• Home
  • »
  • News
  • »
  • north-bengal
  • »
  • Siliguri Municipal Corporation: শিলিগুড়ি পুরসভা কার? বামেরা কি ফিরবে? লড়াইয়ের প্রস্তুতি শুরু লাল-সবুজ-গেরুয়ার

Siliguri Municipal Corporation: শিলিগুড়ি পুরসভা কার? বামেরা কি ফিরবে? লড়াইয়ের প্রস্তুতি শুরু লাল-সবুজ-গেরুয়ার

বরাবরই বামেদের শক্ত ঘাঁটি হিসেবে পরিচিত শিলিগুড়ি। এবার পুরসভা নির্বাচনে কি ক্ষমতা ফিরে পাবে বামেরা?

বরাবরই বামেদের শক্ত ঘাঁটি হিসেবে পরিচিত শিলিগুড়ি। এবার পুরসভা নির্বাচনে কি ক্ষমতা ফিরে পাবে বামেরা?

বরাবরই বামেদের শক্ত ঘাঁটি হিসেবে পরিচিত শিলিগুড়ি। এবার পুরসভা নির্বাচনে কি ক্ষমতা ফিরে পাবে বামেরা?

  • Share this:

#শিলিগুড়ি: শিলিগুড়ি পুরসভার নির্বাচনের দিনক্ষণ ঘোষণা না হলেও প্রস্তুতি শুরু করে দিয়েছে সব পক্ষই। দ্রুত নির্বাচনের দাবীতে সরব বাম এবং বিজেপি। বরাবরই বামেদের শক্ত ঘাঁটি হিসেবে পরিচিত শিলিগুড়ি। এবার পুরসভা নির্বাচনে কি ক্ষমতা ফিরে পাবে বামেরা? বিধানসভা নির্বাচনে ভরাডুবির পর এখন এই প্রশ্নই ঘুরপাক খাচ্ছে শহরে। রাজ্যে ২০১১ তে পরিবর্তনের পরও শিলিগুড়ি নিজেদের দখলেই রেখেছিল বামেরা। কিন্তু সদ্য সমাপ্ত বিধানসভা নির্বাচনে নিজেদের ঘাঁটিতেই তিন নম্বরে থামতে হয়েছে বামেদের। প্রায় প্রতিটি বুথেই বামেরা নেমে আসে তিন নম্বরে।

গোটা রাজ্যেই শূন্য। প্রবীন নেতা, প্রাক্তন মন্ত্রী, মেয়র অশোক ভট্টাচার্যকেও হার মানতে হয় একদা "শিষ্য" শঙ্কর ঘোষের কাছে। পুরসভা নির্বাচনে কি ঘুরে দাঁড়াতে পারবে বামেরা? অশোকবাবুর জবাব, "আমরা মরে যাইনি। বেঁচে আছি। লড়াইটা সহজ নয়। তবে লড়াই করতে হবে। লড়াই করেই জিততে হবে।" বিধানসভা নির্বাচনের মুখে সিপিএম ছেড়ে বিজেপিতে যোগ দেন শঙ্কর ঘোষ। টিকিট পেয়ে ৫০ শতাংশের বেশী ভোট পেয়ে বিধায়ক নির্বাচিত হয়েছেন। তাঁর দলবদলের পর বাম শিবিরে তেমন ভাঙন ধরা না পড়লেও বাম ভোট গিয়ে পড়েছে রামে। তাকে ধরেই পুরভোটে বাজিমাত করতে চায় গেরুয়া শিবির।

শিলিগুড়ির বিধায়ক শঙ্কর ঘোষ জানান, শিলিগুড়ি আর ফিরে পাবে না বামেরা। নেতৃত্বের অভাবেই ভরাডুবি হবে। দ্রুত নির্বাচনের ডাক দিয়ে মূলত বেহাল পুর পরিষেবা এবং কোভিড টিকা নিয়ে শাসক তৃণমূলের বিরুদ্ধে আন্দোলন জোরদারের পথে বিজেপি। দ্রুত পুরসভা অভিযানও করবে। তাঁর দাবী, বিজেপির সমর্থন কয়েকগুন বেড়েছে। তৃণমূলবিরোধী ভোটও পাবে বিজেপি। আর তাই এবারে লোকসভা, বিধানসভার পর লক্ষ্য শিলিগুড়ি পুরসভা।  টিকা নিয়ে তৃণমূলের বিরুদ্ধে আন্দোলনে বামেরাও। অযথা হয়রানি করা হচ্ছে শহরবাসীকে। পুরসভা অভিযানের ডাক দিয়েছে বামেরাও। চলতি মাসেই অভিযান হবে। বিজেপিকে ভোট দিয়ে মানুষ ভুল বুঝতে পেরেছে। তৃণমূলের বিকল্প বিজেপি নয়। তাই বামেরাই যে বিকল্প তা ভোটাররা বুঝতে পেরেছে। পুরভোটে তার ফল মিলবে বলে মনে করেন অশোকবাবুরা।

অন্যদিকে এখন পুরসভার প্রশাসকের দায়িত্বে রয়েছেন তৃণমূল নেতারা। গৌতম দেবকে প্রশাসক করে চার সদস্যের প্রশাসক মণ্ডলী করা হয়েছে। যা নিয়ে বিরোধীরা সরব হলেও গুরুত্ব দিতে নারাজ তৃণমূল শিবির। গত ১০ বছরের শহরের অনুন্নয়নই হাতিয়ার। সেইসঙ্গে প্রশাসক হিসেবে উন্নয়নমূলক কাজ করে শহরবাসীর মন জয় করতে মরিয়া তারা। বিরোধী শূণ্য পুরসভাই তাদের লক্ষ্য বলে দাবী প্রশাসকমণ্ডলীর সদস্য রঞ্জন সরকারের। যথা সময়ে পুরভোট হবে বলে দাবী করে তিনি বলেন, এককভাবেই পুরসভা দখল করবে তৃণমূল। কোনো বিরোধী থাকবে না। আর টিকা নিয়ে কোনো দূর্ণীতি হয়নি বলে দাবী করে এই ইস্যুতে কেন্দ্রকেই দুষেছেন। পুরসভা দখলের লক্ষ্যে ইতিমধ্যেই বাম শিবিরে ভাঙন ধরিয়েছে তারা। তিন প্রাক্তন বাম কাউন্সিলরকে দলে টেনেছে তৃণমূল। দুই প্রাক্তন কংগ্রেস কাউন্সিলরকেও দলে টেনেছে। মুখ্যমন্ত্রীর নেতৃত্বে শিলিগুড়ির সার্বিক উন্নয়নকে সামনে রেখে নির্বাচনী ময়দানে নামবে তারা।

Published by:Suman Majumder
First published: