corona virus btn
corona virus btn
Loading

৩ মাসের বিদ্যুতের বিল মুকুবের দাবিতে জেলার জুড়ে বিক্ষোভ শুরু বিজেপি সমর্থকদের

৩ মাসের বিদ্যুতের বিল মুকুবের দাবিতে জেলার জুড়ে বিক্ষোভ শুরু বিজেপি সমর্থকদের

তিন মাসের বিদ্যুৎ বিল মুকুবের দাবিতে আজ রাজ্য বিদ্যুৎ বন্টন দফতর রায়গঞ্জ ডিভিশন অফিসের সামনে রাস্তা অবরোধ করে বিক্ষোভ দেখাল বিজেপি উত্তর দিনাজপুর জেলা কমিটি।

  • Share this:

Uttam Paul

#রায়গঞ্জ: সামাজিক দূরত্বকে শিকেয় তুলে তিন মাসের বিদ্যুৎ বিল মুকুবের দাবিতে আজ রাজ্য বিদ্যুৎ বন্টন দফতর রায়গঞ্জ ডিভিশন অফিসের সামনে রাস্তা অবরোধ করে বিক্ষোভ দেখাল বিজেপি উত্তর দিনাজপুর জেলা কমিটি। রাজ্য সরকার তাঁদের দাবিকে গুরুত্ব না দিলে আগামীতে জেলা বনধের পথে যাবার হুমকি দেওয়া হয়েছে। বিজেপির এই আন্দোলনের তীব্র সমালোচনা করেছে তৃণমূল কংগ্রেস। তৃণমূল কংগ্রেস নেতার অভিযোগ, বিজেপির রাজ্য সভাপতির নির্দেশেই নীচু তলার বিজেপি কর্মীরা করোনা আবহের কোনও বিধিনিষেধ মানতে চাইছেন না। বিদ্যুৎ বিল মুকুবের আন্দোলন করে জেলার মানুষকে বোকা বানাতে চাইছে বিজেপি।

করোনা ভাইরাসের প্রতিরোধে গত ২৩ মার্চ থেকে দেশ জুড়ে লকডাউন শুরু হয়েছে। এই লকডাউনের কারণে হাট, বাজার, দোকান পাট সব বন্ধ হয়ে আছে। চরম সমস্যার মধ্যে পড়েছেন দেশের অসংখ্য মানুষ।মানুষের আয়ের রাস্তা বন্ধ থাকায় মানুষ চরম আর্থিক সংকটের মধ্যে পড়েছেন। এই সংকটজনক পরিস্থিতিতে রাজ্য সরকার বিদ্যুতের বিল জমা দেবার গ্রাহকদের নোটিশ পাঠাচ্ছেন বলে বিজেপির পক্ষ থেকে অভিযোগ করা হয়েছে। লকডাউনের এই তিনমাস বিদ্যুতের বিল মুকুবের দাবিতে গত একমাস যাবদ জেলার সমস্ত বিদ্যুৎ দফতরের সামনে বিক্ষোভ অবস্থান কর্মসূচী পালন করে বিজেপি। জেলা জুড়ে বিজেপি আন্দোলনে সামিল হলেও রাজ্য সরকারের বিদ্যুতের বিল মুকুবের জন্য কোনও রকম পদক্ষেপ গ্রহণ না করার অভিযোগে আজ রাজ্য বিদ্যুৎ বন্টন দফতর রায়গঞ্জ ডিভিশন অফিসের সামনে অবস্থান বিক্ষোভে বসে বিজেপি সমর্থকরা । পরে শহরের মূল কেন্দ্র এমজি রোডে রাস্তা অবরোধে সামিলও হন তাঁরা।

বিজেপি জেলা সভাপতি বিশ্বজিৎ লাহিড়ির অভিযোগ, লকডাউনের কারণে মানুষের উপার্জন বন্ধ হয়ে গিয়েছে। আয় না থাকার কারণে পেট ভরে দু’বেলা দু’মুঠো ভাত খেতে পারছেন না তাঁরা। তার উপর সরকার বিদ্যুতের বিল পরিশোধের জন্য গ্রাহকদের নোটিশ জারি করছে। তাঁর দাবি "এক দেশ, এক বিদ্যুৎ বিল" নিতে হবে। মিটার ভাড়া এবং রিডিং চার্জ সরকারকে প্রত্যাহার করতেই হবে। তাঁদের দাবি মানা না হলে আগামীতে তাঁরা আরও বৃহত্তর আন্দোলনে যাবার হুমকি দিয়েছেন। রাজ্য সরকার সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখার জন্য আবেদন করলেও বিজেপি সেই সব নির্দেশ তোয়াক্কা না করে আন্দোলন সংগঠিত করেছিল বলে তৃণমূল কংগ্রেসের পক্ষ থেকে অভিযোগ করা হয়েছে। তবে জেলা সভাপতি বিশ্বজিৎ লাহিড়ি এই অভিযোগ অস্বীকার করেছেন। জেলা সভাপতির দাবি, মুখ্যমন্ত্রী সরকারী নিয়মকে নিজের হাতে ভেঙে দিয়েছে। তাঁরা মাস্ক পড়ে, সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে আন্দোলন করছেন।

জেলা কংগ্রেস নেতা অরিন্দম সরকারের দাবি, বিহার, অসম, ত্রিপুরা সরকার আগে বিদ্যুৎ বিল মুকুব করে দেখাক। তারপর পশ্চিমবঙ্গ ভাববে। পশ্চিমবঙ্গ সরকার গরীব মানুষের সরকার। এই সরকার গরীব মানুষের কথা ভেবে ৭৫ ইউনিট পর্যন্ত বিল ছাড় দিয়েছে। এই সিদ্ধান্ত বিজেপি নেতাদের সঙ্গে আলোচনা করে তাঁর নেত্রীকে নিতে হয়নি। আসলে বিজেপি এই আন্দোলন করে জেলার মানুষকে বোকা বানাতে চাইছে। এ দিন একই দাবিতে ডালখোলা, করনদিঘি এবং ইসলামপুরেও বিদ্যুৎ দফতরের সামনে বিক্ষোভ দেখায় বিজেপি কর্মীরা।

Published by: Simli Raha
First published: June 12, 2020, 8:03 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर