'এলাকায় দাপিয়ে বেড়াচ্ছে ৩ টি চিতাবাঘ', আতঙ্কে শিলিগুড়ির রহমুজোতের বাসিন্দারা

'এলাকায় দাপিয়ে বেড়াচ্ছে ৩ টি চিতাবাঘ', আতঙ্কে শিলিগুড়ির রহমুজোতের বাসিন্দারা

বন কর্মীদের বিরুদ্ধে উদাসীনতার অভিযোগ তুলেছে গ্রামবাসীরা

  • Share this:

#শিলিগুড়ি: ফের চিতা বাঘের আতঙ্ক শিলিগুড়িতে। এবারের ঘটনাটি ফাঁসিদেওয়ার জালাস নিজামতারা এলাকার একটি চা বাগানের। তিনটি চিতা বাঘ দাপিয়ে বেড়াচ্ছে এলাকায়, দাবি স্থানীয়দের। এতেই ঘুম ছুটেছে গ্রামবাসীদের। বন দফতরের ঘোষপুকুর রেঞ্জের কর্তারা ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন। তবে দেখা মেলেনি চিতার।

পরে ঘটনাস্থলে পৌঁছন বাগডোগরার তাইপু বিটের এলিফ্যাণ্ট স্কোয়াডের কর্মীরা। চা বাগানের এক পাশ থেকে অন্য পাশে তল্লাশি চালালেও খোঁজ মেলেনি চিতা বাঘের। এমনকি চিতার পায়ের ছাপও দেখা যায়নি বলে দাবি স্কোয়াডের কর্মীদের। তবে আতঙ্ক কাটেনি গ্রামবাসীদের। 'নিজের চোখকে তো অস্বীকার করা যায় না!' বলছেন প্রত্যক্ষদর্শীরা। সন্ধ্যের দিকে বাজি পটকা ফাটালেও চিতার অস্তিত্ব খুঁজে পায়নি বন কর্মীরা। তবে গ্রামবাসীরা তা মানতে নারাজ।

এলাকায় রাতভর তল্লাশি চালাতে হবে এই দাবিতে দীর্ঘক্ষন এলিফ্যান্ট স্কোয়াদের কর্মীদের আটকে রাখেন গ্রামবাসীরা। তাঁদের দাবি, অবিলম্বে চিতা বাঘ ধরতে খাঁচা পাততে হবে। কিন্তু বন কর্মীরা খাঁচা না আনায় বিক্ষোভের মুখে পড়তে হয় তাঁদের। তাঁদের দাবি, গ্রামবাসীরা তিনটে চিতা বাঘ দেখতে পেয়েছে বললেও বাস্তবে কিছুই মেলেনি। অন্ততপক্ষে পায়ের ছাপ মিললেও তল্লাশিতে গতি আনা যেত। তবু আগামিকাল ফের তারা তল্লাশি চালাবে বলে জানিয়েছেন। পরে ফাঁসিদেওয়া থানার পুলিশের মধ্যস্থতায় বন কর্মীদের উদ্ধার করা হয়। তবে আতঙ্কগ্রস্থ গ্রামবাসীরা। লাঠিসোটা নিয়ে রাত জাগবে তাঁরা।

এর আগে এই এলাকায় চিতার আনাগোনা কখনওই দেখা যায়নি। তবে কিছুটা দূরের কমলা চা বাগানে চিতার আনাগোনা রয়েছে। মাঝেমধ্যেই সেখানে লেপার্ডের দেখা মেলে। আজ তল্লাশিতে চিতা বাঘের লেশ মাত্র খুঁজে না পেলেও কাল ফের এই চা বাগানে নামবে বন কর্মীরা। গ্রামবাসীরা বন কর্মীদের উদাসীনতার বিরুদ্ধে ক্ষোভ উগড়ে দিয়েছেন। স্থানীয় বাসিন্দাদের দাবি, প্রয়োজনীয় পরিকাঠামো ছাড়াই তল্লাশিতে এসেছে বন কর্মীরা। রাতে ফের চিতা বাঘের উপদ্রব বাড়তে পারে, এমনই আশঙ্কায় ঘুম ছুটেছে রহমুজোতের বাসিন্দাদের।

Partha Pratim Sarkar

First published: January 31, 2020, 9:42 AM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर