দোকান থেকে বাড়ির ফেরার পথে ব্যবসায়ীকে গুলি, ছিনতাই ৩ লক্ষ টাকা

দোকান থেকে বাড়ির ফেরার পথে ব্যবসায়ীকে গুলি, ছিনতাই ৩ লক্ষ টাকা

তাঁরা প্রথমে টাকার ব্যাগ নিয়ে নেওয়ার চেষ্টা করে । বাঁধা দিতে গেলে ছেলে ফাইজুল হককে রিভলবার দিয়ে আঘাত করা হয়।

  • Share this:

 

SEBAK DEBSARMA

#মালদহ: দোকান থেকে বাড়ি ফেরার পথে ব্যবসায়ীকে গুলি করে খুন করল দুষ্কৃতীরা। একই সঙ্গে তিন লক্ষ টাকা ছিনতাইয়ের ঘটনা ঘটেছে। মৃত আব্দুল বাসির বাহিরকাপ এলাকার বাসিন্দা। রাতে মালদহের বালুপুর এলাকায় ঘটনায় জখম হন ব্যবসায়ীর ছেলে ফাইজুল হক । এদিকে খুনের পর এখনো ঘটনার কিনারা করতে পারেনি পুলিশ। ব্যবসায়ী খুন ও টাকা লুটের ঘটনায় আতঙ্কিত ব্যবসায়ীরা। অবিলম্বে দোষীদের চিহ্নিত করে ব্যবস্থা নেওয়া না হলে বৃহত্তর আন্দোলনের হুমকি দিয়েছে মালদা মার্চেন্ট চেম্বার অফ কমার্স।

জানা গিয়েছে, মালদহের রতুয়ার বালুপুরে হার্ডওয়ারের বড় ব্যবস্থা রয়েছে আব্দুল বাসিরের। অন্যান্য দিনের মতোই গতকাল রাতে দোকান বন্ধের পর দুই ছেলে ফাইজুল হক , ও মহিদুল হককে সঙ্গে নিয়ে মোটর বাইকে চেপে বাড়ি ফিরছিলেন ৫৫ বছরের আব্দুল বাসির। নির্জন এলাকায় একটি মোটর বাইক পিছন থেকে ওভারটেক করে এসে তাঁদের আটকায়। ওই বাইকে তিন সশস্ত্র দুষ্কৃতী ছিল। তাঁরা প্রথমে টাকার ব্যাগ নিয়ে নেওয়ার চেষ্টা করে । বাঁধা দিতে গেলে ছেলে ফাইজুল হককে রিভলবার দিয়ে আঘাত করা হয়। ছেলে আহত হওয়ার পর টাকার ব্যাগ বাঁচানোর চেষ্টা করেন বাবা আব্দুল বাসির। সে সময় দুষ্কৃতীরা তাঁর মাথায় গুলি করে ।

এরপর তারা টাকার ব্যাগ নিয়ে চম্পট দেয়। জানা গিয়েছে, দুষ্কৃতীরা একটি নীল রংয়ের মোটর বাইকে চেপে এসেছিল। গুলি চালানোর পর তাঁদের হুমকি দিয়ে এলাকা ছাড়ে দুষ্কৃতীরা । গুলির শব্দে আশপাশের লোকজন ছুটে এসে আব্দুল বাসিরকে হাসপাতালে নিয়ে গেলে, চিকিৎসকরা তাকে মৃত বলে ঘোষণা করেন। আহত ফাইজুল হককে ভর্তি করা হয় রতুয়া গ্রামীণ হাসপাতালে।

পুলিশের প্রাথমিক অনুমান, দুষ্কৃতীরা ওই ব্যবসায়ীকে বেশ কিছুদিন ধরে লক্ষ্য করেছিল। দোকান বন্ধের পর ক্যাশ টাকা নিয়ে বাড়িতে ফেরার বিষয়ে নির্দিষ্ট খবর ছিল তাদের কাছে। সুযোগ বুঝে টাকা হাতিয়ে নেওয়ার চেষ্টা করেছিল তারা। ঘটনার তদন্তে নেমে ইতিমধ্যে কয়েকজনকে থানায় এনে জিজ্ঞাসাবাদ করেছে রতুয়া থানার পুলিশ । তবে এখনও পর্যন্ত দোষীদের চিহ্নিত করা যায়নি । আহত ফাইজুল হক জানিয়েছেন, দুষ্কৃতীরা তিনজনই আনুমানিক ২৫ থেকে ২৬ বছরের । প্রত্যেকের মুখ কাপড় দিয়ে ঢাকা ছিল। দুষ্কৃতীরা হিন্দি ভাষায় কথা বলছিল। পুলিশ জানিয়েছে, ঘটনার পিছনে পরিচিত কেউ রয়েছে বলে প্রাথমিকভাবে অনুমান করা হচ্ছে । তবে এখনও পর্যন্ত চিহ্নিতকরণ সম্ভব হয়নি । তদন্তে সম্ভাব্য সব দিক খতিয়ে দেখা হচ্ছে।​

First published: 12:28:28 PM Dec 10, 2019
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर