• Home
  • »
  • News
  • »
  • north-bengal
  • »
  • CASE FOR MOTION OF NO CONFIDENCE IN MALDAH ZILA PARISHAD IS IN CALCUTTA HIGH COURT DD

মালদহ জেলা পরিষদ নিয়ে তৃণমূল- বিজেপির তরজা চরমে, কলকাতা হাইকোর্টে পৌঁছলো মামলা

মালদা জেলা পরিষদের অনাস্থা নিয়ে মামলা কোলকাতা হাইকোর্টে, অনাস্থারা চিঠির বৈধ্যতাকে চ্যালেঞ্জ সভাধিপতির।

মালদা জেলা পরিষদের অনাস্থা নিয়ে মামলা কোলকাতা হাইকোর্টে, অনাস্থারা চিঠির বৈধ্যতাকে চ্যালেঞ্জ সভাধিপতির।

  • Share this:

#মালদহ:  মালদহ জেলা পরিষদের অনাস্থা নিয়ে মামলা কলকাতা হাইকোর্টে। আদালতের দ্বারস্থ হলেন মালদহ জেলা পরিষদের সভাধিপতি গৌড়চন্দ্র মল। শুক্রবার কলকাতা হাইকোর্টের মামলার শুনানির সম্ভবনা।মালদহ জেলা পরিষদের সভাধিপতি বিজেপি নেতা গৌরচন্দ্র মণ্ডলের বিরুদ্ধে অনাস্থা আনে তৃণমূল। অনাস্থা প্রস্তাব সই রয়েছে ২৩ জেলা পরিষদ সদস্যের। আগামী ৮ জুলাই অনাস্থা প্রস্তাব নিয়ে তলবি সভার দিন নির্দিষ্ট রয়েছে। তার আগেই অনাস্থা চিঠির বৈধতাকে চ্যালেঞ্জ করে আদালতের দ্বারস্থ মালদহের সভাধিপতি। অনাস্থা প্রস্তাবের বেশকয়েকজন জেলা পরিষদের সই সঠিক নয় দাবি সভাধিপতির। অনাস্থা প্রস্তাবের চিঠিতে নিয়ম কানুন মানা হয়নি। কয়েকজন সদস্যের সই এর পাশে তিনি কোন দলের সদস্য তা লেখা হয়নি । তাছাড়া  করোনা বিধি-নিষেধের মধ্যেই কি করে সভাধিপতি অপসারণ নিয়ে সভার দিন ধার্য হলো? সে নিয়েও প্রশ্ন তুলেছেন মালদহের সভাধিপতি।

বিধানসভা ভোটের আগে মালদহ জেলা পরিষদের সভাধিপতি  গৌড় চন্দ্র মণ্ডল বেশ কয়েকজন তৃনমূল জেলা পরিষদ সদস্যকে সঙ্গে নিয়ে বিজেপিতে যোগ দেন । সেই সময় মালদহ জেলা পরিষদ দখলের দাবি করে বিজেপি। কিন্তু মালদহের মানিকচক বিধানসভা আসনে বিজেপির টিকিটে প্রার্থী হয়ে হেরে যান সভাধিপতি । রাজ্যেও ফের ক্ষমতায় ফেরে তৃণমূল । এরপর থেকেই মালদা জেলা পরিষদের সমীকরন ফের বদল হতে শুরু করে । বিজেপি শিবিরে চলে যাওয়া অনেকেই তৃনমূলে ফেরেন। অনেকে তৃনমূলে প্রত্যাবর্তনের ইচ্ছা প্রকাশ করেন । শুধু তাই নয় বিজেপির টিকিটে জেতা কয়েকজন সদস্যও তৃনমূলে যোগ দেন ।  ফলে জেলা পরিষদে শক্তি বৃদ্ধি হয় তৃনমূলের। এরপরেই ২৩ জন সদস্যকে সই সহ সভাধিপতির বিরুদ্ধে অনাস্থা আনে তৃণমূল ।

এই অবস্থায়  মালদহ জেলা পরিষদ নিয়ে তৃণমূল- বিজেপির তরজা চরমে। জেলা বিজেপির সভাপতি গোবিন্দ চন্দ্র মন্ডল বলেন, জেলা পরিষদের অনাস্থা ত্রুটিপূর্ন তাই দল এবং সভাধপতি আইনই লড়াই চালিয়ে যাবেন। অন্যদিকে, বিজেপির এই মামলা টিকবে না  বলে পাল্টা দাবি করেছেন মালদহের তৃণমূল জেলা চেয়ারম্যান কৃষ্ণেন্দু নারায়ণ চৌধুরী।   তিনি বলেন, আইন প্রক্রিয়ায় গিয়ে সভাধিপতি সময় দীর্ঘায়িত করতে চাইছেন। আখেরে তাতে কোনো লাভ হবে না।

Sebak DebSarma
Published by:Debalina Datta
First published: