corona virus btn
corona virus btn
Loading

শিলিগুড়ি বাজারে সারপ্রাইজ ভিজিট কেন্দ্রীয় প্রতিনিধি দল     

শিলিগুড়ি বাজারে সারপ্রাইজ ভিজিট কেন্দ্রীয় প্রতিনিধি দল     

১৫ মিনিট ধরে শনিবার সকালের বাজার পরিস্থিতি খতিয়ে দেখেন তারা

  • Share this:

#শিলিগুড়ি: শিলিগুড়িতে লকডাউন মানা হচ্ছে না। রাজ্য সরকারকে চিঠি লিখে জানাল কেন্দ্রীয় প্রতিনিধি দল। শুক্রবারের পরে, শনিবার ফের রাস্তায় নেমে পরিস্থিতি দেখলেন কেন্দ্রীয় প্রতিনিধি দলের সদস্যরা।

শুক্রবার বিকেলে শিলিগুড়ির রাস্তার হাল দেখে আশ্চর্য হয়েছেন কেন্দ্রীয় প্রতিনিধি দলের সদস্যরা। বিকেল ৫টা বেজে গেলেও শিলিগুড়ি খাল পাড় রোড, হোলসেল বাজার, নিয়ন্ত্রিত বাজার ঘুরে দেখেন তারা। বিকেলেও বহু সংখ্যক লোক রাস্তায় দেখে প্রতিনিধি দলের সদস্যরা ছবি তুলে রাখেন। তারপরে তারা পৌছন শিলিগুড়ি নিয়ন্ত্রিত বাজারে। সেখানের পরিস্থিতি দেখেন তারা। কথা বলতে শুরু করেন বিক্রেতা ও ক্রেতাদের সাথে। কিন্তু বিকেলের পরিস্থিতি আর সকালের পরিস্থিতির ফারাক কোথায় সেটা বুঝে নিতে শনিবার সকালে ফের শিলিগুড়ি নিয়ন্ত্রিত বাজারে সারপ্রাইজ ভিজিট করেন কেন্দ্রীয় প্রতিনিধি দলের সদস্যরা। কনভয় থেকে কেন্দ্রীয় প্রতিনিধি দলের প্রধান বিনীত যোশী সোজা চলে যান নিয়ন্ত্রিত বাজারে। নেমে পড়েন একটি সবজির আড়তের সামনে। নেমেই সরাসরি প্রশ্ন বাজারের অবস্থা কেমন? সকাল বেলা এসএসবি জওয়ানদের ঘেরাটোপের মধ্যে থাকা এক ব্যক্তির প্রশ্ন শুনে ঘাবড়ে যান বাজারের লোকজন। বিক্রেতা উত্তর দেন, বাজারের অবস্থা খুব খারাপ। চারদিকে স্যানিটাইজ করা হচ্ছে না। নোংরা জমে আছে। বাজার কমিটিকে বারবার জানিয়েও কোনও লাভ হচ্ছেনা। বিক্রেতার থেকে উত্তর শুনে কেন্দ্রীয় প্রতিনিধি দলের সদস্যরা গোটা বিষয়টি নোট নিয়ে নেন।

বাজারের একাধিক জায়গায় গিয়ে দেখা গেছে কাদা জমে আছে। গোটা বাজার পূতিগন্ধময়। চারদিকে দেখা যাচ্ছে নোংরা ডাঁই হয়ে পড়ে আছে। তারই মধ্যে অনেককেই দেখা গেছে মাস্ক না পড়ে ঘোরাঘুরি করতে। প্রায় ১৫ মিনিট ধরে শনিবার সকালের বাজার পরিস্থিতি খতিয়ে দেখেন তারা।

শুক্রবার রাতেই শিলিগুড়ির কেন্দ্রীয় প্রতিনিধি দলের প্রধান বিনীত যোশী চিঠি লেখেন রাজ্যের মুখ্যসচিব ও জলপাইগুড়ি ডিভিশনাল কমিশনারকে। চিঠিতে শিলিগুড়ির লকডাউন পরিস্থিতি যথাযথ নয় বলে জানানো হয়েছে। এছাড়া বেশ কয়েকজন সরকারি আধিকারিক সাথে তারা ফের কথা বলতে চান।

ABIR GHOSHAL

Published by: Ananya Chakraborty
First published: April 25, 2020, 12:07 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर