদের। এরপর ট্রেন থামিয়ে দেহ নামানো হয় মালদহে। মৃত্যুর কারণ খতিয়ে দেখতে ময়নাতদন্তের জন্য দেহ পাঠানো হয়েছে মালদা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে। ঘটনায় অস্বাভাবিক মৃত্যুর মামলা রুজু করেছে রেল পুলিশ।

রেল সূত্রে জানা গিয়েছে, মৃত রীতা শেরপা এবং তাঁর মেয়ে পুনম শেরপা পদাতিক এক্সপ্রেসের এস-২ সংরক্ষিত কামরার যাত্রী ছিলেন। লকডাউনের আগেই চিকিৎসার জন্য রীতাদেবীকে কলকাতায় নিয়ে গিয়েছিলেন মেয়ে পুনম। ডাইবেটিস জনিত সমস্যায় ভুগছিলেন রীতাদেবী। কিন্তু লকডাউনে মা ও মেয়ে  কলকাতায় আটকে পড়েন।

এরপর ট্রেন যোগাযোগ শুরু হওয়ায় তাঁরা বাড়ি ফেরার পরিকল্পনা নেন। সোমবার রাতে শিয়ালদহ স্টেশনে খাওয়া দাওয়া করে নির্দিষ্ট আসনে ঘুমিয়ে ছিলেন রীতা। ভোরের দিকে ট্রেন মালদহ টাউন স্টেশনে আসে। মালদহ থেকে ট্রেন ছাড়ার পরেই রীতাদেবীকে ডাকাডাকি করতে গিয়ে মৃত্যুর বিষয়টি নজরে পরে। মালদা রেল পুলিশের ভাইসি ভাস্কর প্রধান বলেন, ট্রেনে অসুস্থ হয়ে ওই মহিলার মৃত্যু হয়। মৃতদেহ ময়নাতদন্তের পরেই সঠিক কারণ জানা যাবে। এদিন মায়ের মৃত্যুতে শোকস্তব্ধ মেয়ে জানান, বাবা আগেই  মারা গিয়েছেন, এ বার মাকেও হারাতে হল।

Published by: Simli Raha
First published: June 2, 2020, 6:46 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर