দু’মাস ধরে বেপাত্তা ! সিকিমে কাজ করতে গিয়ে নিখোঁজ কোচবিহারের শ্রমিক

Representational Image

শ্রমিক পৃথ্বীরাজ রায়ের ঘরে ফেরার অপেক্ষায় তাঁর পরিবার৷

  • Share this:

    #কোচবিহার: সিকিমে কাজ করতে গিয়ে নিখোঁজ কোচবিহারের শ্রমিক৷ দু’ মাস ধরে তাঁর সঙ্গে যোগাযোগ নেই পরিবারের ৷ লকডাউনের জেরে বাড়ি ফিরতে পারছিলেন না এই শ্রমিক৷ পরিবারকে জানিয়েছিলেন সেকথা। মে মাস থেকে হঠাৎই যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে যায়। এখনও বেপাত্তা তিনি। মেখলিগঞ্জের কুচলিবাড়ির ঘটনা। শ্রমিক পৃথ্বীরাজ রায়ের ঘরে ফেরার অপেক্ষায় তাঁর পরিবার৷

    বাড়তি লাভের আশায় বাড়ির কৃষিকাজ ছেড়ে ভিনরাজ্যে পাড়ি দিয়েছিলেন মেখলিগঞ্জের এই যুবক। ফেব্রুয়ারি মাসে সিকিমের যান তিনি। রংপো এলাকায় একটি বেসরকারি সংস্থাতে শ্রমিকের কাজ শুরু করেন। ঠিকাদার সংস্থার আওতায় কাজ করতেন তিনি সেকথা পরিবারকে জানিয়েছিলেন পৃথ্বীরাজ৷ মেখলিগঞ্জের বাড়িতে বাবা মা ও দাদার কাছে নিয়মিত ফোন করতেন তিনি৷ করোনা মোকাবিলায় প্রথম দফার লকডাউনের পর কাজ বন্ধ হয়ে যায় তাঁর৷

    দ্বিতীয় দফার লকডাউন শুরু হলে বাড়ি ফেরার চেষ্টা করছেন বলে পরিবারকে জানিয়েছিলেন পৃথ্বীরাজ ৷ কিন্তু এরপর হঠাৎ যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে যায় পরিবারের সাথে। ৭ মে এরপর আর কোনও যোগাযোগ করা যায়নি ৷ এরপরেই ঠিকাদার সংস্থার সাথে যোগাযোগ করলে পরিবার জানতে পারে এখন আর সেই শ্রমিক কাজ করেন না তাদের সংস্থায়। তার কয়েক মাসের প্রাপ্য মজুরিও বকেয়া আছে বলে জানানো হয়েছে। শ্রমিকের দাদা বঙ্কিম রায় বসুনিয়া বলেন, শ্রমিকের কাজে সিকিমে গিয়ে তার ভাই হারিয়ে গিয়েছে। যে ঠিকাদার সংস্থার অধীনে কাজ করছিলেন তিনি তাদের সাথে যোগাযোগ করলে জানানো হয়েছে, তার ভাই সেখানে নেই৷

    পরিবারের মুখে হাসি ফোটাতে বাড়তি আয়ের আশায় বাড়ি ছেড়ে সিকিমে গিয়েছিল এই শ্রমিক। অনান্য পরিযায়ী শ্রমিকদের মত ঘরের ছেলে ঘরে ফিরে আসবে সেই আশাতেই ছিল হত দরিদ্র পরিবার। কিন্তু মাসের পর মাস কেটে গেলেও কোনও খোঁজ নেই তার। ছেলের ঘরে ফেরার অপেক্ষায় দিন গুনছেন বাবা বঙ্কিম রায় বসুনিয়া ও মা সুনিতী রায় বসুনিয়া।

    Published by:Siddhartha Sarkar
    First published: