• Home
  • »
  • News
  • »
  • north-bengal
  • »
  • কুশমন্ডির ধর্ষিতা তরুণীকে দেখতে হাসপাতালে গেলেন মুখ্যমন্ত্রী

কুশমন্ডির ধর্ষিতা তরুণীকে দেখতে হাসপাতালে গেলেন মুখ্যমন্ত্রী

কুশমন্ডির ধর্ষিতা তরুণীকে দেখতে হাসপাতালে গেলেন মুখ্যমন্ত্রী

কুশমন্ডির ধর্ষিতা তরুণীকে দেখতে হাসপাতালে গেলেন মুখ্যমন্ত্রী

কুশমন্ডির ধর্ষিতা তরুণীকে দেখতে হাসপাতালে গেলেন মুখ্যমন্ত্রী

  • Share this:

     #কুশমন্ডি: চিকিৎসায় সাড়া দিচ্ছেন কুশমন্ডির নির্যাতিতা তরুণী। তাঁর শারীরিক অবস্থার কিছুটা উন্নতি হয়েছে। তাঁকে সর্বক্ষণ পর্যবেক্ষণে রাখছেন বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক দল। জানিয়েছেন মালদহ মেডিক্যালের সুপার। আজ নির্যাতিতাকে দেখতে হাসপাতালে যান মুখ্যমন্ত্রী। কথা বলেন চিকিৎসকদের সঙ্গে। এদিকে, কুশমন্ডির ঘটনায় আরও একজন গ্রেফতার। ঘটনায় গণধর্ষণের মামলা রুজু করেছে পুলিশ।

    শুধু ধর্ষণ নয়। চরমতম নিগ্রহের শিকার দক্ষিণ দিনাজপুরের কুশমন্ডির মানসিক ভারসাম্যহীন আদিবাসী মহিলা। তাঁর যৌনাঙ্গে ধাতব বস্তু ঢুকিয়ে দেওয়ার অভিযোগ। মালদহ মেডিক্যাল কলেজে অস্ত্রোপচারের পর এখন কিছুটা সুস্থ মহিলা। সাড়া দিচ্ছেন চিকিৎসায়। তবে পুরোপুরি কাটেনি বিপদ। নির্যাতিতাকে দেখতে এদিন মালদহ মেডিক্যালে যান মুখ্যমন্ত্রী। কথা বলেন চিকিৎসকদের সঙ্গে।

    বাড়ি আছে। আছে জমিজমাও। তবে পরিবারে কেউ নেই। মহিলা নিজের মনে ঘুরে বেরাতেন পাড়ায়। চিনতেন সকলেই। ১৭ ফেব্রুয়ারি শনিবার ঘটনার চব্বিশ ঘণ্টা পর রবিবার সন্ধেয় ওই মহিলাকে রক্তাক্ত অবস্থায় উদ্ধার করে পুলিশ। তাঁকে গণধর্ষণ করা হয়েছে বলে অভিযোগ স্থানীয় বাসিন্দাদের।

    ঘটনায় প্রথম গ্রেফতার স্থানীয় বাসিন্দা রামপ্রবেশ শর্মা। কাঠের দোকান আছে রামপ্রবেশের। সে মহিলার জমিতে চাষ করত বলে দাবি স্থানীয়দের। পরে ইটাহারের ভদ্রশীলায় থেকে আনধারু বর্মন নামে আরও একজনকে গ্রেফতার করে পুলিশ। ৩৭৬ (ডি) ধারায় গণধর্ষণের মামলা দায়ের করা হয়েছে।

    রানাঘাটের সত্তরোর্ধ্ব সন্ন্যাসীনি কিংবা কলকাতার অভিজাত স্কুলের চার বছরের শিশু। অথবা মানসিক ভারসাম্যহীন মহিলা। বিকৃত যৌন লালসার হাত থেকে নিস্তার নেই কারও। নির্যাতিতার অত্যাচারের নমুনা দেখে শিউরে উঠছেন চিকিৎসকরাও। নির্যাতনের এই ঘটনা মনে করিয়ে দিচ্ছে নির্ভয়া কাণ্ডকে। কেন এই চরম নির্যাতন? তা অবশ্য স্পষ্ট নয় এখনও।

    First published: