মালদহে কেন্দ্রীয় বাহিনীকে নিয়ে রাস্তায় নামলেন জেলাশাসক ও পুলিশ সুপার, অবাধ ভোটের আশ্বাস

ফেব্রুয়ারি মাসের শেষেই মালদহে এসে পৌঁছয় কেন্দ্রীয় বাহিনী। ইতিমধ্যে কেন্দ্রীয় বাহিনীকে বিভিন্ন দলে ভাগ করে রাখা হয়েছে ‘স্পর্শকাতর' হিসেবে চিহ্নিত কালিয়াচক, বৈষ্ণবনগর, মালদহ, সামসী, হরিশ্চন্দ্রপুর প্রভৃতি এলাকায়।

ফেব্রুয়ারি মাসের শেষেই মালদহে এসে পৌঁছয় কেন্দ্রীয় বাহিনী। ইতিমধ্যে কেন্দ্রীয় বাহিনীকে বিভিন্ন দলে ভাগ করে রাখা হয়েছে ‘স্পর্শকাতর' হিসেবে চিহ্নিত কালিয়াচক, বৈষ্ণবনগর, মালদহ, সামসী, হরিশ্চন্দ্রপুর প্রভৃতি এলাকায়।

  • Share this:

Sebak DebSarma

#মালদহ: গ্রামাঞ্চলের পাশাপাশি এ বার মালদহ শহরেও রুটমার্চ শুরু করে দিল কেন্দ্রীয় বাহিনী। জেলাশাসক রাজর্ষি মিত্র এবং পুলিশ সুপার অলোক রাজোরিয়ার নেতৃত্বে সোমবার বিকেল থেকে মালদহ শহরের বিভিন্ন এলাকায় চলে রুটমার্চ। মালদহের সিঙ্গাতলা, কৃষ্ণপল্লি, নেতাজি পার্ক সহ একাধিক এলাকায় চলে কেন্দ্রীয় বাহিনীর রুটমার্চ। একই সঙ্গে রাস্তার মোড়ে, চায়ের দোকানে এমনকি স্থানীয় বাসিন্দাদের দরজায় গিয়ে সরাসরি তাঁদের সঙ্গে কথা বলে অবাধ নির্বাচনের ব্যাপারে আশ্বস্ত করেন পুলিশ ও প্রশাসনের দুই পদস্থ কর্তা।

ইতিমধ্যেই মালদহের এসে পৌঁছেছে পাঁচ কোম্পানি কেন্দ্রীয় বাহিনী। পালা করে বিভিন্ন এলাকায় সকাল-বিকাল চলছে রুটমার্চ। এর আগে মালদহের কালিয়াচক, মোথাবাড়ি, ইংরেজবাজার, গাজোল, মানিকচক, চাঁচোল প্রভৃতি বিভিন্ন বিধানসভা এলাকায় কেন্দ্রীয় বাহিনীর রুটমার্চ হয়। ফেব্রুয়ারি মাসের শেষেই মালদহে এসে পৌঁছয় কেন্দ্রীয় বাহিনী। ইতিমধ্যে কেন্দ্রীয় বাহিনীকে বিভিন্ন দলে ভাগ করে রাখা হয়েছে ‘স্পর্শকাতর' হিসেবে চিহ্নিত কালিয়াচক, বৈষ্ণবনগর, মালদহ, সামসী, হরিশ্চন্দ্রপুর প্রভৃতি এলাকায়। জেলা প্রশাসনের কর্তারা বিভিন্ন এলাকায় গিয়ে ভোটারদের জিজ্ঞাসা করেন  এলাকায় ভোট প্রচার শুরু হয়েছে কিনা , এলাকায় কোনও দুষ্কৃতির দাপাদাপি রয়েছে কিনা, ২০১৬ বিধানসভা নির্বাচনে তাঁরা ভোট দিতে পেরেছেন কিনা, অতীতে তাঁদের এলাকায় কোনও গোলমাল হয়েছে কিনা, কত দূরে গিয়ে ভোট দিতে হয় ।

প্রশাসনের কর্তাদের কাছে পেয়ে অনেকেই এ বার করোনা পরিস্থিতিতে ভোট দেওয়ার নিয়ম কানুন জানতে চান । অনেকে কেন্দ্রীয় বাহিনী দিয়ে নিয়মিত টহলদারি চালানোর আর্জি জানান । জেলাশাসক রাজর্ষি মিত্র জানান , সাধারণ ভাবে যে সব এলাকা স্পর্শকাতর হিসেবে চিহ্নিত সেই সব এলাকাতেই বাড়তি নজরদারির সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। এখন থেকে প্রতিদিনই দুই বেলা করে টহলদারি চালাবে বাহিনী। কেন্দ্রীয় বাহিনীর টহলদারির পাশাপাশি এলাকার দাগী দুষ্কৃতিদের ধরপাকড় অভিযান জোরদার করা হবে বলে জানান , মালদহের জেলা পুলিশ সুপার অলোক রাজোরিয়া।

Published by:Simli Raha
First published: