উত্তরবঙ্গ

corona virus btn
corona virus btn
Loading

লক্ষ্মী তৈরি করে বিক্রি না হওয়ায় চরম বিপাকে মৃৎ শিল্পীরা

লক্ষ্মী তৈরি করে বিক্রি না হওয়ায় চরম বিপাকে মৃৎ শিল্পীরা

প্রতিমা বিক্রি না হওয়ায় কি করবেন বুঝে উঠতে পারছেন না কাঞ্চনপল্লী, সুভাষগঞ্জের মৃৎ শিল্পীরা।

  • Share this:

#রায়গঞ্জ: লক্ষ্মী প্রতিমা তৈরি করে চরম বিপাকে পড়েছেন রায়গঞ্জ কাঞ্চনপল্লী, সুভাষগঞ্জের মৃৎ শিল্পীরা।প্রতিমা তৈরি করে বিক্রি না হওয়ায় গুদামে বন্দি হয়ে আছে। লোকের কাছে ধার নিয়ে প্রতিমা তৈরি করেও সেই প্রতিমা বিক্রি না হওয়ায় কি করবেন বুঝে উঠতে পারছেন না কাঞ্চনপল্লী, সুভাষগঞ্জের মৃৎ শিল্পীরা।

রায়গঞ্জ শহরের কাঞ্চনপল্লী কুমারটুলি পাড়া হিসেবে পরিচিত।এই কাঞ্চনপল্লীর বাসিন্দা যমুনা পাল। দুই বছর আগে স্বামী নেপাল পালের মৃত্যু হয়েছে।  দুই মেয়েকে নিয়ে সংসার। স্বামীর মৃত্যুর পর চিরাচরিত ব্যবসা প্রতিমা বানিয়ে কোন রকম ভাবে সংসার চালাচ্ছিলেন।কিন্তু বাদ সাধল করোনা সংক্রামন।দীর্ঘ লকডাউনের কারনে প্রতিমা তৈরির কাজ পুরোপুরি বন্ধই ছিল।উপার্জিত অর্থ দিয়ে কোনক্রমে দিন চালাচ্ছিলেন।বিশ্বকর্মা এবং মনসা প্রতিমা বানিয়ে প্রতিমা বিক্রি করতে পারেনি।

দুর্গাপুজোয় মানুষের উৎসাহ দেখে ভেবেছিলেন হয়ত লক্ষ্মীপুজোয় হয়ত মানুষের স্বতস্ফুর্ত অংশগ্রহন থাকবে।সেই আশায় লক্ষ্মী প্রতিমা তৈরি করে বিপাকে পড়েছেন। পুজোর আগে প্রতিমার জন্য কোন ক্রেতা জিজ্ঞাসা করতেও আসে নি।ফলে যে কয়টি লক্ষ্মী প্রতিমা তৈরি করেছিলেন সবগুলোই কারখানাতেই থেকে গেছে।এই পরিস্থিতিতে তারা কি করবেন ভেবেই পাচ্ছেন না।সুভাষগঞ্জের কাঁক পাড়া গেলেই দেখা মিলবে বাড়িতে বাড়িতে অংসখ্য লক্ষ্মী প্রতিমা।

মৃৎ শিল্পী বিপ্লব পাল জানিয়েছেন,গতবছর যে পরিমান লক্ষ্মীপ্রতিমা তৈরি করেছিলেন তার অর্ধেক প্রতিমা তৈরি করেও বিপাকে পড়েছেন।গতবছরের এবারে দামে প্রতিমা বিক্রি করেও সেই প্রতিমা বিক্রি করতে পারেন নি। ফলে টাকা লাগিয়ে প্রতিমা তৈরি করে বিক্রি না হওয়ায় চরম সমস্যায় পড়েছেন তারা।দিন আনা দিন খাওয়া মানুষেরা এখন কি করবেন তা বুঝে উঠতে পারছেন না বিপ্লব বাবুর মত মৃৎশিল্পীরা।এভাবে চলতে থাকলে আগামীতে এই পেশা বন্ধ করে দিতে বাধ্য হবেন বলে জানিয়েছেন বিপ্লববাবু।

Published by: Dolon Chattopadhyay
First published: November 2, 2020, 8:48 AM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर