প্রেম থেকে সহবাস, প্রেমিক বিয়ে করতে অস্বীকার করায় আত্মঘাতী প্রেমিকা

প্রেম থেকে সহবাস, প্রেমিক বিয়ে করতে অস্বীকার করায় আত্মঘাতী প্রেমিকা
প্রতীকী ছবি

বিয়ের প্রতিশ্রুতি দিয়ে সহবাস করলেও শেষমেশ পলাশ, সুমিকে বিয়ে করতে অস্বীকার করে।

  • Share this:

#রায়গঞ্জ: প্রেমিক বিয়ে করতে চায়নি। অভিমানে গলায়  ফাঁস দিয়ে আত্মঘাতী প্রেমিকা। ঘটনাটি ঘটেছে রায়গঞ্জ থানার দক্ষিন বিষ্ণুপুর গ্রামে। পুলিশ দেহটি উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য রায়গঞ্জ হাসপাতাল মর্গে নিয়ে যায়। ঘটনার তদন্তে নেমে রায়গঞ্জ থানার পুলিশ একটি অস্বাভাবিক মামলা রুজু করেছে। প্রেমিকের শাস্তির দাবিতে অভিযুক্তের বিরুদ্ধে মৃতার  পরিবারের পক্ষ থেকে রায়গঞ্জ থানায় অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। পুলিশ ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে।

জানা গিয়েছে, রায়গঞ্জ থানার দক্ষিন বিষ্ণুপুর গ্রামের বাসিন্দা সুমি অধিকারির সঙ্গে বছর তিনেকের সম্পর্ক গড়ে উঠেছিল ইটাহার থানার গতির গ্রামের বাসিন্দা পলাশ ঘোষের। দুই পরিবারের পক্ষ থেকে তাঁদের সম্পর্ক মেনেও নিয়েছিল। সুমির পরিবারের অভিযোগ, দীর্ঘদিনের সম্পর্কের সুবাদে বিয়ের প্রতিশ্রুতি দিয়ে দু'জনের মধ্যে একাধিকবার সহবাস হয়। বিয়ের প্রতিশ্রুতি দিয়ে সহবাস করলেও শেষমেশ  পলাশ, সুমিকে বিয়ে করতে অস্বীকার করে। এ নিয়ে পলাশের সঙ্গে  সুমির মধ্যে বিবাদ চলছিল। গতকাল রাতে বিবাদ চরমে ওঠে। টেলিফোনে তাদের মধ্যে দীর্ঘক্ষন বাক-বিতন্ডা হয়। এরপর আজ সকালে সুমি গলায় ফাঁস লাগিয়ে আত্মহত্যা করে।

পুলিশ খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পৌছে দেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য রায়গঞ্জ হাসপাতাল মর্গে নিয়ে যায়। পুলিশ একটি অস্বাভাবিক মামলা রুজু করেছে। স্থানীয় গ্রাম পঞ্চায়েত প্রধানের স্বামী রামু মণ্ডলের জানিয়েছেন, পুলিশকে কড়া হাতে বিষয়টি দেখার জন্য বলা হবে। এই পঞ্চায়েতে আরও একটি কিশোরী প্রাণ গিয়েছে। আবার একটি প্রাণ গেল। অভিযুক্ত পলাশের শাস্তির দাবি জানিয়েছেন মৃতার দিদি রূপালি অধিকারি।

Uttam Paul

First published: March 6, 2020, 7:47 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर