Home /News /north-bengal /
Dhupguri: 'গুণধর' ছেলের কীর্তি, সম্পত্তির লোভে জন্মদাতা মাকে বেধড়ক মারধর ধূপগুড়িতে

Dhupguri: 'গুণধর' ছেলের কীর্তি, সম্পত্তির লোভে জন্মদাতা মাকে বেধড়ক মারধর ধূপগুড়িতে

ধূপগুড়ি থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের

  • Share this:

    #ধূপগুড়ি: 'গুণধর' ছেলের কীর্তি! সম্পত্তির লোভে জন্মদাতা মাকে বেধড়ক মারধর , ধূপগুড়ি থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের। সম্পত্তি নিয়ে বিবাদের জেরে বৃদ্ধা মাকে ঘরে আটকে বেধড়ক মারধর করার অভিযোগ উঠল ছোট ছেলের বিরুদ্ধে। শুক্রবার ঘটনাটি ঘটেছে ধূপগুড়ি ব্লকের পুরনো শালবাড়ী এলাকায়। বৃদ্ধা মিলনবালা মল্লিকের অভিযোগ, ছোট ছেলে নিয়মিত সম্পত্তি নিয়ে তাঁকে চাপ দিত। এর আগেও একটি ঘর দখল করে নিয়েছে বলে অভিযোগ তুলেছেন বৃদ্ধা। অবশিষ্ট সম্পত্তিও হাতিয়ে নেওয়ার চেষ্টা করছে, দিতে অস্বীকার করায় নির্যাতন করছে।

    বৃদ্ধার অভিযোগ, সমস্ত সম্পত্তি নিজের নামে লিখে দেওয়ার জন্য বারবার তাঁকে চাপ দিতেন ছোট ছেলে রঞ্জিত মল্লিক। আর এই কারণে মাঝেমধ্যেই চলত মানসিক অত্যাচার। বৃদ্ধার চার ছেলে, তাই সম্পত্তি এখনই কারও নামে লেখার চিন্তাভাবনা করেননি বৃদ্ধা। তবে শুক্রবার আচমকাই মাকে ঘরে আটকে মারধর শুরু করে দেয় রঞ্জিত । শেষে বৃদ্ধার নাতনি গিয়ে তাঁকে উদ্ধার করে ধূপগুড়ি গ্রামীণ হাসপাতালে নিয়ে আসেন । পরবর্তীতে এই বিষয়ে লিখিত অভিযোগ দায়ের হয় ধূপগুড়ি থানায়।

    অন্যদিকে, বাড়িতে চড়াও হয়ে বৌদির উপর হামলার অভিযোগ দেওরের বিরুদ্ধে। পরপর পেটে ভোজালি, তারপর নিজের পেটে ভোজালি মেরে আত্মহত্যার চেষ্টা করে অভিযুক্ত দেওর। ঘরের মধ্যে থেকে রক্তাক্ত অবস্থায় দেওর-বৌদিকে উদ্ধার করে হাসপাতালে পাঠান স্থানীয়রা। ঘটনার সঠিক কারণ নিয়ে ধোঁয়াশা তৈরি হলেও বিবাহবহির্ভূত সম্পর্কের জেরেই বৌদির পেটে ভোজালি মেরে নিজেও আত্মহত্যার চেষ্টার অভিযোগে ওঠে  যুবককের বিরুদ্ধে। বর্তমানে দু’জন আশঙ্কাজনক অবস্থায় মালদহ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। শুক্রবার দুপুরে মালদহের ইংরেজবাজার থানার বাহান্নবিঘা গ্রামে ঘটনাটি ঘটেছে। ঘটনাকে কেন্দ্র করে এদিন তীব্র চাঞ্চল্য ছড়িয়ে পড়ে এলাকায়। স্থানীয়রা জখম দু’জনকে উদ্ধার করে মালদহ মেডিক্যালে নিয়ে আসে। তবে ঠিক কী কারণে বৌদিকে খুনের চেষ্টা তা নিয়ে ধোঁয়াশা তৈরি হয়েছে। এই বিষয়ে কোনও মন্তব্য করতে রাজি হননি অভিযুক্তের পরিবার ও আত্মীয় পরিজনেরা।

    Rocky Chowdhury

    Published by:Rukmini Mazumder
    First published:

    Tags: Dhupguri

    পরবর্তী খবর