Jalpaiguri: শরীরের কোথায় আটকে লোহা? মেটাল ডিটেক্টর এনে ষাঁড়ের পরীক্ষা হল ধুপগুড়িতে

মেটাল ডিটেক্টর এনে অসুস্থ ষাঁড়ের শরীর পরীক্ষা৷

ষাঁড়ের শরীরে কোথায় ধাতব বস্তু আটকে রয়েছে, তা চিহ্নিত করতে মেটাল ডিটেক্টর নিয়ে ঘটনাস্থলে আসে ধুপগুড়ি থানার আইসি সঞ্জয় তুঙ্গা৷

  • Share this:

    #ধুপগুড়ি: অবলা প্রাণীটির কষ্ট বুঝতে পেরেছিলেন ধুপগুড়ি শহরের মোড়ঙ্গা চৌপতি এলাকার বাসিন্দারাও৷ ষাঁড়টির চিকিৎসার জন্য তাঁরাই খবর দেন একটি পশুপ্রেমী সংস্থাকে৷ তাদের তরফেই নিয়ে আসা হয় পশু চিকিৎসককে৷ তিনিই পরীক্ষা করে জানান, সম্ভবত ষাঁড়টি খাবারের সঙ্গে লোহা বা ধাতব কিছু খেয়ে ফেলেছে৷ সেই কারণেই তার গলা এবং পেটের কাছের অংশ বেশ কিছুটা ফুলেও গিয়েছে৷ মুখের ভিতরেও তৈরি হয়েছে ক্ষত৷

    কিন্তু ষাঁড়টির শরীরের ঠিক কোথায় ধাতব বস্তুটি আটকে রয়েছে তা চিহ্নিত করতে পারেননি ওই পশু চিকিৎসক৷ এর পরই খবর দেওয়া হয় ধুপগুড়ি থানা এবং পুরসভায়৷ ষাঁড়ের শরীরে কোথায় ধাতব বস্তু আটকে রয়েছে, তা চিহ্নিত করতে মেটাল ডিটেক্টর নিয়ে ঘটনাস্থলে আসে ধুপগুড়ি থানার আইসি সঞ্জয় তুঙ্গা৷ আসেন ধুপগুড়ি পুরসভার ভাইস চেয়ারম্যান রাজেশ কুমার সিং৷ কিন্তু মেটাল ডিটেক্টর দিয়ে পরীক্ষা করেও ষাঁড়ের শরীরে ধাতব বস্তুর সন্ধান মেলেনি৷

    তবে এতেও হাল ছাড়েনি পুরসভা এবং পশুপ্রেমী সংগঠনের সদস্যরা৷ ঠিক হয় ষাঁড়টিকে কোনও নিরাপদ স্থানে রেখে চিকিৎসা করা হবে৷ সেই মতো পুরসভার তরফে নিয়ে আসা হয় ক্রেন৷ রাস্তার পাশ থেকে ষাঁড়টিকে উদ্ধার করে নিয়ে গিয়ে পুরসভার নিজস্ব জায়গায় রাখা হয়েছে৷ পশু চিকিৎসকের সাহায্য নিয়ে সেখানেই ষাঁড়টিকে সুস্থ করে তোলার চেষ্টা করা হবে বলে জানিয়েছেন পশুপ্রেমী সংগঠনের সদস্যরা৷

    Rocky Chowdhury

    Published by:Debamoy Ghosh
    First published: