জোটে থেকেও প্রার্থী দিয়েছিলেন, প্রকাশ্যে ক্ষমা চাইলেন এই কংগ্রেস নেতা

সিপিএম নেতা উত্তম পালের দাবি মোহিতবাবু আবেগতাড়িত হয়েই ক্ষমা চেয়েছেন।

সিপিএম নেতা উত্তম পালের দাবি মোহিতবাবু আবেগতাড়িত হয়েই ক্ষমা চেয়েছেন।

  • Share this:

#রায়গঞ্জ: ভোট বড় বালাই। বিধানসভা ভোট বৈতরণী পার হতে অবশেষে উত্তর দিনাজপুর জেলা কংগ্রেস সভাপতি মোহিত সেনগুপ্তের মতো রাশভারী মানুষকেও বামফ্রন্ট কর্মীদের কাছে প্রকাশ্য মঞ্চে ক্ষমা চাইতে হল।গত লোকসভা নির্বাচনে কংগ্রেস এবং বামগফ্রন্ট জোট হলেও সেই জোটধর্মকে ভঙ্গ করে রায়গঞ্জ আসনে  দীপা দাসমুন্সিকে প্রার্থী করেছিল কংগ্রেস। সিপিএমের প্রার্থী হিসেবে ছিলেন প্রাক্তন সাংসদ মহঃ সেলিম। নির্বাচনে মহঃ সেলিম হেরে গিয়েছিলেন। বিধানসভা নির্বাচনের আগে সেই ইতিহাসকে মনে করিয়ে দিয়ে জেলা কংগ্রেস সভাপতি রায়গঞ্জ বিধানসভা কেন্দ্রের বিদায়ী বিধায়ক মোহিত সেনগুপ্ত এবারের সম্ভব্য কংগ্রেস প্রার্থী। শনিবার রায়গঞ্জ বিধানমঞ্চে প্রকাশ্য মঞ্চে বামকর্মী সমর্থকদের কাছে ক্ষমা চাইলেন। সিপিএম নেতা উত্তম পালের দাবি মোহিতবাবু আবেগতাড়িত হয়েই ক্ষমা চেয়েছেন। এটা না করলেও জোটের কোন ব্যঘাত ঘটত না। কারণ এবারে বিধানসভা নির্বাচনে সংযুক্ত মোর্চার প্রার্থীদের জয়ী করাই তাদের লক্ষ্য।

২০১৬ সালের বিধানসভা নির্বাচনেও বাম-কংগ্রেস জোটের প্রার্থী হিসেবে কংগ্রেসের মোহিত সেনগুপ্ত রায়গঞ্জ বিধানসভা আসনে প্রার্থী হয়েছিলেন। নিঃস্বার্থভাবে এবং সর্বশক্তি দিয়ে রায়গঞ্জের সিপিএম এর নেতাকর্মীরা ঝাঁপিয়ে পড়েছিলেন কংগ্রেস প্রার্থী মোহিত সেনগুপ্তের প্রচারে।জয়ী হয়েছিলেন মোহিত সেনগুপ্ত। এর ঠিক আড়াই বছর পর ২০১৯ এর লোকসভা নির্বাচনে জোট ধর্ম ভেঙে রায়গঞ্জ লোকসভা কেন্দ্রে সিপিআইএম প্রার্থী মহম্মদ সেলিমের বিরুদ্ধে দীপা দাসমুন্সীকে প্রার্থী হিসেবে দাঁড় করিয়ে দিয়েছিল কংগ্রেস। ফলত রায়গঞ্জ কেন্দ্র থেকে হার মানতে হয়েছিল সিপিএমএর প্রাক্তন সাংসদ মহম্মদ সেলিমকে।

সেই সময় থেকেই উত্তর দিনাজপুর জেলায় কংগ্রেসের সঙ্গে সখ্য নষ্ট হয়েছিল সিপিএম এর। বিশেষ করে রায়গঞ্জ বিধানসভা কেন্দ্রের সিপিএম নেতা কর্মীরা কংগ্রেস তথা রায়গঞ্জের বিধায়কের মোহিত সেনগুপ্তের উপরে ক্ষুদ্ধ হয়েছিল বামকর্মী সমর্থকরা। ২০১৬ সালের মতো ২০২১ সালের বিধানসভা নির্বাচনে রাজ্যে বাম-কংগ্রেস জোট বাঁধে। জোটের প্রার্থী হিসেবে রায়গঞ্জ বিধানসভা আসন কংগ্রেসের।

খুব স্বাভাবিক ভাবেই এবারেও রায়গঞ্জ বিধানসভা নির্বাচনে জোটের প্রার্থী বিদায়ী কংগ্রেস বিধায়ক মোহিত সেনগুপ্ত। কিন্তু লোকসভা নির্বাচনে সেলিমের বিরুদ্ধে কংগ্রেস দীপা দাসমুন্সীকে প্রার্থী করে বিশ্বাসঘাতকতা করেছে এই অভিযোগে ক্ষোভে ফুঁসতে থাকেন রায়গঞ্জ তথা উত্তর দিনাজপুর জেলার বাম কর্মী সমর্থকরাই। শনিবার রায়গঞ্জ বিধানমঞ্চে সংযুক্ত মোর্চার এক কনভেনশন অনুষ্ঠিত হয়েছিল। সেই মঞ্চে তাই বক্তব্য রাখতে গিয়ে বাম কর্মী সমর্থকদের ক্ষোভ প্রশমনে  প্রকাশ্যে ক্ষমা চাইলেন জেলা কংগ্রেস সভাপতি তথা রায়গঞ্জ বিধানসভা কেন্দ্রের কংগ্রেসের সম্বব্য প্রার্থী  প্রার্থী মোহিত সেনগুপ্ত।

মোহিতবাবু বক্তব্যে বলেন, লোকসভা নির্বাচনে জোট প্রার্থীর বিরুদ্ধে কংগ্রেস প্রার্থী দেওয়া তাদের ঠিক কাজ হয় নি। কংগ্রেসের এই সিদ্ধান্ত বাম কর্মী সমর্থকদের আহত করেছে।

Published by:Arka Deb
First published: