জোট জট কাটল না! পাহাড়ে ৩ আসনেই পৃথকভাবে প্রার্থী দেবে গুরুং-বিনয় শিবির

জোট জট কাটল না! পাহাড়ে ৩ আসনেই পৃথকভাবে প্রার্থী দেবে গুরুং-বিনয় শিবির

পাহাড়ে ঐক্যবদ্ধ হল না দুই মোর্চা। একদিকে গুরুংপন্থী মোর্চা, অন্যদিকে বিনয়পন্থী শিবির। সাড়ে তিন বছর পর গুরুং ফেরার পর থেকেই দুই শিবিরের বাকযুদ্ধ লেগেই রয়েছে।

পাহাড়ে ঐক্যবদ্ধ হল না দুই মোর্চা। একদিকে গুরুংপন্থী মোর্চা, অন্যদিকে বিনয়পন্থী শিবির। সাড়ে তিন বছর পর গুরুং ফেরার পর থেকেই দুই শিবিরের বাকযুদ্ধ লেগেই রয়েছে।

  • Share this:

#শিলিগুড়িঃ পাহাড়ে ঐক্যবদ্ধ হল না দুই মোর্চা। একদিকে গুরুংপন্থী মোর্চা, অন্যদিকে বিনয়পন্থী শিবির। সাড়ে তিন বছর পর গুরুং ফেরার পর থেকেই দুই শিবিরের বাকযুদ্ধ লেগেই রয়েছে। তৃণমূলের শীর্ষ নেতৃত্ব বহুবার চেষ্টা করে এসেছে। এমনকী কাজে এল না পিকের প্রচেষ্টাও।

তৃণমূলের প্রস্তাব ছিল, দার্জিলিংয়ে প্রার্থী দেবে গুরুংরা। অন্যদিকে, কার্শিয়ং ও কালিম্পং আসন দুটো ছেড়ে দেওয়া হয় বিনয়পন্থীদের ওপর। তাহলে ভোট কাটাকাটি হবে না, বিজেপিও বাড়তি সুবিধা পাবে না। কিন্তু কোনও শিবিরই নমনীয় হয়নি। নিজেদের সিদ্ধান্তে অটুট ছিল। নিজেদের শক্তি পরীক্ষায় অনড় থাকে বিমল এবং বিনয় শিবির। দু-পক্ষই আলাদা আলাদা প্রার্থী দেবে পাহাড়ের তিন আসনেই। গুরুংয়ের অনুপস্থিতিতে পাহাড়ে দুটি নির্বাচন হয়। বিনয়দের হারাতে চির প্রতিদ্বন্ধী জিএনএলএফের (GNLF) সঙ্গে জোট গড়ে গুরুংরা এবং গোপন ডেরা থেকে সোশ্যাল মিডিয়ায় সেই বার্তাই দেন বিমল গুরুং। দার্জিলিং উপ-নির্বাচনে বিনয় তামাংকে হারিয়ে দেয় বিমলপন্থী মোর্চা, জিএনএলএফ এবং বিজেপি জোট। পরবর্তীতে লোকসভা নির্বাচনেও জয়ী হয় এই জোট। পাহাড়ে ক্ষমতায় থেকেও মুখ পোড়ে বিনয় তামাংদের।

এ বারে গুরুংয়ের কাছে একুশের লড়াই অগ্নি পরীক্ষা। এবং তা ধরে নিয়ে নিরলস প্রচার চালিয়ে যাচ্ছেন তিনি। একাধিকবার তিনি বলেছেন, মমতা বন্দোপাধ্যায়কে তৃতীয়বার মুখ্যমন্ত্রীর আসনে বসানোই তাঁর প্রধান লক্ষ্য। তিন কেন্দ্রে আলাদা করে প্রার্থী দিলেও পাহাড়ে তৃণমূলের সঙ্গে যৌথভাবে প্রচারও করবে না বিনয়পন্থী মোর্চা। আজ দার্জিলিংয়ে এ কথা জানান বিনয় তামাং। আগামী ২১ মার্চ প্রার্থীর নাম ঘোষণা করবে বিনয়পন্থীরা। মংপু খেলার মাঠ থেকে প্রার্থীদের নাম ঘোষণা করবে তারা। অন্যদিকে, আগেই ঘোষণা করেছিল তারাও পৃথকভাবে তিন কেন্দ্রে প্রার্থী দেবেন। আগামী ২৩ মার্চ তিন আসনের প্রার্থীর নাম ঘোষণা করবেন স্বয়ং বিমল গুরুং। দার্জিলিং থেকেই ঘোষণা হবে বলে জানান গুরুংপন্থী মোর্চার সাধারন সম্পাদক রোশন গিরি। এ বার দেখার পাহাড়ে কার জনপ্রিয়তা বেশী? নাকি দুই মোর্চার ভোট কাটাকাটির ফায়দা তুলে নেবে বিজেপি, জিএনএলএফ জোট? মুখিয়ে রাজনৈতিক মহল।

Partha Sarkar

Published by:Shubhagata Dey
First published:

লেটেস্ট খবর