• Home
  • »
  • News
  • »
  • north-bengal
  • »
  • Bengal Sikkim Connectivity Restored: সিকিমের পথে দূর হল বাধা, চিন্তা কমল পর্যটকদের, খুশির হাওয়া পাহাড়ে

Bengal Sikkim Connectivity Restored: সিকিমের পথে দূর হল বাধা, চিন্তা কমল পর্যটকদের, খুশির হাওয়া পাহাড়ে

দশ নম্বর জাতীয় সড়ক দিয়ে একমুখী যান চলাচল শুরু৷

দশ নম্বর জাতীয় সড়ক দিয়ে একমুখী যান চলাচল শুরু৷

অবিরাম বৃষ্টির জেরে গত ২১ অক্টোবর থেকে বন্ধ ছিল বাংলা এবং সিকিমের (Sikkim Tourism) মধ্যে সংযোগকারী ১০ নম্বর জাতীয় সড়ক ()।

  • Share this:

#শিলিগুড়ি: ছন্দে ফিরছে পাহাড়! ধীরে ধীরে স্বাভাবিক হচ্ছে গোটা পাহাড়। ৬ দিনের মাথায় আজ বিকেলে স্বাভাবিক হল ১০ নম্বর জাতীয় সড়ক (Bengal Sikkim Connectivity)। ধস সরিয়ে খুলল বাংলা-সিকিমের লাইফ লাইন! ১০ নম্বর জাতীয় সড়ক দিয়ে একমুখী যান চলাচল শুরু!

অবিরাম বৃষ্টির জেরে গত ২১ অক্টোবর থেকে বন্ধ ছিল বাংলা এবং সিকিমের (Sikkim Tourism) মধ্যে সংযোগকারী ১০ নম্বর জাতীয় সড়ক। ধসে ২০ মিটার রাস্তা ভেঙে যায়। সিকিম (Sikkim) এবং কালিম্পংয়ের মধ্যে জাতীয় সড়ক দিয়ে যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়ে। পাহাড় কেটে রাস্তা তৈরির কাজ শুরু করে পূর্ত দপ্তর৷ ছ' দিনের মাথায় ১০ নম্বর জাতীয় সড়ক দিয়ে যান চলাচল শুরু হল (National Highway Ten Update)।

আপাতত একমুখী যান চলাচল শুরু হল। আজ থেকে জাতীয় সড়ক আরও চওড়া হবে। দিপাবলির আগেই খুশীর আবহ পাহাড়ে। কোভিড, লকডাউন কাটিয়ে পাহাড়ে এবারে পুজোর ছুটিতে ভিড় জমান পর্যটকেরা। শৈলশহর দার্জিলিং থেকে কালিম্পংয়ের হোম স্টে গুলোয় তিল ধারনের জায়গা ছিল না। কিন্তু লক্ষ্মী পুজার আগের দিন থেকে টানা বৃষ্টিতে ধসে জেরবার হয়ে যায় পাহাড়। বাংলা-সিকিম লাইফ লাইনের একাধিক জায়গায় ধস নামে। ধসে বিপর্যস্ত হয়ে পড়ে লাভা, গরুবাথান, পেডংও। আটকে পড়েন পর্যটকেরা। পরে লাভার রাস্তা খুলে গেলে নামিয়ে আনা হয় পর্যটকদের।

আরও পড়ুন: সে কী! শিলিগুড়িতে আম গাছ থেকে আসছে ঘণ্টার আওয়াজ! চরম আতঙ্ক, দেখুন...

ঘুরপথে সেবক, গরুবাথান, লাভা, আলগাড়া হয়ে সিকিম ও কালিম্পংয়ের সঙ্গে চলছিল যোগাযোগ। আবার তিস্তা বাজার, পেশক, ঘুম, জোরবাংলো, কার্শিয়ং হয়েও চলছিল যোগাযোগ। অনেকটা ঘুরপথে বেশি ভাড়া গুনে চলছিল পর্যটকদের যাতায়াত। হয়রানির শিকার হতে হয় নিত্য যাত্রী থেকে অসুস্থ রোগীদেরও। বৃষ্টি কমায় বিরিকধায় ধস সরানোর কাজে হাত দেয় পূর্ত দপ্তর। ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন কালিম্পংয়ের জেলাশাসকও।

২৪ ঘণ্টা কাজ করে পাহাড় কেটে তৈরি করা হয় নতুন রাস্তা। আপাতত একমুখী গাড়ি চলাচল করলেও দ্রুত পুরো স্বাভানিক হয়ে যাবে ১০ নম্বর জাতীয় সড়ক। স্বস্তিতে পর্যটক থেকে পর্যটনের সঙ্গে জড়িতরা। সমতলের শিলিগুড়ির সঙ্গে দার্জিলিং, কালিম্পং এবং সিকিমের সড়ক যোগাযোগের পথও খুলে গেল।

Published by:Debamoy Ghosh
First published: