উত্তরবঙ্গ

corona virus btn
corona virus btn
Loading

এগোলেই মৃত্যু নিশ্চিত, আমা ডাবলাম জয় না করেই ফিরতে হল সত্য়রূপ সিদ্ধান্তদের

এগোলেই মৃত্যু নিশ্চিত, আমা ডাবলাম জয় না করেই ফিরতে হল সত্য়রূপ সিদ্ধান্তদের
শৃঙ্গ জয়ের খুব কাছ থেকে ফিরে আসতে হল৷

২৯ নভেম্বর শৃঙ্গ জয়ের খুব কাছ থেকে ফিরে আসতে হয় দেবাশিস বিশ্বাসকেও। তার আগেই নেমে আসেন সত্যরূপ সিদ্ধান্ত।

  • Share this:

#শিলিগুড়ি: বাধ সাধল খারাপ আবহাওয়া। সঙ্গে ঘণ্টায় ১০০ কিলোমিটার বেগে প্রবল হাওয়া। তাপমাত্রাও নেমে গিয়েছে হিমাঙ্কের নীচে। তখন ওঁরা শৃঙ্গের প্রায় কাছাকাছি। লক্ষ্য ছিল নেপালের আমা ডাবলাম শৃঙ্গ জয়। আমা ডাবলাম শৃঙ্গ। যার অর্থ মায়ের নেকলেস। কিন্তু শেষ পর্যন্ত আর হল না এভারেস্ট জয়ী পর্বাতোরোহীদের। ক্যাম্প ওয়ানে পৌঁছেই ঠান্ডার কামড়ে অবশ হতে শুরু করে হাতের আঙুল। রোপ ধরতে অসুবিধে। জ্যাকেট দিয়েও হাওয়া ঢুকতে শুরু করে। আর এগোলে জীবনের ঝুঁকি ছিল। পাহাড়ের দেওয়ালে বার বার ধাক্কা খেতে হয়। বাধ্য হয়েই নীচে নামতে বাধ্য হন পর্বাতোরোহী সত্যরূপ সিদ্ধান্ত

হেলিকপ্টারে নামিয়ে আনা হয় তাঁকে। ভর্তি করানো হয় কাঠমান্ডুর একটি হাসপাতালে। আরও কিছুটা উচ্চতায় উঠেছিলেন আর এর পর্বাতোরোহী দেবাশিস বিশ্বাস। কিন্তু প্রবল হাওয়ায় শেষ পর্যন্ত শৃঙ্গের খুব কাছ থেকে তিনিও ফিরে আসেন। শীতকালে শৃঙ্গ জয়ের অভিজ্ঞতা আগে ছিল না। যাওয়ার কথা ছিল মে মাসে। কিন্তু করোনার জেরে পিছিয়ে যায় শৃঙ্গ জয়ের যাত্রা। নভেম্বরের ২ তারিখ শিলিগুড়ি থেকে রওনা হলেও কাঁকড়ভিটা, কাঠমান্ডু সহ একাধিক জায়গায় অপেক্ষা করতে হয়। কোভিড টেস্টের জন্যে কোথাও ২ রাত আবার কোথাও ৩ রাত কাটাতে হয়। বেস ক্যাম্পে পৌঁছতে সময় লেগে যায়।

শেষ পর্যন্ত ২৭ নভেম্বর রওনা হন ক্যাম্প ওয়ান থেকে। ২৯ নভেম্বর শৃঙ্গ জয়ের খুব কাছ থেকে ফিরে আসতে হয় দেবাশিস বিশ্বাসকেও। তার আগেই নেমে আসেন সত্যরূপ সিদ্ধান্ত। সঙ্গী আরও ২ পর্বাতোরোহীও জয় করতে পারেননি শৃঙ্গ। বৃহস্পতিবার শিলিগুড়িতে ফিরে তাঁরা জানালেন নিজেদের গা হিম করা অভিজ্ঞতার কথা। ইংরেজি সিনেমায় দেখেছেন। এবারে বাস্তবে নিজেদের সেই অভিজ্ঞতার মুখে পড়তে হল। যা অনেক কিছুই শিখিয়েছে ওঁদের। এই অভিজ্ঞতা আগামী দিনে শৃঙ্গ জয়ের ক্ষেত্রে পাথেয় হয়ে দাঁড়াবে। সুস্থ হয়ে ফিরে আসাটাই ওদের কাছে সাফল্য। আজ শিলিগুড়িতে ওদের সংবর্ধিত করেন ন্যাফের সদস্যরা।

Partha Pratim Sarkar

Published by: Debamoy Ghosh
First published: December 3, 2020, 11:48 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर