corona virus btn
corona virus btn
Loading

Corona Lockdown: শিলিগুড়ি ও লাগোয়া এলাকার দুঃস্থ, অসহায়দের পাশে ভারত সেবাশ্রম সংঘের সন্ন্যাসীরা

Corona Lockdown: শিলিগুড়ি ও লাগোয়া এলাকার দুঃস্থ, অসহায়দের পাশে ভারত সেবাশ্রম সংঘের সন্ন্যাসীরা

শুকনো খাবারের প্যাকেট নিয়ে সন্ন্যাসীরা ছুটে বেড়াচ্ছেন অসহায়, দুঃস্থ মানুষদের বাড়ির দরজায়

  • Share this:

#শিলিগুড়ি: বিশ্বজুড়েই করোনার দাপট অব্যাহত। সর্বত্রই মৃত্যুর মিছিল। উদ্বিগ্ন গোটা বিশ্ব। করোনা মোকাবিলায় লকডাউনই একমাত্র অস্ত্র। যে দেশ মানেনি সেই দেশেই বেড়েছে করোনার প্রকোপ। ইতালি, আমেরিকা, স্পেন, ফ্রান্স। বিশ্বের বড় বড় দেশে এখন কাঁপছে করোনায়। দেশেও করোনার প্রভাব বাড়ছে। বাড়ছে মৃত্যুর সংখ্যা। তবুও তৈরী দেশ।

লকডাউনে সমস্যা হলেও মারণ করোনার বিরুদ্ধে জিততে হলে ঘর বন্দী থাকবার কথা বার বার বলছেন প্রধানমন্ত্রী। লকডাউনে অন্যান্য পরিষেবা বন্ধ থাকলেও রেশন, নিত্য প্রয়োজনীয় দ্রব্য সামগ্রীর দোকান খোলা রয়েছে। কিন্তু যারা দিন আনি দিন খাই পরিবার তাদের অবস্থা ক্রমশই খারাপ হচ্ছে। শিলিগুড়ি ও লাগোয়া এলাকায় বাড়ছে খাদ্য সংকট। ইতিমধ্যেই তার মোকাবিলায় পথে নেমেছে সরকারী এবং বেসরকারী বিভিন্ন সংগঠন। এগিয়ে এসেছে ক্ষুদ্র শিল্পপতি থেকে ব্যবসায়ীরাও।

কঠিন এই সময়ে দুঃস্থ, অসহায়দের পাশে দাঁড়িয়েছে ভারত সেবাশ্রম সংঘের সন্ন্যাসীরাও। দিন রাত এক করে শিলিগুড়ির সুভাষপল্লির ভারত সেবাশ্রম সঙ্ঘের আশ্রমে চলছে খাবার তৈরী। আবার শুকনো খাবারের প্যাকেট তৈরীর প্রক্রিয়াও চলছে। সন্ন্যাসীরা নিজেরাই হাত লাগিয়েছেন। কি থাকছে সেই খাবারের প্যাকেটে? পরিমাণ মতো চাল, ডাল, আলু, লবন ও সরষের তেল। ভক্তদের জন্যে এখন আশ্রম বন্ধ। করোনার সংকটে মানবিকতার নজির সন্ন্যাসীদের।

শুকনো খাবারের প্যাকেট নিয়ে সন্ন্যাসীরা ছুটে বেড়াচ্ছেন অসহায়, দুঃস্থ মানুষদের বাড়ির দরজায়। তুলে দিচ্ছেন খাদ্য সামগ্রী। প্রতিদিন প্রায় ৫০০ জন দুঃস্থের হাতে তুলে দিচ্ছেন শুকনো খাবারের প্যাকেট। শুধু শুকনো খাবারই নয়, রান্না করা খাবারও তুলে দেওয়া হচ্ছে। ভারত সেবাশ্রম সংঘের পক্ষে স্বামী অতীশানন্দজী জানান, যতদিন না পরিস্থিতি স্বাভাবিক হচ্ছে এই পরিষেবা জারি থাকবে। শিলিগুড়ি লাগোয়া এলাকায় চলবে খাদ্য সামগ্রী বিলি। সাধ্য মতোই অসহায়দের মুখে খাবার তুলে নেওয়ার ব্রত নিয়েছেন সংঘের সন্ন্যাসীরা।

Partha Pratim Sarkar

Published by: Ananya Chakraborty
First published: April 3, 2020, 9:00 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर