একজন তৃণমূলকে গ্রেফতার করলে বিজেপির ১ লক্ষ লোক জেলে ঢুকবে, পাল্টা চ্যালেঞ্জ মমতার

একজন তৃণমূলকে গ্রেফতার করলে বিজেপির ১ লক্ষ লোক জেলে ঢুকবে, পাল্টা চ্যালেঞ্জ মমতার

Elina Datta | News18 Bangla
Updated:May 04, 2017 07:37 PM IST
একজন তৃণমূলকে গ্রেফতার করলে বিজেপির ১ লক্ষ লোক জেলে ঢুকবে, পাল্টা চ্যালেঞ্জ মমতার
Elina Datta | News18 Bangla
Updated:May 04, 2017 07:37 PM IST

#মালদহ: আগেই অভিযোগ তুলেছিলেন সিবিআইকে ব্যবহার করে ভয় দেখাচ্ছে কেন্দ্রের শাসক দল ৷ এদিন মালদহের ডিএসএ স্টেডিয়ামের সভা থেকে পাল্টা চ্যালেঞ্জ ছুঁড়ে বলেন, ‘তৃণমূলের একজনকে জেলে পাঠালে বিজেপি-র এক লক্ষ লোক জেলে ঢুকবে ৷’ বুধবারও দক্ষিণ দিনাজপুরের বুনিয়াদপুর থেকে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের চ্যালেঞ্জ করে বলেছিলেন, পারলে তাঁকেও গ্রেফতার করে দেখাক সিবিআই।

শীর্ষ বিজেপি নেতা কৈলাশ বিজয়বর্গীর বক্তব্যকে আশ্রয় করে এদিন মুখ্যমন্ত্রী প্রশ্ন তোলেন, ‘সিবিআই-ইডি দিয়ে ভয় দেখানো হচ্ছে ৷ বিজেপির বিরুদ্ধে কথা বললে ভয় দেখাচ্ছে ৷ ‘বিজেপির নেতা বলছেন প্রধানমন্ত্রী নির্দেশ, তাই জেলে সুদীপ, তাপস ৷ উনি কি সিবিআই অধিকর্তা? প্রধানমন্ত্রী কি এটা ওনাকে শিখিয়েছেন?’ তৃণমূল সুপ্রিমোর দীর্ঘদিনের অভিযোগে অজান্তেই সিলমোহর মেরেছেন কৈলাশ বিজয়বর্গী। কেননা তৃণমূল নেত্রী বারবারই বলেছেন সিবিআই দেখিয়ে রাজনৈতিক ষড়যন্ত্রে নেমেছে বিজেপি। গ্রেফতার করেছে সুদীপ বন্দ্যোপাধ্যায়ের মতো দলের শীর্ষ নেতাকে। তাঁর বিরুদ্ধে অপরাধমূলক ষড়যন্ত্রের মামলা দায়ের হয়েছে। তাই এবার সরাসরি চ্যালেঞ্জ কেন্দ্রকে।

উত্তরপ্রদেশে বিপুল সাফল্যের পর মিশন বাংলার জন্য ব্লু-প্রিন্ট বানিয়েছে বিজেপি। ভুবনেশ্বরে দলের জাতীয় কর্মসমিতির বৈঠকে সেই রণকৌশলে ছাপ্পা মেরেছেন নরেন্দ্র মোদি। দিলীপ ঘোষের মতো রাজ্যের শীর্ষ বিজেপি নেতারা খোলাখুলি মেরুকরণের রাজনীতির সমর্থনে কথা বলছেন। অমিত শাহ্-কে সামনে রেখে বিজেপি শুরু করেছেন মিশন বাংলা। হিন্দুত্বের জিগির তুলে বিজেপির প্রচার কৌশলে বিঁধে মুখ্যমন্ত্রী এদিন বলেন, ‘দিল্লি থেকে এসে বিভ্রান্তি ছড়ানো হচ্ছে ৷ দিল্লি থেকে এসে বড়-বড় কথা বলা হচ্ছে ৷ দিল্লি থেকে এল রাম, জুটল সিপিএম-বাম ৷ মুখে বললেই কেউ হিন্দু হয় না ৷ তোমরা নকল হিন্দু ৷ কাঁধে অস্ত্র নিয়ে রাম পুজো করছে ৷ দেবদেবী দানব ধ্বংস করতে অস্ত্র ধরেন ৷ মানুষ কখনও অস্ত্র ধরে না ৷’

এখানেই শেষ নয়, মুখ্যমন্ত্রী বলেন, ২০১৯-এ রাজ্য থেকে নয়, দেশ থেকেও বিতারিত হবে বিজেপি ৷ গেরুয়া শিবিরের বিরুদ্ধে ক্ষোভ উগরে মুখ্যমন্ত্রীর আক্রমণ, ‘বিজেপি দাঙ্গাবাজদের দল, চক্রান্তের দল ৷ কে কী খাবেন তাঁর ব্যাপার ৷ এটা নিয়ে বলার তুমি কে? সিবিআই, ইডি-কে হাত করেছে বিজেপি ৷ ২০১৯ সালের ভোটে পরাস্ত হবে বিজেপি ৷ বিনাশকালে বিজেপি-র বুদ্ধিনাশ হয়েছে ৷ টাকা দিয়ে েসাশ্যাল সাইটে ভুয়ো অ্যাকাউন্টে দলের প্রচার চালাচ্ছে বিজেপি ৷ স্বচ্ছ ভারত নিয়ে অপপ্রচার করছে কেন্দ্র ৷ রাজ্য কাজ করছে, কৃতিত্ব নিচ্ছে কেন্দ্র ৷’

ফের বিজেপি-বামফ্রন্ট আঁতাতের অভিযোগ তুলে কেন্দ্রের শাসক দলকে আক্রমণ করে মুখ্যমন্ত্রীর মন্তব্য, ‘বিজেপির কোলে সিপিএম-কং দোলে ৷’

এমনকি সময়ে অসময়ে ব্যক্তিগত আক্রমণের নিশানা হয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ৷ এদিন সেই কথা তুলেও সরব হন মুখ্যমন্ত্রী, ‘বেটি বাঁচাও, বেটি পড়াও নিয়ে বিজ্ঞাপন ৷ শুধু কাগজেই বিজ্ঞাপন দেওয়া হচ্ছে ৷ আমায় নিয়ে কুৎসা রটানো হচ্ছে ৷ আমার জন্ম নিয়ে প্রশ্ন তোলা হচ্ছে ৷ ফেসবুকে মিথ্যা প্রচার কেন্দ্রের মন্ত্রীর ৷ প্রকাশ্যে কুৎসা করছে বিজেপি নেতারা ৷’

First published: 04:15:25 PM May 04, 2017
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर