Home /News /north-bengal /
মালদহে পঞ্চায়েত প্রধানের বিরুদ্ধে আর্থিক প্রতারনার অভিযোগ, মতপার্থক্য নীহাররঞ্জন ও কৃষ্ণেন্দুর

মালদহে পঞ্চায়েত প্রধানের বিরুদ্ধে আর্থিক প্রতারনার অভিযোগ, মতপার্থক্য নীহাররঞ্জন ও কৃষ্ণেন্দুর

এই অভিযোগকে কেন্দ্র করে চাপানউতোরে জড়িয়েছেন মালদহ তৃনমূলের দুই হেভিওয়েট নেতা বিধায়ক নিহাররঞ্জন ঘোষ এবং প্রাক্তন মন্ত্রী কৃষ্ণেন্দুনারায়ণ চৌধুরী।

  • Share this:

মালদহ:পঞ্চায়েত প্রধানের বিরুদ্ধে কয়েক কোটি টাকা প্রতারনার অভিযোগ মালদহে। সোমবারই ইংরেজবাজারের যদুপুর-২ পঞ্চায়েতের  তৃনমূল প্রধানের বিরুদ্ধে ইংরেজবাজার থানায় অভিযোগ দায়ের করেন অভিযোগকারীরা। এই অভিযোগকে কেন্দ্র করে চাপানউতোরে জড়িয়েছেন মালদহ তৃনমূলের দুই হেভিওয়েট নেতা বিধায়ক নিহাররঞ্জন ঘোষ এবং প্রাক্তন মন্ত্রী কৃষ্ণেন্দুনারায়ণ চৌধুরী।

মালদহে যদুপুর-২ গ্রাম পঞ্চায়েতের তৃনমূল প্রধান সাজ্জাদ আলির বিরুদ্ধে গরিব মানুষদের নামে বিভিন্ন ব্যাঙ্কে জনধন যোজনার অ্যাকাউন্ট খুলিয়ে আর্থিক প্রতারনার অভিযোগ উঠেছে। সোমবার বেশ কয়েকজন প্রতারিতকে পাশে বসিয়ে সরাসরি সংবাদমাধ্যমের কাছে অভিযোগ করেন মালদহ তৃনমূলের দাপুটে নেতা ও রাজ্যের প্রাক্তন মন্ত্রী কৃষ্ণেন্দুনারায়ণ চৌধুরী। কৃষ্ণেন্দুবাবুর অভিযোগ গরিব মানুষের নামে ব্যাঙ্কে অ্যাকাউন্ট খুলে কয়েক কোটি টাকা তছরূপ করেছেন যদুপুর-২ গ্রাম পঞ্চায়েতের প্রধান সাজ্জাদ আলি। যিনি ইংরেজবাজারের বিধায়ক নিহাররঞ্জন ঘোষের অত্যন্ত ঘনিষ্ঠ। কৃষ্ণেন্দুর অভিযোগ, বেশ কিছুদিন আগে যদুপুর পঞ্চায়েতের অনেক গরিব মানুষের নামে অ্যাকাউন্ট খোলান ওই পঞ্চায়েত প্রধান। কিন্তু, ব্যাঙ্কের পাশবই, চেকবই, এ.টি.এম কার্ড কিছুই হাতে পাননি গ্রাহকেরা। সবই নিজের কবজায় রেখেছেন ওই পঞ্চায়েত প্রধান। শুধু তাই নয়, ওই অ্যাকাউন্ট গুলিতে অনেক ভূতুড়ে টাকা জমা পড়ছে ও উধাও হয়ে যাচ্ছে। এমনকী সরকারি ধান বিক্রির টাকাও জমা পড়ছে এইসব অ্যাকাউন্টে। অথচ এইসব গ্রামীন মানুষ ধান বিক্রি করেননি। অভিযোগ এভাবেই লক্ষ লক্ষ টাকা তোলা হয়েছে।

ইতিমধ্যে কয়েকজন গ্রাহক এ নিয়ে ইংরেজবাজার থানায় প্রধানের বিরুদ্ধে অভিযোগও দায়ের করেছেন। কৃষ্ণেন্দুর পাশে বসে কয়েকজন গ্রাহকও সোমবার পঞ্চায়েত প্রধানের বিরুদ্ধে অভিযোগ তোলেন। পাশাপাশি, রাজ্য সরকারের আদিবাসীদের জন্য ‘জয় জোহর’ প্রকল্পেও ওই প্রধান বয়স ভাড়িয়ে ৩৭ জনকে বেআইনি ভাবে অর্ন্তভুক্ত করেছেন বলেও অভিযোগ উঠেছে।

এদিকে, মালদহে পঞ্চায়েত প্রধানের বিরুদ্ধে ওঠা এই অভিযোগ বাড়তি মাত্রা পেয়েছে এ নিয়ে জেলা তৃনমূলের দুই হেভিওয়েটের দ্বন্ধ ফের  প্রকাশ্যে চলে আসায়। কৃষ্ণেন্দুবাবু যেখানে প্রধানের বিরুদ্ধে প্রতারনার অভিযোগ তুলেছেন সেখানে তাঁর হয়ে আসরে নেমেছেন ইংরেজবাজারের তৃনমূল বিধায়ক নীহাররঞ্জন ঘোষ। বিধায়কের পাল্টা দাবি, ওই প্রধান সৎ লোক। উদ্দেশ্যপ্রনোদিত ভাবে তাঁকে কলঙ্কিত করার চেষ্টা হচ্ছে। নিজের বিরুদ্ধে ওঠা অভিযোগ অস্বীকার করেছেন তৃনমূল বিধায়ক ঘনিষ্ট পঞ্চায়েত প্রধান সাজ্জাদ আলিও।

Published by:Arka Deb
First published:

Tags: A, Malda

পরবর্তী খবর