Home /News /north-bengal /
Darjeeling : পাহাড়ে স্থায়ী রাজনৈতিক সমাধান চাই! এই দাবিতে পোস্টার গুরুংদের

Darjeeling : পাহাড়ে স্থায়ী রাজনৈতিক সমাধান চাই! এই দাবিতে পোস্টার গুরুংদের

পাহাড়ে স্থায়ী রাজনৈতিক সমাধান চাই! এই দাবিতে পোস্টার গুরুংদের

পাহাড়ে স্থায়ী রাজনৈতিক সমাধান চাই! এই দাবিতে পোস্টার গুরুংদের

Darjeeling : হারানো জমি ফেরত পেতেই কি নয়া কৌশল গুরুংয়ের? 

  • Share this:

#দার্জিলিং: জিটিএর নির্বাচন চাই না। পাহাড়ের স্থায়ী রাজনৈতিক সমাধান চাই। এই দাবিকে সামনে রেখেই পাহাড় জুড়ে পড়ল পোস্টার। শৈলশহর দার্জিলিং থেকে কালিম্পং সহ সব জনবহুল এলাকাই ছয়লাপ এই পোস্টারে। গোর্খা জনমুক্তি যুব মোর্চার নামে এই পোস্টার। যাকে ঘিরে নতুন করে পাহাড়ের রাজনীতি আলোচনায় উঠে এলো। মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দোপাধ্যায়ের সফরের আগে এই পোস্টার নিয়েই চাঞ্চল্য পাহাড়ে।

পাহাড়ে পোস্টার রাজনীতি নতুন কোনও বিষয় নয়। সেই সুভাষ ঘিসিংয়ের আমল থেকেই চলে আসছে এই বিষয়। যেকোনও নতুন দাবি বা যে কোনও ধরনের হুঁশিয়ারি নিয়েই পোস্টার পড়ে পাহাড়ে। দার্জিলিংয়ের চকবাজার, কালিম্পংয়ের ডম্বরচকে আজ পড়ল এই পোস্টার। পাহাড়বাসীর নজর টানতেই এই পোস্টার রাজনীতি। তবে জিটিএর নির্বাচন কেন নয়? যুব মোর্চা নেতাদের কথায়, পাহাড়বাসীর দীর্ঘদিনের দাবি পৃথক রাজ্য গোর্খাল্যাণ্ড। সেই দাবি না মিটলেও পাহাড়, তরাই এবং ডুয়ার্সের গোর্খা অধ্যুষিত এলাকা নিয়ে বৃহত্তর স্বশাসিত বোর্ড চাই। জিটিএ পাহাড়ের সমস্যা মেটাতে পারবে না।

রাজনৈতিক মহলের ধারণা, সদ্য সমাপ্ত দার্জিলিং পুরভোটে ভালো ফল করেনি মোর্চা। ২২ আসনে লড়ে জিতেছে মাত্র ৩ ওয়ার্ডে। তার আগে পাহাড়ের ৩ বিধানসভা আসনে শূন্য পেয়েছিল মোর্চা। একদিকে হামরো পার্টির উত্থান এবং অন্যদিকে পাল্লা দিয়ে অনীত থাপার ভারতীয় গোর্খা প্রজাতান্ত্রিক মোর্চার প্রাধান্য বাড়ছে পাহাড়ে।

হারানো জমি ফেরত পেতে বিমল গুরুং এবারে স্থায়ী রাজনৈতিক সমাধানের ইস্যুকে হাতিয়ার করে এগোতে চাইছেন। কেননা পাহাড়ের একটা বড় অংশের মানুষেরও এই একই দাবি। গত বছরের শেষদিকে কার্শিয়ং সফরে এসেও মুখ্যমন্ত্রী স্থায়ী রাজনৈতিক সমাধানের ইস্যুর কথা তুলে ধরেছিলেন। চলতি মাসের শেষ সপ্তাহে ফের তিনি আসছেন পাহাড়ে।

কিন্তু পাহাড়ে পুরভোটের ফল প্রকাশের দিনই মুখ্যমন্ত্রী বলেছিলেন, পাহাড়ে গনতন্ত্র ফিরেছে। এবার জিটিএর নির্বাচন করানো হবে। তার পরও তৃণমূলের জোটসঙ্গী গুরুংরা জিটিএর নির্বাচনের বিরোধিতা করায় জল্পনা বাড়ছে। কেননা অজয় এডওয়ার্ড এবং অনীত থাপারা জিটিএর নির্বাচনেরই পক্ষে। বেঁকে বসছেন গুরুং। জনপ্রিয়তা নিজের দলের দিকে টানতেই কি নয়া কৌশল গুরুংয়ের?

Published by:Swaralipi Dasgupta
First published:

Tags: Darjeeling

পরবর্তী খবর